আজ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পবিত্র লাইলাতুল কদর

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ৪ সপ্তাহ আগে

আজ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পবিত্র লাইলাতুল কদর বা শবেকদর। মহিমান্বিত এই রাতে পবিত্র কোরআন অবতীর্ণ হয়েছে। পবিত্র কোরআন শরিফে কদর নামে একটি সুরা আছে। এই রাতের  ইবাদতকে হাজার মাসের চেয়ে উত্তম বলা হয়েছে।অবশ্য হাদিসের বর্ণনা মতে, রমজানের শেষ ১০ দিনের যেকোনো বিজোড় রাতে লাইলাতুল কদর হতে পারে।

লাইলাতুল কদর বা শবেকদর অর্থ হচ্ছে সম্মান ও মর্যাদাপূর্ণ রাত। বছরের যে কয়টি দিন ও রাত সর্বাপেক্ষা মহিমান্বিত, তার মধ্যে সবচেয়ে উত্তম ও বরকতময় হচ্ছে শবেকদর। এই রাতে লাওহে মাহফুজ থেকে পবিত্র কোরআন অবতীর্ণ হয়।বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা নামাজ, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত, জিকিরসহ নানা ইবাদত-বন্দেগিতে এই রাত কাটিয়ে থাকেন। দেশের বেশির ভাগ মসজিদে এই রাতেই তারাবির নামাজে পবিত্র কোরআনের খতম হয়ে থাকে।

পবিত্র শবেকদর উদযাপন উপলক্ষে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে আলোচনা, দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। আজ বাদ জোহর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘পবিত্র শবেকদরের ফজিলত ও তাত্পর্য’ শীর্ষক আলোচনা করবেন জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা এহসানুল হক।

পবিত্র শবেকদর উপলক্ষে দেশবাসীসহ বিশ্বের সব মুসলমানকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এক বাণীতে বলেন, ‘আমরা এমন একটি সময়ে পবিত্র রমজান মাস পালন করছি, যখন বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে করোনা মহামারি, সংঘাত, যুদ্ধবিগ্রহ, অভাব-অনটনসহ বিভিন্ন কারণে হাজার হাজার মানুষ অসহায় দিনাতিপাত করছে। আসুন শবেকদরের এই পবিত্র রজনীতে আমরা এসব সংকট থেকে উত্তরণের জন্য সর্বশক্তিমান আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করি। ’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক বাণীতে বলেন, ‘আসুন, আমরা সবাই এই মহিমান্বিত রজনীতে মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে বিশেষভাবে ইবাদত ও দোয়া প্রার্থনা করি যেন আল্লাহ বাংলাদেশের জনগণসহ বিশ্ববাসীকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মুক্তি দেন। পবিত্র এই রজনীতে আমি মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ ও মুসলিম জাহানের উত্তরোত্তর উন্নতি, শান্তি, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কামনা করছি। ’