সারা খুলনা অঞ্চলের খবর

23
সারা খুলনা অঞ্চলের খবর
পড়া যাবে: 22 মিনিটে

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক বরখাস্ত

যশোর প্রতিনিধি  

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে নির্যাতনে তিন কিশোরের মৃত্যুর ঘটনায় কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক আব্দুল্লাহ আল মাসুদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে তিন সদস্য বিশিষ্ট আরও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী শুক্রবার (১৪ আগস্ট) বিকেলে তিন সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটি গঠন করে দেন। যশোরের জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটির প্রধান করা হয়েছে যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আবুল লাইছকে। এছাড়াও সমাজসেবা অধিদফতরের যশোরের উপপরিচালক অসিত কুমার সাহাকে সদস্য সচিব এবং জেলা পুলিশ সুপারের একজন প্রতিনিধি যিনি এএসপি পদমর্যাদার নিচে নন তাকে সদস্য করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার বিকেলে সমাজসেবা অধিদফতর দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে বিজ্ঞপ্তি জারি করে। ওই কমিটির প্রধান করা হয় সমাজসেবা অধিদফতরের পরিচালক (প্রতিষ্ঠান) সৈয়দ মোহাম্মাদ নুরুল বসিরকে। তার সঙ্গে তদন্ত কাজে সহায়তা করবেন উপপরিচালক (প্রতিষ্ঠান-২) এসএম মাহমুদুল্লাহ। আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে এ কমিটিকে মহাপরিচালকের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে নির্যাতনে তিন কিশোর নিহত হয়। এ সময় আহত হয় অন্তত ১৪ জন। আহতদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়কসহ ১০ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে যশোরের কোতোয়ালি থানায় মামলা করেছেন এ ঘটনায় নিহত পারভেজ হাসান রাব্বির বাবা রোকা মিয়া।

করোনা পরিস্থিতিতে ভারত-বাংলাদেশ পাসপোর্টধারী যাত্রীদের যাতায়াতের ক্ষেত্রে শর্তাবলী আরোপ করেছে বেনাপোল ইমিগ্রেশন

বেনাপোল প্রতিনিধি

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে দু’দেশের মধ্যে পাসপোর্টধারী যাত্রীদের যাতায়াতে বেশ কিছু শর্ত আরোপ করেছে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ। শুক্রুবার সকালে নির্দেশনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ওসি মহাসিন খান।

ইমিগ্রেশনের ওসি মহাসিন খান জানান, বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীরা করোনা পরিস্থিতির মধ্যে ব্যবসা, চিকিৎসা বা ভ্রমণে ভারতে যেতে চাইলে ভারতীয় হাই কমিশনারের অনুমতি পত্র থাকতে হবে। সেই সাথে লাগবে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট সহ ২০২০ সালের পহেলা জুলাইয়ের পর ইস্যুকৃত ভিসা। ভারতীয় পাসপোর্টধারী যাত্রীদের বাংলাদেশ আগমনের ক্ষেত্রে লাগবে হালনাগাদ ভিসা ও পাসপোর্ট। এছাড়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পত্র এবং ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট। বাংলাদেশে আটকে পড়া ভারতীয় যাত্রীরা স্বদেশ ফিরতে প্রয়োজন হবে মেয়াদযুক্ত পাসপোর্ট ও ভিসা নবায়ন ভারতীয় হাইকমিশনারের অনুমতি পত্র এবং ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট। করোনাভাইরাসের সংক্রমণে ভারত সরকারের নেওয়া পদক্ষেপে গত ১৩ মার্চ থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রীদের প্রবেশ বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে আবার লকডাউনে বাংলাদেশে অবস্থানরত ভারতীয় নাগরিকদের দেশে ফেরার পথ বন্ধ হয়ে যায়। ২২ মার্চ থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে রেল ও স্থলপথে আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ করে দেয়া হয়। বর্তমানে এ পথে রেল ও স্থলপথে আমদানি রফতানি বাণিজ্য সচল হলেও দুই দেশের মধ্যে যাত্রী যাতায়াত এখনও বন্ধ রয়েছে। বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন ওসি মহাসিন খান আরো জানান, বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমণ, ভারতীয়দের বাংলাদেশ ভ্রমণ বা বাংলাদেশে আটকে পড়া ভারতীয়দের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র থাকলে তারা কোন বাধা ছাড়াই যাতায়াত করতে পারবেন।

