জাবি’র এক ছাত্রের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে নার্সকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

লেখক: বাংলা ম্যাগাজিন
প্রকাশ: ৩ সপ্তাহ আগে

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে কর্তব্যরত এক নার্সকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত মামুনুর রশিদ প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের (২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ) ও শহীদ সালাম-বরকত হলের আবাসিক ছাত্র।

শনিবার (৪ জুন) সকাল সাড়ে ৯টায় এ ঘটনা ঘটে জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই নার্স। পরে প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসানের কাছে লিখিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন মামুনুর রশীদ।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রের এক চিকিৎসক জানান, শনিবার সকাল ৯টার দিকে শহীদ সালাম-বরকত হলের আবাসিক ছাত্র মামুনুর রশীদ ভ্যাকসিন নিতে আসেন। এ সময় সেখানে কর্মরত নার্স তাকে ভ্যাকসিন দিতে গেলে মামুনুর তাকে যৌন হয়রানি করেন।

এদিকে এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে চিকিৎসাকেন্দ্রে তালা ঝুলিয়ে অবরোধ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী ইউনিয়ন ও সমিতির সদস্যরা। অবরোধের কারণে প্রায় আড়াই ঘণ্টা চিকিৎসাকেন্দ্রে সেবাদান কার্যক্রম বন্ধ ছিল। বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের আশ্বাসে ও রোগীদের সেবা নেওয়ার কথা বিবেচনা করে তারা অবরোধ তুলে নেন।

অভিযোগপত্রে ওই নার্স জানিয়েছেন, ‘সকাল সাড়ে ৯টার দিকে প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের ওই শিক্ষার্থী ইনজেকশন দেওয়া সময় আমার শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। এ সময় আমি চিৎকার করলে সহকর্মীরা ডিউটি রুমে এসে উপস্থিত হয়। তখন ওই শিক্ষার্থী সরে দাঁড়ান। এ ঘটনায় আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত।

আমার ওপর সংঘটিত এই যৌন হয়রানির সুষ্ঠু বিচার কামনা করছি। ‘অভিযুক্ত মামুন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমি ইনজেকশন নেওয়ার সময় নার্সের গায়ে হাত দিই। আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগটি সত্য। এটা আমি ইচ্ছা করেই করেছি। ‘

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, ‘একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগটা বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন সেলে ফরওয়ার্ড করা হবে। সেল ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। বিষয়টা যেহেতু সেনসিটিভ, আমি আশা করছি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্মচারীদের বেঁধে দেওয়া আলটিমেটামের আগেই সিদ্ধান্ত নেবে। ‘

বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম হাওলাদার বলেন, ‘সেবাদানরত অবস্থায় আমাদের এক সহকর্মীকে ছাত্র নামধারী এক শিক্ষার্থী যৌন নিপীড়ন করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তের শাস্তির দাবি করছি। ‘

তবে অভিযুক্ত মামুনের সহপাঠী ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, তিনি ‘মানসিকভাবে অসুস্থ’।  এমনকি বৃহস্পতিবার (২ জুন) তিনি হলের নিজ কক্ষে ‘আত্মহত্যা’র চেষ্টা করেন।প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের কয়েকজন শিক্ষকও দাবি করেন, মামুনুর ‘মানসিক ভারসাম্যহীন। সে বিগত কয়েক দিন যাবৎ অস্বাভাবিক আচরণ করছে। এ জন্য তার চিকিৎসা চলছে। ‘