এক্সক্লুসিভবাংলাদেশবিএনপিরাজনীতিরাজশাহী

সমাবেশে যোগ দিতে রাজশাহীতে পৌঁছেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল

সমাবেশে যোগ দিতে  রাজশাহীতে পৌঁছেছেন  বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।  আজ সন্ধ্যায় রাজশাহী পৌঁছেই তিনি শহরের মাদ্রাসা মাঠে সমাবেশস্থলে  আসেন।আগামীকাল শনিবার রাজশাহী বিভাগের বিএনপির গণসমাবেশ হবে।

এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য  নজরুল ইসলাম, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, বিএনপি চেয়ারপার্সন উপদেষ্টা কাউন্সিল সদস্য মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপি নেতা তাইফুল ইসলাম টিপু, যুবদল সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, রাজশাহী মহানগর বিএনপি সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টন, যুবদল সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, বিএনপি নেতা আমিরুল ইসলাম খান আলীম, চন্দন রহমান, হেলেন জেরিন খান, আরিফা সুলতানা রুমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে  বলেন, শত বাধা উপেক্ষা করে এই শীতের মাঝে কষ্ট করে এই জালিম শাহী সরকারের পতন ঘটাতে আপনারা এখানে উপস্থিত হয়েছেন। এরজন্য দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তারুণ্যের অহংকার তারেক রহমানের পক্ষ থেকে আপনাদের অভিনন্দন জানাই। আজ আপনারা এত বাধা উপেক্ষা করে, সরকারের রক্তচক্ষু উপেক্ষা এবং দেশের গণতন্ত্র মুক্ত করতে যেভাবে একজোট হয়েছেন তা আমাদের আন্দোলনকে আরো শক্তিশালী করতে ভুমিকা রাখবে।

শুক্রবার বিকেল ৫টায় তিনি রাজশাহী শাহ মখদুম বিমানবন্দরে পৌঁছান। সেখানে বিএনপির নেতারা তাকে শুভেচ্ছা জানান। পরে সেখান থেকে তিনি রাজশাহীর কাজিহাটা এলাকার একটি হোটেলে উঠেন।

আগামীকাল রাজশাহী শহরের মাদরাসা মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। কিন্তু এর আগে পরিবহন মালিক সমিতি ধর্মঘট ডাকায় দুদিন হাতে রেখেই বিভিন্ন স্থান থেকে সমাবেশস্থলে আসতে শুরু করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। তারা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে স্লোগান দিতে দিতে সমাবেশস্থল মাদরাসা মাঠের পাশের কেন্দ্রীয় ঈদগাহসহ আশপাশের স্থানগুলোতে অবস্থান নিচ্ছে।

বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশের জন্য মঞ্চ প্রস্তুতের কাজ শেষ হয়েছে। শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় রাজশাহীর হাজী মুহম্মদ মুহসীন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মঞ্চ প্রস্তুতের কাজ শেষ হয়।প্রায় শতাধিক নেতা-কর্মী বসার জন্য মঞ্চে চেয়ার পাতা হয়েছে। অন্য বিভাগীয় সমাবেশের মতো রাজশাহীর এ মঞ্চেও দলটির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জন্য দুটি আসন ফাঁকা রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার ৮ শর্তে এ মাঠে সমাবেশ করার জন্য বিএনপিকে অনুমতি দেয় পুলিশ। শর্ত অনুযায়ী, শনিবার দুপুর ২টা থেকে ৫টার মধ্যে সমাবেশ শেষ করতে হবে। সমাবেশ শুরুর আগে মাঠে কাজ করা লোকজন ছাড়া অন্য কেউ ঢুকতে পারবে না।তাই মঞ্চ প্রস্তুত হলেও দূর-দূরান্ত থেকে আসা নেতা-কর্মীরা মাঠে ঢুকতে পারেননি। তারা আশ্রয় নিয়েছেন মাদ্রাসা মাঠের পাশে হযরত শাহমখদুম (র.) কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে।

বাংলা ম্যাগাজিনে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Flowers in Chaniaগুগল নিউজ-এ বাংলা ম্যাগাজিনের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।ক্লিক করুন এখানে

Related Articles

Back to top button