আশাশুনিতে দু’গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুই পুলিশসহ আহত-১০,

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরার আশাশুনির খাজরা ইউনিয়নের বর্তমান ও সাবেক চেয়াম্যানের দু’গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুই পুলিশসহ কমপক্ষে ১০জন আহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার রাতে খাজরা ইউনিয়নের গদাইপুরে এ ঘটনাটি ঘটে। এদিকে, এ ঘটনায় পুলিশের এস.আই জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে ২২ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরো ১০০/১৫০ জনের নামে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, গদাইপুর গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে গোলাম কিবরিয়া (৩৫) ও একই গ্রামের গোলাম রব্বানীর ছেলে মফিজুল ইসলাম (৩৮)।

আহত দুই পুলিশ সদস্যরা হলেন, এস আই জাহাঙ্গীর ও ওসির ড্রাইভার শরিফুল ইসলাম। এরমধ্যে গুরুতর আহত শরিফুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম কবির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার খাজরা ইউনিয়নের গদাইপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন একটি চায়ের দোকানে বসে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমান চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম ও সাবেক চেয়ারম্যান রুহুল কুদ্দুস সমর্থকদের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে এ সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এতে ওয়ায়েছ কুরনী, তুহিন বাবু, রফিকুল ইসলাম, সোহাগ, সাব্বীর হোসেনসহ দু’পক্ষের কমপক্ষে ১০জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনা স্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এরপর দূর্বৃত্তরা হঠাৎ পুলিশের উপর বিনা উস্কানিতে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় পুলিশের গাড়িতে হামলা চালায় তারা। এতে আহত হন পুলিশের এসআই জাহাঙ্গীর ও ওসির ড্রাইভার শরিফুল ইসলাম। একই সাথে ভাংচুর করা হয় পুলিশের গাড়িটি। গুরুতর আহত পুলিশ সদস্য শরিফুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গোলাম কিবরিয়া ও মফিজুলকে গ্রেপ্তার করেন। ওসি আরো জানান, এ ঘটনায় এস.আই জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে ২২ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরো ১০০/১৫০ জনের নামে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সেখানে এখনও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে এবং পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এদিকে, সংঘর্ষে আহতরা গ্রেপ্তার এড়াতে বিভিন্ন বেসরকারী হাসপাতালে গোপনে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য ঃ খাজরা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ ডালিম ও তার ফুপাতো ভাই সাবেক চেয়ারম্যান রুহুল কুদ্দুস সমর্থক গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিনের সংঘর্ষ, হত্যা, হামলা-মামলায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

যুব ও ছাত্র ঐক্য পরিষদের নিন্দা

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ  পূজা উদযাপন পরিষদের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ যুব ঐক্য পরিষদের সাবেক সভাপতি  নির্মল চ্যাটার্জীর পরিবারের উপর মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, মোঃ জাফর মোল্লা, ফরিদুজ্জামান মোল্লা, ফিরোজ মোল্লা, মিজানুর রহমান, সর্ব পিং- মৃত ফজিয়ার রহমান, আরমান মোল্লা, ফরিদ মোল্লা,  অনার্স মোল্লা, সর্ব পিং মোস্তাফিজির রহমান বাবুল, রেজাউল ইসলাম, পিং আঃ ওয়াব, মিরাজ শেখ, পিং আলতাফ শেখ উপরিউক্ত সবাই মিলে জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধির সামনে  হামলা করা হয়। নির্মল চ্যাটার্জীর ভাই বাবুল চ্যাটার্জী ও সুকান্ত চক্রবর্তী কে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে বেদম মারধর করে অকথ্য গালিগালাজ এবং দেশ ত্যাগের হুমকি প্রদান করে সেখানে উপস্থিত অন্যদের সহযোগিতায় মুমুর্ষ অবস্থায় মাগুরা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ বর্তমানে বাবুল চ্যাটার্জী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। নির্মল চ্যাটার্জীর পরিবারের উপর সাম্প্রদায়িক হামলায়  তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ যুব ঐক্য পরিষদ  ও বাংলাদেশ ছাত্র ঐক্য পরিষদ খুলনা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন বাংলাদেশ যুব ঐক্য পরিষদ, খুলনা জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি স্বপন রায়, সাধারণ সম্পাদক অনিমেষ সরকার রিন্টু, বিধান বিশ্বাস, ছাত্র ঐক্য পরিষদ কেন্দ্র কমিটির সদস্য ও জেলা শাখার আহবায়ক কানাই মন্ডল, সদস্য সচিব অভিজিৎ সরকার  রাহুল, বিপুল চৌধুরী, সুমন বিশ্বাস, জ্যোতি প্রকাশ পাইক, বাপ্পি রায় প্রমূখ।

অফিস পিয়নের এত দাপট!

