সহিংসতাকারীদের দেখামাত্র গুলি করার নির্দেশ শ্রীলংকায়

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ২ সপ্তাহ আগে

শ্রীলঙ্কায় সহিংসতাকারীদের দেখামাত্র গুলি করার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।  আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে শ্রীলঙ্কার নিরাপত্তাবাহিনীকে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।কাতার ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার খবরে বলা হয়, বিজ্ঞপ্তিতে লঙ্কান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে কোনো বিক্ষোভকারীকে যদি সরকারি সম্পদ ধ্বংস করেন এবং কারও জীবনের জন্য হুমকি হয়ে যান তাঁকে দেখামাত্র গুলি করতে নিরাপত্তাবাহিনীকে  নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সোমবার শ্রীলঙ্কায় অন্তত অর্ধশতাধিক রাজনীতিবিদের বাড়িতে আগুন দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। মাহিন্দা রাজাপাকসের ছোট ভাই গোটাবায়া রাজাপাকসে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট। তাঁর সরকারি বাসভবনের চারপাশের এলাকাতেও আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।এদিকে, সোমবার জারি করা কারফিউয়ের সময় বাড়ানো হয়েছে। আগের ঘোষণা অনুযায়ী কারফিউ মঙ্গলবার সকাল ৭টায় তুলে নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরে তা আগামীকাল বুধবার সকাল ৭টা পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

গতকাল সোমবার চরম আর্থিক সংকটে থাকা শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে গণবিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেছেন।  সোমবার বিক্ষোভকারীরা কলম্বো উপকণ্ঠে সরকার দলীয় এমপি অমরাকীর্তি আথুকোরালার গাড়িতে হামলা চালালে তিনি দুজনকে গুলি করেন। এতে একজন মারা যান। এরপর সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা তাঁকে ঘিরে ধরলে নিজের পিস্তল দিয়ে আত্মহত্যা করেন অমরাকীর্তি।

পুলিশ ও সেনাবাহিনীকেও অনেক ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।বলা হয়েছে সেনাবাহিনী ও পুলিশ কোনো ওয়ারেন্ট ছাড়া যে কাউকে গ্রেফতার করতে পারবে। তাছাড়া সেনাবাহিনী কাউকে আটক করলে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ার আগে ২৪ ঘণ্টা বা তারও বেশি সময় নিজেদের জিম্মায় রাখতে পারবে।এমনকি পুলিশ ও সেনাবাহিনীকে সন্দেহভাজন যে কারও বাড়ি ও গাড়ি তল্লাশি করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।এদিকে সোমবার পুরো শ্রীলংকায় দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে সরকার বিরোধী আন্দোলন। 

সংবাদ সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, রাতের বেলা কলম্বো বিমানবন্দরের রাস্তা অবরোধ করে জনতা। জানা গেছে রাজাপাকসেপন্থি কেউ যেন দেশ ছেড়ে না পালাতে পারে সেজন্য বিমানবন্দর ঘেরাও করেছিলেন তারা। পুলিশ জানিয়েছে, সোমবারের সংঘর্ষে আটজন প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া আরও ২২৫ জন আহত হয়েছেন। 

এদিকে সোমবার মাহিন্দা রাজাপাকসের সরকারি বাসভবনে উত্তেজিত জনতা হামলা করার পর তাকে হেলিক্প্টারে করে উদ্ধার করে নিয়ে যায় সেনাবাহিনী।চামাল পোলওয়াত্তে নামে একজন আন্দোলনকারী জানান, প্রেসিডেন্টকেও পদত্যাগ করতে হবে। তিনি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।