আওয়ামী লীগজাতীয়ঢাকাবাংলাদেশবিএনপিরাজধানীরাজনীতি

বিএনপি’র আন্দোলন ঘিরে নতুন পরিকল্পনা করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ

বিএনপি’র আন্দোলন ও কর্মসূচির আলোকে রাজধানী ঘিরে নতুন পরিকল্পনা করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। রাজধানীতে থাকা ১২৯টি ওয়ার্ডে নতুন করে শক্তি সঞ্চয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সেখানে দলীয় কাউন্সিলর ও নেতাদের সমন্বয়ে অর্ধশত নেতাদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ হিসেবে প্রায় ৭ হাজার কর্মী-সমর্থকদের প্রস্তুত রাখা হচ্ছে। তাদের নির্দেশ দিয়ে বলা হয়েছে-নির্বাচনের আগ পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নিজ নিজ ওয়ার্ডে নেতাদের উপস্থিতিতে কর্মীরা সজাগ থাকবেন।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি যদি আন্দোলনের সঙ্গে সহিংসতার উপাদান যুক্ত করে, আগুন সন্ত্রাস নিয়ে মাঠে নামে তাহলে আমরা নীরব হয়ে বসে থাকবো, ঘরে বসে থাকবো, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা কি আঙ্গুল চুষবে, প্রতিরোধ করতে হবে।

সরকার বিরোধী আন্দোলনের চেষ্টা হলে তা প্রতিহত করতে হবে। এদিকে রাজধানীর প্রবেশমুখে অবস্থিত জেলার নেতাদেরও প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। রাজধানীতে আওয়ামী লীগের যে কোনো কর্মসূচিতে যেন কয়েক হাজার কর্মী ও সমর্থক তাৎক্ষণিকভাবে পাঠাতে পারে সে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

বিশেষ করে সাভার, আশুলিয়া, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগ নেতাদের কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কয়েকজন নেতা বলেন, রাজনৈতিকভাবে বিএনপি ও তাদের দোসরদের কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না। প্রতিবাদ করতে হবে। রাজপথে মোকাবিলা করা হবে।

আওয়ামী লীগের নেতারা বলেন, আওয়ামী লীগ রাজপথ থেকে ক্ষমতায় এসেছে। বিএনপি যেভাবে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে, রাজপথ মনে হয় আমরা ভুলে গেছি। আমরাও আছি। অচিরেই রাজপথে দেখতে পাবেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, মাঠে খেলা হবে, মোকাবিলা হবে, যার যা ইচ্ছা ফ্রি-স্টাইল বাংলাদেশে হতে দেবো না আমরা। আওয়ামী লীগ রাজপথ ছাড়েনি।

আওয়ামী লীগ যখন মাঠে নামবে, বিএনপি কর্পূরের মতো উবে যাবে। রাজধানীতে সাম্প্রতিক আন্দোলন প্রসঙ্গে দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ বলেন, পুলিশের ওপর যদি কেউ আক্রমণ করে তাহলে পুলিশ কী বসে থাকবে। আমরা আসলে রাজনীতিতে বিএনপিকে দেখতে চাই। আমরা আগামী নির্বাচনে সকল দলের অংশগ্রহণে অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চাই। সেই উদ্দেশ্যে নিয়ে আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলছেন যে, সবাইকে সুযোগ দেয়া হবে রাজনীতি করার জন্য।

রাজধানীর আশেপাশের জেলার নেতাদের কর্মী-সমর্থক নিয়ে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে আশুলিয়ায় বসবাসকারী ঢাকা জেলা উত্তর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ উজ্জল বলেন, রাজধানীতে যেকোনো কর্মসূচি পালনের জন্য কেন্দ্র থেকে আমাদের প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

নেতাদের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা প্রস্তুত রয়েছি।  দলের যেকোনো কর্মসূচিতে অংশ নেয়ার জন্য আশুলিয়া থেকে এক থেকে দেড় হাজার কর্মী-সমর্থক যেতে সক্ষম। এজন্য ২০  থেকে ২৫টি গাড়িও প্রস্তুত থাকে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নমূলক কাজের সঙ্গে জড়িত।

তাই এই সরকারকে যারা উৎখাত করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান সবসময় কঠোর থাকবে। সাভার আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, রাজধানীর কর্মসূচির জন্য আমাদের এখান থেকে তিন থেকে সাড়ে তিন হাজার কর্মী সমর্থক যেকোনো সময় রাজধানীতে যেতে পারবে।

কেন্দ্রীয় নেতারা আমাদের সে ধরনের নির্দেশনা দিয়ে রেখেছেন। একই চিত্র গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জেও। সেখানকার নেতারা বলেন, আন্দোলনের জন্য আওয়ামী লীগে নিবেদিত প্রাণ কর্মী-সমর্থকের অভাব নেই। তাই কেন্দ্র থেকে যখনই নির্দেশনা আসবে তখনই আমরা রাজধানীতে মুভ করতে পারবো।

কাজী জাফরউল্লাহ বলেন, ২০১৪ সালের কথা হয়তো সবারই মনে আছে। ১৫৪ জনকে চলন্ত বাসে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারা হয়েছে। এখন এটাই যদি তাদের আন্দোলনের মানে হয়, জনগণের মাল, সম্পত্তি আগুন দিয়ে নষ্ট করা হয় তাহলে একটা নির্বাচিত সরকার কিন্তু বসে বসে দেখতে পারবে না।যাদের দায়িত্ব অর্থাৎ নিরাপত্তা বাহিনীকে এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে।

আন্দোলনে রাজধানীতে আওয়ামী লীগের ভূমিকা প্রসঙ্গে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রিয়াজউদ্দিন রিয়াজ বলেন, কেন্দ্রীয় নেতারা আমাদের নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, রাজধানীতে বিএনপি ও তাদের দোসরদের আন্দোলনে কোনো ধরনের ছাড় দেয়া হবে না।

আগামীতে তাদেরকে রাজধানীর রাজপথে মোকাবিলা করা হবে। এজন্য ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৭৫টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতারা প্রস্তুত। তাদেরকে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নিজ নিজ ওয়ার্ডে সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে। প্রায় একই মন্তব্য করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের এক নেতা। তিনি বলেন, উত্তরের ৫৪টি ওয়ার্ডে আমাদের নেতাকর্র্মীরা সজাগ। কেন্দ্রীয় নেতাদের যেকোনো নির্দেশনা মানার জন্য তারা প্রস্তুত।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসকে

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button