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের পিয়ন হাবিবুর রহমান। হুমকি-ধমকিতে তিনি প্রতিনিয়ত পরাস্ত করেন ওই অফিসের কর্মচারী থেকে শুরু করে কর্মকর্তা পর্যন্ত। তার মতের বিরুদ্ধে কিছু ঘটলেই অফিস থেকে বের করে দেওয়া কিংবা প্রাণহানির হুমকিও দেন। তার ক্রমাগত হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। অফিসেও আসতে রাজি হচ্ছেন না অনেকে। কর্মচারীরা কর্মকর্তাদের কাছে কোনোকিছু নিয়ে নালিশ করলেও ক্ষিপ্ত হন তিনি। কর্মকর্তাদের লাথি দিয়ে অফিস থেকে বের করে দেবেন এবং এরপরে অফিসে এলে গুলি করে মারবেন বলে হুমকি দেন। গুলি করে মারলেও তার কিছুই হবে না জানিয়ে চলেন বুক ফুলিয়ে। অফিসে এহেন গু-ামি আচরণ করা হাবিবুর রহমান নিজেকে শেখ পরিবারের বংশধর বলে পরিচয় দেন। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে তথ্য অফিসের এক কর্মচারীর ছেলের চাকরি দেওয়ার নাম করে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। অফিসের এক সহকারীকে বিসিএসে কনফার্ম করার জন্যও টাকার প্রস্তাব দেন। এছাড়া অন্য কর্মচারীদের ছেলেমেয়ের চাকরি দেওয়ার নামে বিভিন্ন সময়ে টাকার প্রস্তাব দিয়ে আসছেন হাবিবুর রহমান। চতুর্থ শ্রেণির একজন কর্মচারী হয়েও হাবিবুর রহমান নিজেকে ক্ষমতাসীন দলের নেতা পরিচয় দিয়ে কর্মকর্তাদের উপরও খবরদারি করেন। খুলনা অফিসে যোগদানের আগে ঢাকায় কর্মরত অবস্থায় হাবিবুর রহমানের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালায় অসদাচরণের অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ২০১৭ সালের ৪ ডিসেম্বর চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। এদিকে বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) খুলনা মহানগরীর পিটিআই মোড়ের খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের অভ্যন্তরীণ প্রশিক্ষণ শুরুর প্রাক্কালে হাবিবুর রহমান তার মোবাইলে নেটওয়ার্ক সংযোগ না পাওয়া নিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এক পর্যায়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অফিসের বাইরের কাকে যেন চাপাতি নিয়ে আসতে বলেন এবং উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল, সহকারী তথ্য অফিসার মো. আতিকুর রহমান, টেলেক্স অপারেটর মো. মিজানুর রহমানসহ সবাইকে কোপাবেন বলে হুমকি দেন।

তার হুমকির মধ্যে ‘তোরা সবাই রাজাকার, তোরা বাইরে বের হ’ সবকটাকে কোপাবো’ কথাটি বারবার বলেন। বাকবিত-ার এক পর্যায়ে উত্তেজিত অবস্থায় মিজানের গায়ে হাত তোলেন এবং কিল-ঘুষি দেন। তখন উপস্থিত কর্মচারীরা তার রোষানল থেকে নিরাপদ থাকার উদ্দেশ্যে তাকে অফিস থেকে বের করে দিয়ে গেটে তালা লাগিয়ে দিতে বাধ্য হন। তারপর বাইরে থেকে প্রধান সহকারীর দায়িত্ব পালনরত মো. জাকির হোসেনকে লক্ষ্য করে বলেন, ‘তুই অভিযোগ জানিয়ে চিঠি লিখলে তোর হাতের আঙুল কেটে ফেলবো’। অনেকক্ষণ পর্যন্ত উচ্চৈঃস্বরে সবাইকে লক্ষ্য করে তিনি আরও বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল ভাষায় গালাগালি দেন। পুরো ঘটনাটি অফিসের একজন গোপনে ভিডিও করে ফেসবুকে ছেড়ে দেন। যা মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। একজন অফিস সহায়কের এ ধরনের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের প্রতিবাদ ও তার শাস্তির দাবি জানান অনেকে। জানা যায়, ২০১৯ সালের খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসে অফিস সহায়ক পদে হাবিবুর রহমান যোগ নেন। তারপর থেকে বিভিন্ন সময়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে অহেতুক কারণে নিয়মিত অসদাচারণ করে আসছেন। হাবিবুর রহমান মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার সিমাখালীর ছয়ঘরিয়া গ্রামের মৃত কুটি মিয়ার ছেলে। এ বিষয়ে মৌখিক ও লিখিতভাবে উপপ্রধান তথ্য অফিসারকে জানানো হয়েছে। তার ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের মাত্রা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে এবং বিষয়টি অফিসের নিয়মিত কার্যক্রমের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলছে।  তিনি বিভিন্ন সময়ে মন্ত্রী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের প্রভাব দেখিয়ে অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বদলিসহ বিভিন্ন হুমকি দেন।         

খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিস যে ভাড়া ভবনে অবস্থিত তার উপরের তলায় থাকা আনসার-ভিডিপি ব্যাংকের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সেবাগ্রহীতাদের কাছে এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এ অফিসের মর্যাদা বিশেষভাবে ক্ষুণ্ন হচ্ছে। যা একটি সরকারি অফিসের জন্য মোটেই কাম্য নয়। খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল বলেন, হাবিবুর রহমান খুলনা অফিসে যোগদানের আগে ঢাকা অফিসে থাকাকালে দু’বার বরখাস্ত করা হয়। শর্তসাপেক্ষে তাকে খুলনা অফিসে বদলি করা হয়েছে। কিন্তু তিনি খুলনা অফিসে আসার পর থেকে সবার সঙ্গে অসৈজন্যমূলক আচরণ শুরু করেন। শান্তিপূর্ণ অফিসে অশান্তি তৈরি করেন। সবশেষ বৃহস্পতিবার অফিসের ভিতরে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে যে আচরণ করেছেন তা ঢাকা সদর দপ্তরে জানিয়েছি। তথ্য অধিদপ্তর চূড়ান্তভাবে একবার তাকে বরখাস্ত করে। পরে আদালতে আপিলের মাধ্যমে মন্ত্রণালয় অফিসের শৃঙ্খলাভঙ্গ ও অসাদারচরণ না করার শর্তে তাকে পুনর্বহাল করা হয়। এসব বিষয়ে হাবিবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য সাইফুর জামান শেখর আমাকে চাকরি দিয়েছেন। ঢাকা অফিসে এক নারী আমার সঙ্গে প্রতারণা করে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে আমাকে বরখাস্ত করা হয়। পরে আপিল করে আমি চাকরি ফিরে পাই। খুলনা অফিসের আমি ছাড়া সবাই জামায়াত-শিবিরের। তারা প্রতিনিয়ত আমাকে মানসিকভাবে টর্চার করে। তারা সবকিছু থেকে আমাকে বঞ্চিত করে। আমার ঘরে বউ নেই। দু’টি বাচ্চা নিয়ে আমি খুব কষ্টে আছি।

আপনি কোন সূত্রে শেখ বংশের লোক আপনার বাবার তো মিয়া বংশ, জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার বাবা প্রথম বিয়ে করছিলেন শেখ বংশে। যে কারণে আমরা শেখ বংশের। বিষয়টি আপনি খতিয়ে দেখতে পারেন।

মণিরামপুরে কিশোরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের মণিরামপুরে ওমর ফারুক (১৫) নামে এক কিশোরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছেন স্বজনরা। শুক্রবার (১৪ আগষ্ট) সকালে উপজেলার হানুয়ার গ্রামে বাড়ির অদূরে একটি খুপরি ঘর থেকে তার লাশ উদ্ধার হয়। ওই ঘরে চালের সাথে রশি জড়িয়ে সে আত্মহত্যা করেছে বলে স্বজনদের দাবি। মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হতে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। ওমর ফারুক ওই গ্রামের মৃত সমির দফাদারের ছেলে। সে ফার্নিসারের কাজ করত। ওমর ফারুক মানসিক বিকারগ্রস্থ ছিল বলে পরিবারটি জানিয়েছে। এই ঘটনায় মণিরামপুর থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। রাজগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক শাহজাহান আহমেদ স্বজনদের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ওমর ফারুকের মানসিক সমস্যা ছিল। প্রায়ই সে ঘরের জিনিসপত্র ভাংচুর করত এবং হাতে একটি রশি নিয়ে ঘোরাফেরা করত। বৃহস্পতিবার রাতের খাবার সেরে একটার দিকে ঘুমাতে যায় সে। সকালে আর তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে ভোর ছয়টার দিকে বাড়ির অদূরে একটি খুপরি ঘর তাকে ঝুলতে দেখেন স্বজনরা।

