অভাব-অনটনে থাকা সেই চার কিশোরী কাজের সন্ধানে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ২ সপ্তাহ আগে

নিখোঁজের ৩২ ঘণ্টা পর লক্ষ্মীপুরের সেই চার কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় এক পুলিশ সদস্য তাদের পুলিশ হেফাজতে দেন। জেলা কারাগারের পাশে ওই পুলিশ সদস্যের বাসাতেই আশ্রয় নিয়েছিল চার কিশোরী। জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে গতকাল রাত ৯টার দিকে প্রেস ব্রিফিং করে বিষয়টি জানান পুলিশ সুপার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান।

পুলিশ সুপার জানান, কারও প্ররোচনা কিংবা তাদের কেউ অপহরণ করেনি। স্বেচ্ছায় তারা কাজের সন্ধানে বাড়ি ছাড়ে। তারপরও বিষয়টি নিয়ে আরও তদন্ত করা হচ্ছে। চার কিশোরীকে তাদের পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) পলাশ কান্তি নাথ, সহকারী পুলিশ সুপার মিমতানুর রহমান, ডিএসবির ওসি একেএম আজিজুর রহমান মিয়া, কমলনগর ওসি মো. সোলায়মান হোসেনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

সাংবাদিকদের পুলিশ সুপার এএইচএম কামরুজ্জামান জানান, অভাব-অনটনে থাকা চার কিশোরী কাজের সন্ধানে বাবা-মার অগোচরে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরে একটি সিএনজিযোগে জেলা শহরের উত্তর তেমুহনীতে এসে পুলিশ সদস্য নুরুল ইসলামের বাড়িতে আশ্রয় নেয়।

কিন্তু তাদের অবস্থান পরিবারের সদস্যদের জানাতে নিষেধ করায় সন্দেহ হয় ওই পুলিশ সদস্যের। পরে বিষয়টি কমলনগর থানায় অবহিত করা হলে পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।কমলনগর উপজেলার বাদামতলী এলাকার সামিয়া আক্তার, জোবায়দা আক্তার, সিমু আক্তার ও মিতু আক্তার নামে চাচাতো ও খালাতো চার বোন গত শনিবার সকালে বাড়ি থেকে বের হয়।

এর পর তাদের খোঁজ না পাওয়ায় পরিবারের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ে। পরে নানি পরিচয়ে আকলিমা নামে এক নারী কমলনগর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!