এক্সক্লুসিভএশিয়াবিশ্ব সংবাদরাজনীতি

শ্রীলঙ্কার কলম্বোয় ‘গ্যালে ফেস গ্রিন’ উদ্যানের বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বিভক্তি

শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোর ‘গ্যালে ফেস গ্রিন’ উদ্যানের বিক্ষোভকারীদের মধ্যে বিভক্তি তৈরি হয়েছে।গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের জেরে দিন দশেক আগে নিরাপত্তা বাহিনীর হামলার পর আন্দোলনকারীরা সেখানে অবস্থান ধরে রাখা নিয়ে বিভক্ত হয়ে পড়েছে।

আন্দোলনকারীদের এই বিভক্তির মধ্যে প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহে রবিবার জানান, গোতাবায়া রাজাপক্ষের দেশে ফেরার সঠিক সময় এখনো হয়নি। তিনি দেশে ফিরলে এই মুহূর্তে রাজনৈতিক উত্তেজনা বাড়বে।

গত ২১ জুলাই শ্রীলঙ্কার আধাসামরিক বাহিনী আন্দোলনরতদের ওপর হামলা চালানোর পর আন্দোলনে বিভক্তি সৃষ্টি হয়। নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হওয়া ছাড়াও অনেকে আত্মগোপনে গিয়েছে। সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রীরা বিক্ষোভকারীদের সরে যেতে বলছেন।মেলানি গুনাতিলেকা নামের একজন আন্দোলনকারী বলেন, ‘গোতা গো গামা’ শিবিরের বাসিন্দারা কেউ যায়নি, নিছক ‘দর্শকরা’ চলে গিয়েছে।

গ্যালে ফেস গ্রিন উদ্যানে তাঁবু তৈরি করে অবস্থান করছিল আন্দোলনকারীরা। প্রেসিডেন্ট পদ ছেড়ে দিয়ে গোতাবায়াকে ‘বাড়ি ফিরে যাওয়ার’ আহ্বান জানিয়ে তারা ওই তাঁবু তৈরি করেছিল। আন্দোলনের জোয়ারে এক পর্যায়ে দেশ থেকে পালিয়ে যান প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া।

আন্দোলনকারীদের একাংশ মনে করে, ক্ষমতা থেকে রাজাপক্ষে পরিবারের ছায়া এখনো সরেনি এবং রনিল বিক্রমাসিংহে তাদেরই প্রতিনিধি। অন্য অংশ মনে করে, গোতাবায়ার পদত্যাগের মধ্য দিয়ে মূল দাবি বাস্তবায়িত হয়েছে।আন্দোলন বন্ধের পক্ষে থাকা ভিমুক্তি দুশান্থা নামের আরেক বিক্ষোভকারী বলেন, ‘গোতাবায়ার বিদায় নেওয়াই ‘গোতা গো গামা’ শিবিরের মূল স্লোগান ছিল। এখন তিনি চলে গিয়েছেন। এই আন্দোলনের কেন্দ্রে যা ছিল তা আদায় হয়েছে। ’ 

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button