জাতীয়বাংলাদেশবিএনপিরাজধানীরাজনীতি

আমরা আর শেখ হাসিনা সরকারকে দেখতে চাই নাঃবিএনপির মহাসচিব ফখরুল

আজ মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর খিলাগাঁওয়ের তিলপাপাড়া জোড়পুকুর মাঠের পাশে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির প্রতিবাদ সমাবেশে  বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, কথা বেশি নাই, কথা একটাই—আমরা আর শেখ হাসিনা সরকারকে দেখতে চাই না।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি, বিদ্যুতের লোডশেডিং, গণপরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধি, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি, ভোলা ও নারায়ণগঞ্জে দলীয় কর্মী হত্যা, দেশব্যাপী আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস নৈরাজ্যের প্রতিবাদ ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের অধীন খিলাগাঁও, সবুজবাগ ও মুগদা থানা বিএনপি এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।

সমাবেশে মির্জা ফখরুল বলেন, কথা বেশি নাই, কথা একটাই—আমরা কি আর শেখ হাসিনাকে দেখতে চাই? যারা আমাদের স্বাধীনতার আশা-আকাঙ্ক্ষা ধ্বংস করে দিয়েছে, যারা আমাদের সন্তানদের হত্যা করেছে, যারা আমাদের রুটি-রুজি বন্ধ করে দিয়েছে, যারা কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি মানুষের পেটের ভাত কেড়ে নিয়েছে, আমরা কি সেই সরকারকে আর দেখতে চাই।

মির্জা ফখরুল বলেন, তারা আমাদের সন্তানদের হত্যা করেছে, আমাদের রুটি-রুজি কেড়ে নিয়েছে। এখন আর কথা বলার সময় নাই। কাজ করতে হবে। কাজ এখন একটাই, সমগ্র বাংলাদেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। কারণ এই সরকার জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে। তারা আজকে আমাদের সকল অর্জনকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, এই সরকার আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। আমাদের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। বিভিন্ন মেগা প্রোজেক্টের নাম করে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে।শেখ হাসিনা ধরা পড়ে গেছে।

আমরা ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধ করেছিলাম। আমরা স্বপ্ন দেখেছিলাম একটা সুখী-সুন্দর বাংলাদেশ গড়ে তুলবো। আমাদের এখানে গণতন্ত্র থাকবে। আমরা কথা বলতে পারবো, সভা-সমাবেশ করতে পারবো। আমাদের সাধারণ মানুষকে ভাত-কাপড় দিতে পারবো। তারা আমাদের সেই স্বপ্নকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আজকে চাল-ডাল-তেলের দাম কমানোর জন্য আমরা আন্দোলন করছি। শেখ হাসিনা কী বলেছিলেন? দশ টাকা কেজি চাল দেবে, দিয়েছে? কৃষকদের বলেছিলেন, বিনা পয়সার সার দেবে, সেই সার এখন কৃষকরা পাচ্ছে না। সারের দাম তিনগুণ বেড়ে গেছে। বলেছিল ঘরে ঘরে চাকরি দেবে। সেই চাকরি কি আপনারা পেয়েছেন? বরং লাখ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েও হয় না, ওখানে আবার আওয়ামী লীগের একটা সিল লাগবে, তাই না?

তিনি বলেন, আমাদের পরিষ্কার কথা দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। যেসব বন্দিকে রাজনৈতিক কারণে আটক করে রেখেছে তাদের মুক্তি দিতে হবে। ৩৫ লাখ মানুষের মিথ্যা মামলা তুলে ফেলতে হবে। পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে। সংসদ বিলুপ্ত করে নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য একটা নির্বাচন করতে হবে। যার মধ্যে দিয়ে সংসদ গঠন হবে, সরকার গঠন হবে।

ফখরুল বলেন, আমি পাকিস্তানি আমলের কথা বললেই তারা আমাকে বলে, ‘আমি পাকিস্তানের দালাল’। পাকিস্তান আমলে চালের কি দাম ছিলো আর এখন হয়েছে? তখন জীবনযাত্রার কি ছিলো আর এখন কি হয়েছে? পাকিস্তানকে আমরা ছেড়েছি এই কারণে যে, তারা আমাদের শোষণ করতো। পাকিস্তান আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছিলো। আমরা তাদের সঙ্গে যুদ্ধ করে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছি। আর এরা (আওয়ামী লীগ) সেই আগের অবস্থায় দেশকে ফিরিয়ে এনেছে।

মহানগর দক্ষিণ বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক ইউনুস মৃধার সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান, দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম, চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, বিএনপি নেতা আবুল খায়ের ভূইয়া, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, আবদুস সালাম আজাদ, মীর সরাফত আলী সপু, রফিকুল আলম মজনু, আমিনুল হক, হাবিবুর রশীদ হাবিব, যুবদল নেতা সুলতান সালাউদ্দীন টুকু, মোনায়েম মুন্না, গোলাম মাওলা শাহীন, মহিলা দলের আফরোজা আব্বাস, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান প্রমুখ।

বাংলা ম্যাগাজিন /এমএ

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button