জাতীয়রাজধানী

বিআরটিএ ভবন ও সেতু ভবন ভাঙতে হবে : মেয়র আতিক

বুধবার রাজধানী গুলশানে এক‌টি হো‌টে‌লে সিইউএস, ইউএন-হ্যাবিট্যাট, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের যৌথ আয়োজনে ‘নিম্ন আয়ের মানুষের আবাসন ও নাগরিক সুবিধাসমূহ: প্রেক্ষিত ঢাকা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।

আলোচনা সভায় মেয়র আতিক বলেন, ‘এয়ারপোর্ট সড়কে যে সেতু ভবন এখন আপনারা দেখছেন; সেখানে ছিল একটি সিটি ফরেস্ট। কেন এবং কাদের পরামর্শে এই ফরেস্ট নষ্ট করে সেখানে সেতু ভবন করা হলো, জানি না। সেতু ভবনের পাশে আগে কিছু গাছপালা থাকলেও পরে সেগুলো কেটে সেখানে বানানো হলো বিআরটিএ ভবন। সেদিন দেখলাম, বাকি গাছগুলো কাটা হচ্ছে। তাদের কাছে জানলাম, গাছ কেটে সেখানে নতুন আবাসন প্রকল্প করা হবে। পরে আমি সেটা বন্ধ করেছি।’

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘রাউজক নতুন ড্যাপ করেছে। আমরা দেখতে চাই, ড্যাপে সেতু ভবনের জায়গাকে কী হিসেবে দেখানো হয়েছে। সেটাকে যদি সিটি ফরেস্ট হিসেবে দেখানো হয়, তাহলে সেতু ভবন ও বিআরটিএ ভবন ভেঙে ফেলা হবে।’

এ সময় ডিএনসিসি মেয়র অভিযোগ করে বলেন, ‘আমরাই নিজেরাই নিজেদের প্রিয়, বসবাসের এই শহরকে শেষ করে দিচ্ছি। ড্যাপ কিছু দিন আগে প্রণয়ন করা হয়েছে। যার ফলাফল আমরা এখনই পাচ্ছি। প্যারিস পার্ক ঢাকা সিটির জন্য একটি ওপেন স্পেস। খোলামেলা জায়গা, শিশুদের খেলার জায়গা। অথচ ড্যাপে এই প্যারিস পার্কে ৩২টি প্লট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ৫২ কাঠা এই পার্কে কীভাবে ৩২টি প্লটে বরাদ্দ দেওয়া হলো? আমরা এসব কী করছি, কার জন্য; কার পরামর্শে করছি? আমরা আশা করি, নগরে কিছু করতে গেলে অবশ্যই যেন সিটি করপোরেশনের পরামর্শে করা হয়।’

এখন থে‌কে নগ‌রের কিছু কর‌তে হ‌লে সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের অনু‌মোদন নি‌তে হ‌বে বলে জা‌নান মেয়র। তিনি ব‌লেন, ‘নগরে অপরিকল্পিতভাবে স্থাপনা করা হচ্ছে। এগুলো কেন করা হচ্ছে। কার পরামর্শে হচ্ছে। নগরে কিছু করতে গেলে অবশ্যই সিটি করপোরেশনের অনুমতি নিতে হবে। সবুজ এলাকা ও উন্মুক্ত স্থান ধ্বংস করে কিছু করতে দেওয়া হবে না। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা ভাবতে হবে।’

‘যে‌কোনো কা‌জ দে‌শের স্বা‌র্থে ও দ‌শের স্বার্থে হ‌লে ডিএনসিসি মেয়র সা‌থে যোগ দেবেন বলে মন্তব্য করেন। তিনি এও বলেন, ‘য‌দি নি‌জের স্বা‌র্থে হ‌য় তাহ‌লে আমি আপনা‌দের সা‌থে নাই। সুন্দর নগরায়ন কর‌তে গে‌লে সবাইকে একস‌ঙ্গে কাজ কর‌তে হ‌বে। অন‌্যা‌য়ের প্রতিবাদ কর‌তে হ‌বে।’

মেয়র আতিক বলেন, ‘নদীর সীমানা নির্ধারণে যেভাবে আদালত থেকে আদেশ এসেছে, ঠিক সেভাবে ঢাকার খালগুলোর সীমানা নির্ধারণেও আদেশ প্রয়োজন। নদীর সীমানা নির্ধারণের আইন এবং খালের সীমানা নির্ধারণের আইনে রয়েছে ভিন্নতা। এ ক্ষেত্রে আইনের সংশোধন করা প্রয়োজন। নদীর মতো খালের সীমানা নির্ধারণে সিএস দাগ অনুযায়ী করতে হবে। এ ক্ষেত্রে মহানগর জরিপ অনুযায়ী নির্ধারণ করতে গেলে দেখা যাবে, সিএস জরিপে যে খাল ১০০ ফিট ছিল; সেটা মহানগরে আছে ১০ ফিট। তাই মহানগর জরিপ নয়, সিএস অনুযায়ী খালের সীমানা নির্ধারণ করতে আইনের সংশোধন করাটা খুব জরুরি।’

মেয়র আতিক বলেন, ‘গত দুই বছর ধরে ঢাকার খালগুলো সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর করেছে ওয়াসা। কিন্তু খালগুলো পরিদর্শনে গিয়ে দেখি সবই দখলে। আমার প্রশ্ন তাহলে এতদিন যাদের কাছে খালগুলো ছিল, তারা কী করেছেন? কেন তারা এসব খাল দখলের ব্যাপারে কাজ করলেন না? আপনারা খেয়াল করেছেন, ঢাকা সিটির তাপমাত্রা ভয়াবহভাবে বেড়ে গেছে। এ জন্য উত্তর সিটি করপোরেশন গাছ লাগানো ও ছাদবাগানকে উৎসাহিত করতে হাউস ট্যাক্সের ওপর ১০ শতাংশ ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। এখন মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিলে এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে। একই সঙ্গে যারা ভবনে রেইন ওয়াটার হারভেস্টিং করবে তাদেরও একই সুযোগ দেওয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার প‌ল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) নগর পরিকল্পনাবিদ মো. আশরাফুল ইসলাম ও ঢাকা উত্তর সি‌টি করপোরেশনের প্রধান নির্বা‌হী সে‌লিম রেজা বক্তব্য রাখেন।

সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজ, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ, ইউএন-হ্যাবিট্যাট এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প-ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) সম্মিলিত উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে আবাসনের এ বৈষম্য কমিয়ে আনার পরামর্শ দেন বক্তারা।

আলোচনায় অংশ নেওয়া নিম্ন আয়ের মানুষরা বলেন, আমরা বস্তিতে থাকলেও ঢাকার অর্থনীতিতে অংশগ্রহণ করছি। আমাদের জন্য খেলার মাঠ ও খোলা জায়গার দাবি জানাচ্ছি। আমাদের আবাসন সমস্যা কীভাবে হবে সেটা পরিষ্কার করা দরকার।

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button