অর্থ ও বাণিজ্য

মোংলা-খুলনা রেলপথ চালু হচ্ছে ডিসেম্বরে

বহু প্রতিক্ষিত মোংলা-খুলনা রেলপথ চালু হচ্ছে ডিসেম্বরে। এ বন্দর রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হওয়ার সাথে সাথে প্রতিবেশী দেশ ভারত, নেপাল ও ভুটানের সাথে বাণিজ্য বাড়বে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে এ প্রকল্পটির মাধ্যমে পাল্টে যাবে দেশের আমদানি রপ্তানি বাণিজ্যের গতি। মোংলা বন্দরের অপারেশনাল কার্যক্রম কয়েকগুন বৃদ্ধি পাবে। সড়ক পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো মোংলা বন্দর ব্যবহার করে পণ্য আমদানি রপ্তানি করতে পারবে। ৪ হাজার ২৬০ কোটি ৮৮ লাখ ব্যয়ে ৬৪ দশমিক ৭৫০ কিলোমিটার মোংলা-খুলনা ব্রডগেজ রেললাইন চালু হওয়ার পর আমদানি রপ্তানিকারকরা কম সময়ে স্বল্প খরচে কন্টেইনার পরিবহন করতে পারবে।মোংলা বন্দর ব্যবহার করে ভবিষ্যতে ভুটান ও নেপালের মধ্যেও পণ্য পরিবহন সম্ভব হবে।মোংলা বন্দর থেকে মালামাল রেলপথে বিভিন্ন স্থানে পরিবহণ আগের তুলনায় আরো সাশ্রয় এবং নিরাপদ হবে।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের পরিকল্পনা প্রধান মো. জহিরুল হক জানান,বন্দর ব্যবহারকারীদের সুবিধার জন্য কর্তৃপক্ষ সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে। একই সঙ্গে রেল ও সামুদ্রিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিকল্প রুট সৃষ্টি হবে এর মাধ্যমে।আগামী দুই বছরের মধ্যে এটি আন্তর্জাতিক মানের বন্দরের পর্যায়ে পৌঁছাবে। ফলে চট্টগ্রাম বন্দরের ওপর চাপ কিছুটা কমবে বলে জানান তিনি।বন্দর কর্তৃপক্ষের উপসচিব মো. মাকরুজ্জামান জানান মোংলা- খুলনা রেলপথ চালু হওয়ার পর মোংলা বন্দর যেমন আরও গতিশীল হবে, তেমনি এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক কার্যক্রম আরও বৃদ্ধি পাবে।

এছাড়া এটি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের পর্যটনকে ইতিবাচকভাবে প্রভাবিত করবে বলেও আশা করা হচ্ছে।মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মূসা বলেন, আগামী ডিসেম্বরে মোংলা-খুলনা রেলপথ চালু হলে বিশ্বের রেল সংযোগবিহীন একমাত্র আন্তর্জাতিক সমুদ্র বন্দরের দুর্নাম ঘুচবে মোংলা বন্দরের।  আর পদ্মা সেতু চালু হওয়ার পরর রাজধানী ঢাকার সব থেকে কাছের এই বন্দর দিয়ে ব্যবসা বাণিজ্য এবং আমদানি রপ্তানি আগের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে।তিনি আরও বলেন,এই রেলপথ মোংলা বন্দরের সঙ্গে উত্তরাঞ্চলের পঞ্চগড় ও বাংলাবান্ধা হয়ে ভারতে শিলিগুড়িকে রেল নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত করবে।

এতে এই বন্দরের আমদানি রপ্তানি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে কন্টেইনার সার্ভিসও বাড়বে।বাগেরহাট-৩ (মোংলা- রামপাল) আসনের সংসদ সদস্য পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার বলেন,আমাদের পদ্মাসেতু চালু হয়েছে পাশাপাশি মোংলা বন্দরে রেলপথ যুক্ত হলে মোংলা বন্দরের গুরুত্ব বহুগুণ বাড়বে। সময় ও খরচ কমে যাওয়ায় ব্যবসায়ীরা এই বন্দর ব্যবহারে আরো আগ্রহী হয়ে উঠবেন।

বাংলা ম্যাগাজিন /এনএইচ

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button