নারায়ণগঞ্জে হাত, পা ও চোখ বাঁধা অবস্থায় এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জে হাত, পা ও চোখ বাঁধা অবস্থায় এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় হাত, পা ও চোখ বাঁধা অবস্থায় এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। দুর্বৃত্তরা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে ধারণা পুলিশের। আজ বুধবার রাতে উপজেলার সদাসদি কাজীপাড়া চকের বাড়ি এলাকার নিজ ঘর থেকে ওই লাশ উদ্ধার করে। নিহত গৃহবধূ হলেন, একই এলাকার ওমর আলীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৫০)।

নিহতের ভাগ্নে হিরন সাংবাদিকদের বলেন, ‘খালু ওমর আলী এ বাড়িতে থাকেন না। আর একমাত্র খালাতো ভাই মালেশিয়া প্রবাসী। ফলে খালা একাই বসবাস করেন বাড়িতে। মঙ্গলবার রাতে খালাতো ভাই শরীফ দেশে আসার কথা ছিল। আসছে কিনা সেটা জানতে বিকেলে খালার বাড়িতে আসি।

এসে দেখি দরজা বন্ধ। অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করলেও ভেতর থেকে কোনো সারা দিচ্ছে না। যার জন্য ঘরের জানালা ধাক্কা দিয়ে খুলে ভেতরে প্রবেশ করি। আর ঘরে ঢুকেই দেখতে পাই খালা এভাবে পরে আছে। তখন আত্মীয়-স্বজন ও পুলিশকে খবর দেই। ’

আড়াইহাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘স্বজনরা পুলিশকে জানালে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। নিহতের হাত, পা, চোখ কাপড় দিয়ে বাঁধা। তাছাড়া বাড়িতে সিঁধ কাটা। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে। ইতোমধ্যে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। ’

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে, সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে দুর্বৃত্তরা তাকে হাত-পা ও চোখ বেঁধে শ্বাসরোধে হত্যা করে। তবে ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ বলা যাবে। ’