প্রচ্ছদ এক্সক্লুসিভ

জানা গেল যে কারণে বি`য়ে করেননি সাবেক মে`জর সি`নহা

34
পাওয়া গেল নীলিমা রিসোর্টে সিনহার রুমে পুলিশের অভিযানের সেই দিনের ভিডিও
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

পু`লিশের গু`লিতে নি`হত মে`জর (অব:) সি`নহা মোঃ রা`শেদ খা`নের মা না`সিমা আ`ক্তার বলেছেন, তার ছেলে সব সময় দেশের জন্য ভালো কিছু করার চেষ্টা করত।এছাড়াও দেশের প`র্যটন শি`ল্পের উ`ন্নয়নের জন্য সচেষ্ট ছিল। তাকে বিয়ের কথা বললে সি`নহা বলত আ`ম্মি এখনই বিয়ে করব না, বিয়ে করলে পি`ছুটান তৈরি হবে। পি`ছুটান তৈরি হলে দেশ বিদেশে ভ্র`মণ করে দেশের জন্য ভালো কিছু করতে বা`ধাগ্র`স্থ হতে হবে। সোমবার দুপুরে রা`জধানীর উ`ত্তরায় তার নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে সি`নহার মা এসব কথা বলেন।

আরও পড়ুনঃকরোনাভাইরাসের কারণে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা বাতিলের প্রস্তাব পাঠাচ্ছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। খবর বিবিসি বাংলার।বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাঠানোর কাজ চলছে বলে কর্মকর্তারা জাানিয়েছেন।প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আকরাম-আল-হোসেন বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, করোনাভাইরাসের কারণে এই বছর সিলেবাস শেষ করতে পারেনি শিক্ষার্থীরা। সেপ্টেম্বরে স্কুল খুলে দেয়া হলেও বাকি সময়ের মধ্যে সেটা পুরোপুরি শেষ করা যাবে না। তাই এই বছর এই দুইটি পরীক্ষা না নেয়ার বিষয়ে ভাবা হচ্ছে।”

আরও পড়ুন:  ‘ভবিষ্যতে ভাড়া বাড়িতে স্থাপিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপি প্রদান করা হবে না’

কিছুদিন আগে মুখ্যসচিবের সঙ্গে বৈঠকে এসব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তার ভিত্তিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সারসেংক্ষেপ পাঠানো হচ্ছে। তাঁর অনুমোদন পাওয়া গেলে এই বছর এই দুইট সমাপনী পরীক্ষা আর হবে না।” তিনি বলছেন।এদিকে জাতীয় দৈনিক যুগান্তরের আজকের সংখ্যায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা পরিস্থিতির কারণে এই দুই পরীক্ষা বাতিলের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। গত সপ্তাহে এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউসের উপস্থিতিতে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর ভিত্তিতে উভয় মন্ত্রণালয়ে পৃথক দুটি সারসংক্ষেপ তৈরি হচ্ছে। আগামী রবিবারের মধ্যে এটি অনুমোদনের জন্য পাঠানো হতে পারে। দুই মন্ত্রণালয়ের নির্ভরযোগ্য সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।জানা গেছে, সমাপনী পরীক্ষা না হলেও এই দুই স্তরের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা নেয়া হবে। এই ফলের ওপর ভিত্তি করে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের একটি অংশকে মেধাবৃত্তি দেয়ার চিন্তা আছে। শিক্ষাবর্ষ দীর্ঘ না করে বছরের মধ্যেই ছাত্রছাত্রীদের শ্রেণিভিত্তিক লেখাপড়া শেষ করার চিন্তাভাবনা চলছে।

আরও পড়ুন:  ১০০ টাকা ঘুষ না দেয়ায় ১৪ বছরের ছেলের ডিমের গাড়ি উল্টে দিল

সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরের মধ্যে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া সম্ভব হলে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ডিসেম্বরে বার্ষিক পরীক্ষা নেয়া হবে।আর ডিসেম্বরের মধ্যে তা সম্ভব না হলে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণিতে ‘অটো-পাস’ দিয়ে তুলে দেয়া হবে। এই উভয় ক্ষেত্রেই পাঠ্যবই বা সিলেবাসের যে অংশটুকু পড়ানো সম্ভব হবে

না তার অত্যাবশ্যকীয় পাঠ পরের শ্রেণিতে দেয়া হবে। এজন্য জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) ‘কারিকুলাম ম্যাপিং’ করে দেবে। এ লক্ষ্যেই কাল বুধবার এনসিটিবিতে কারিকুলাম বিশেষজ্ঞদের বৈঠক শুরু হচ্ছে। এছাড়া কয়েকদিন ধরে এ নিয়ে ময়মনসিংহে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমিতে (নেপ) বিশেষজ্ঞদের বৈঠক চলছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 6
    Shares