অপরাধবগুড়াবাংলাদেশবিনোদনরাজশাহী

বগুড়ায় হিরো আলমের বিরুদ্ধে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে জিডি

আলোচিত আশরাফুল আলম সাঈদ ওরফে হিরো আলমের বিরুদ্ধে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ এনে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন এক ব্যক্তি। বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার এমদাদুল হক নামের স্থানীয় এক সাংবাদিক গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় নন্দীগ্রাম থানায় এই জিডি করেন। যদিও হুমকির অভিযোগ মিথ্যা দাবি করেছেন হিরো আলম।

জিডিতে ওই ব্যক্তি উল্লেখ করেছেন, গত ২৭ জুলাই ‘দৈনিক আলোর পথ’ নামে একটি অনলাইনে ‘হিরো আলমকে শেষবার সতর্ক করলেন নুসরাত’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর জেরে ওই দিন বিকেল ৫টা ৩ ও ৫টা ৬ মিনেটে হিরো আলমের মুঠোফোন নম্বর থেকে ফোন করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ এবং প্রতিবেদনটি অনলাইন থেকে সরিয়ে না নিলে ‘সমস্যা’ করবেন বলে হুমকি দেন।

নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন আজ রোববার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এমদাদুল হক নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে হিরো আলমের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জিডিতে এমদাদুল হক দাবি করেছেন, সাবেক স্ত্রী নুসরাতকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশের জেরে হিরো আলম তাঁকে অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ এবং হুমকি দিয়েছেন।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে হিরো আলম বলেন, নিজেকে সাংবাদিক দাবি করা এমদাদুল হক নামের ওই ব্যক্তি তাঁর কোনো বক্তব্য না নিয়েই ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে একটা অনলাইনে নিউজ করেন। তিনি এমদাদুলের ফোন নম্বর সংগ্রহ করে যোগাযোগ করে তাঁর বক্তব্য যুক্ত করার জন্য অনুরোধ করেন। না হলে অনলাইন থেকে নিউজটা সরাতে বলেন। কিন্তু তিনি সরাবেন না জানিয়ে ফোন কেটে দেন। পরে অন্যদের প্ররোচনায় তাঁর ক্যারিয়ারের ক্ষতি করতে এমদাদুল মিথ্যা অভিযোগে জিডি করেছেন।

যোগাযোগ করা হলে এমদাদুল হক বলেন, হিরো আলমকে সতর্ক করে তাঁর সাবেক স্ত্রী নুসরাত জাহান নিজের ফেসবুক আইডিতে একটি পোস্ট দেন। সেই তথ্যের ভিত্তিতে হিরো আলমকে একটি নম্বর থেকে দুই দফা ফোন দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি ফোন ধরেননি। কিন্তু প্রতিবেদন অনলাইনে ছাড়ার পর তিনি ফোনে হুমকি দেন।

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button