fbpx
প্রচ্ছদ জানা অজানা

শিশুর মানসিক চাপ দূর করতে যা করণীয়

0
শিশুর মানসিক চাপ দূর করতে যা করণীয়

পড়া যাবে: < 1 minute

লাইফস্টাইল ডেস্ক : আপনার সন্তান কি স্ট্রেসের শিকার? তা হলে ওকে একটু বাইরে হাঁটতে নিয়ে যান। প্রকৃতির সংস্পর্শে এলে বাচ্চাদের খুব তাড়াতাড়ি মন ভালো হয়ে যায়। এমনটাই দাবি হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সমীক্ষক দলের।

যে সব শিশুরা প্রকৃতির কাছাকাছি থাকে, তাদের মধ্যে দুশ্চিন্তা, হাইপার অ্যাক্টিভিটির সমস্যা কম। তাদের মধ্যে আচরণগত ও অনুভূতিগত সমস্যাও অনেক কম দেখা যায়। এ ধরনের শিশুরা অনেক বেশি সামাজিক হয়।

সম্প্রতি বেশ কিছু সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে প্রকৃতির মাঝে সময় কাটালে শিশুর স্বাস্থ্যেরও উন্নতি সম্ভব। স্কুলের পর শিশুদের কতটা প্রকৃতির কাছে নিয়ে যাবেন সেটা কিন্তু আরেক বার ভেবে দেখার সময় এসে গিয়েছে।

প্লস ওয়ান জার্নালে প্রকাশিক সমীক্ষার রিপোর্টে বলা হয়েছে, বহু পরিবারেরই হাতের কাছে একটুকরো সবুজ থাকলেও সন্তানদের তারা সেখানে নিয়ে জান না। অথচ এই ছোট্ট পদক্ষেপেই শিশুর মধ্যে ইতিবাচক পরিবর্তন আসতে পারে।

আরও পড়ুন:  ১৫টি লক্ষণ দেখলে করোনার আশঙ্কা করতে পারেন

ইউনিভার্সিটির স্কুল অফ বায়োলজিক্যাল সায়েন্সেসের তানজা সোবকো বলেন, ‘অনেক বাবা মা মনে করেন গাছপালা, মাটির মধ্যে নোংরা থাকে, এই ভাবনা পরে শিশুদের মধ্যেও সংক্রামিত হয়।’

অনেক সময় আবার সবুজ এলাকা যাতে নষ্ট না হয়ে যায় সে জন্য সোসাইটির তরফে সেখানে ‘দূরে থাকুন’, ‘স্পর্শ করবেন না’, এ ধরনের নোটিশবোর্ড টাঙানো থাকে।

সমীক্ষক দলের তৈরি ১৬টি প্রশ্নের মধ্যে থেকে শিশুর উপরে প্রকৃতির প্রভাব সম্পর্কে চারটি বিষয়ে সরাসরি জানা গিয়েছে। শিশুর সঙ্গে প্রকৃতির সম্পর্ক, শিশু প্রকৃতির মধ্যে থাকতে কতটা উপভোগ করে, প্রকৃতির জন্য শিশুর সহানুভূতি, প্রকৃতি সম্পর্কে শিশুর সচেতনতা ও দায়িত্ববোধ।

আরও পড়ুন:  আটকে পড়া সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশীদের ফিরিয়ে আনতে দাম্মাম টু ঢাকা বিশেষ ফ্লাইট ১৩ আগষ্ট।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @banglanewsmagazine আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।