এক্সক্লুসিভবাংলাদেশবিএনপিরাজনীতিসিলেট

বিএনপি’র বিভাগীয় সমাবেশকে কেন্দ্র করে সিলেটে গ্রেপ্তার ১৭ নেতাকর্মী, মামলা ৯টি

বিএনপি’র বিভাগীয় সমাবেশকে কেন্দ্র করে নানা ঘটনা ঘটেছে সিলেটে। এ সময় পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন ১৭ নেতাকর্মী। মামলা করা হয়েছে ৯টি। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি মামলা হয়েছে সিলেট জেলায় এবং গ্রেপ্তার সংখ্যাও বেশি।

গতকাল সিলেটে সমাবেশ পরবর্তী প্রেস ব্রিফিংয়ে বিএনপি’র তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে সিলেট বিভাগে দায়ের করা এসব মামলায় আসামির সংখ্যা প্রায় ১৪শ’। পুলিশ ও আওয়ামী লীগের কর্মীরা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে এসব মামলা করেছেন।

হবিগঞ্জে মামলায় বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সমবায় সম্পাদক জিকে গউছকে আসামি করেছে। এ ছাড়া নবীগঞ্জে গ্রেপ্তার হয়েছেন হবিগঞ্জ জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক শিহাব আহমদ চৌধুরী।গতকাল বিকালে সিলেট জেলা বিএনপি’র সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরী জানিয়েছেন- গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে সিলেট বিভাগে তাদের ১৯ জন নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। এখন তারা কারাগারে রয়েছেন।

বুধবার সিলেটের ওসমানীনগর ও গোয়ালাবাজারে বিএনপি’র সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও গুম হওয়া নেতা এম ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনার গাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। পরে উপজেলার দয়ামীরে একই ঘটনা ঘটে। দয়ামীরে পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছিল।

এ সময় পুলিশ ওই এলাকা থেকে যুবদল ও ছাত্রদলের দুই কর্মীকে আটক করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ওসমানীনগর থানায় ২০০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। আর ওই মামলায় আটক হওয়া দুই কর্মীকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

ওসমানীনগরে হামলার এবং পরবর্তীতে গ্রেপ্তারের বিষয়টি গত শনিবার গণসমাবেশে বক্তৃতাকালে উপস্থাপন করেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনা। তিনি অভিযোগ করেন- সমাবেশকে কেন্দ্র করে পুলিশ অনেককেই গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। অন্যায়ভাবে তাদের গ্রেপ্তার এবং মামলা দায়ের করা হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

সমাবেশ বানচাল করতে পুলিশের পক্ষ থেকে এসব মামলা করা হয় বলে অভিযোগ হবিগঞ্জ জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক শিহাব আহমদ চৌধুরীর। এ ছাড়া সমাবেশের আগের রাতে সিলেট জেলার বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে সিলেটমুখী নেতাকর্মীদের ফিরিয়ে দিয়েছে। পুলিশের এই কর্মকাণ্ড সিলেটবাসীকে ক্ষুব্ধ করেছে।

গত বুধবার কানাইঘাটে প্রচারণাকালে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে পুলিশ বিএনপি’র ৬ নেতাকর্মীকে আটক করে নিয়ে গিয়েছিল। এরমধ্যে উপজেলা পর্যায়ের কয়েকজন সিনিয়র নেতাও ছিলেন। পরে একজনকে রেখে বাকিদের ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় অন্তত দেড়শ’ নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা করে পুলিশ।

গণসমাবেশ শান্তিপূর্ণ হওয়ার কারণে সিলেটে বিএনপি’র নেতারা গতকাল দুপুরে একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এ সময় সমাবেশে সার্বিক সহযোগিতা করায় সিলেটবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান বিএনপি’র কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা।

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button