এক্সক্লুসিভরাজনীতি

বিএনপি’র আন্দোলনের নেতা কি বাংলাদেশে আছেনঃ ওবায়দুল কাদের

*আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপির ফখরুল সাহেব বড় বড় কথা বলেন। আমি বলতে চাই, আপনাদের আন্দোলনের রূপরেখা তৈরি করলে ওই আন্দোলনের নেতৃত্ব দেবেন কে? আন্দোলনের নেতা কি বাংলাদেশে আছেন, নাকি রিমোট কন্ট্রোলে লন্ডন থেকে নেতৃত্ব দেবেন? আদালতের আদেশে তত্ত্বাবধায়ক সরকার এখন মিউজিয়ামে চলে গেছে। তত্ত্বাবধায়কের দুঃস্বপ্ন দেখে কোনো লাভ নেই।’আজ বুধবার সকালে ঢাকার ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।*

*এর আগে ধামরাই হার্ডিঞ্জ সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ঢাকা-২০ (ধামরাই) আসনের সংসদ সদস্য বেনজীর আহমদ। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এম এ মালেকের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেনের সঞ্চালনায় সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান।*

*ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তাকে বিএনপি ভয় পায়। আমরা খবর পেয়েছি, তারা বাংলাদেশকে বিশৃঙ্খলার আবহে নিতে পেট্রলবোমা, ককটেল বিস্ফোরণের পরিকল্পনা নিয়েছে। তারা যদি আন্দোলনের নামে সহিংসতা করে, আগুন-সন্ত্রাস নিয়ে মাঠে নামে, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এর সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।’*

*আওয়ামী লীগের এই নেতা আরও বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা আগামী নির্বাচনে অংশ নেব। আগামী নির্বাচনে নতুন করে কোনো সরকার আসবে না। গণতান্ত্রিক অন্য দেশের মতো সরকার রুটিন দায়িত্ব পালন করবে। নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’*

*সাবেক আইনমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, আগামী নির্বাচনে বিরোধী দল অংশ না নিলে তারা চরম সংকটে পড়বে। আগুন-সন্ত্রাস চালিয়ে পার পাওয়া যাবে না। যদি তারা আগুন-সন্ত্রাসের পথে হাটে, তাহলে নেতা-কর্মীদের নিয়ে কঠোরভাবে মোকাবিলা করা হবে।কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল, বাংলাদেশে তখন খাদ্যঘাটতি ছিল। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছে। খাদ্য, বিদ্যুৎ ও সড়কের উন্নয়নে কাজ করছে বর্তমান সরকার। দেশ আজ বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।*

*সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন শেষে বিকেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। পরে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এম এ মালেককে পুনরায় সভাপতি ঘোষণা করা হয়। এ ছাড়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র গোলাম কবির মোল্লাকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।*

*সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, সাবেক আইনমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, শিক্ষা ও মানবসম্পদ উন্নয়নবিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।*

বাংলা ম্যাগাজিন /এসকে

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button