শাহজাহান আহমেদ বলেন, ওমর ফারুক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে স্বজনরা জানিয়েছে। মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হতে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মানব সভ্যতার ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা ছিলো একটি কলংকিত অধ্যায়: এস এম কামাল

খবর বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, মোস্তাক, জিয়া ও তাহের ঠাকুরের ষড়যন্ত্রে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিলো। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর মেধাবী সদস্যদের নির্বিচারে হত্যা করেছিলো মোস্তাক জিয়া তাহের গংয়েরা। মানব সভ্যতার ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা ছিলো একটি কলংকিত অধ্যায়। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সারাটি জীবন বাঙালি জাতির মুক্তি ও কল্যানে রাজনীতি করে গেছেন। বাংলার মানুষে কল্যানে রাজনীতি করতে গিয়ে ১৪টি বছর কারাবরণ করেছেন। বঙ্গবন্ধুকে ২ বার হত্যার চক্রান্ত করে ষড়যন্ত্রকারীরা ব্যর্থ হয়েছিলো। কিন্তু স্বাধীনতার পরে পাকিস্তানের গুপ্তচরেরা আওয়ামী লীগের ছদ্মবেশে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে সমর্থ হয়েছিলো। ঠিক একই ভাবে আজ বঙ্গবন্ধু’র সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ১৯ বার হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালানো হয়েছে। আল্লাহপাকের অশেষ কৃপায় তিনি বেঁচে গিয়ে দেশ ও জাতির উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। আর দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্থ করতে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যু ও মাদক ব্যবসায়ীরা অত্যন্ত সুকৌশলে দলে অনুপ্রবেশ করছে। এদেরকে চিহ্নিত করে দল থেকে বিদায় করতে হবে। একই সাথে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে যারা অন্তরে ধারন করে তাদের নিয়ে নতুন করে যাত্রা শুরু করতে হবে।

শুক্রবার বিকাল ৫টায় দলীয় কার্যালয়ে সদর থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। সদর থানা আওয়ামী লীগ ও জেলা আইনজীবী পরিষদের সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর লুৎফুন নেছা লুৎফা, জেলা ছাত্র লীগের সভাপতি শেখ মো. আবু হানিফ, সাবেক উপ কমিটির সম্পাদক শেখ মো. ফারুক হাসান হিটলু, সদর থানা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূরীনা রহমান বিউটি, জেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাড. জেসমিন পারভীন জলি, খুলনা মহানগর ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল।

এসময়ে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা নুর ইসলাম বন্দ, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, শ্যামল সিংহ রায়, কাউন্সিলর জেড এ মাহমুদ ডন, এ্যাড. খন্দকার মজিবর রহমান, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, বিরেন্দ্র নাথ ঘোষ, হাফেজ মো. শামীম, মাকসুদ আলম খাজা, এ্যাড. আব্দুল লতিফ, মো. সফিকুর রহমান পলাশ, এ্যাড. সেলিনা আক্তার পিয়া, মঈনুল ইসলাম নাসির, জিয়াউল আলম মন্টু, ফেরদৌস হোসেন লাবু, আব্দুল হাই পলাশ, এ্যাড. শেখ ফারুক হোসেন, আতাউর রহমান শিকদার রাজু, এমরানুল হক বাবু, শেখ এশারুল হক, নজরুল ইসলাম তালুকদার, মো. শিহাব উদ্দিন, এ্যাড. শামীম মোশাররফ, সমীর কৃষ্ণ হীরা, আযম খান, শেখ আব্দুল কাদের, আউয়াল হোসেন ছোটন, আব্দুর রহীম বাবু, শেখ হারুন মানু, শেখ আব্দুল কাদের, নজরুল ইসলাম দুলু, অভিজিৎ চক্রবর্তী দেবু, মো. রিয়াজ হোসেন, কাজী নজরুল ইসলাম, ইলিয়াছ হোসেন লাবু, মো. শাহীন আলম, মাহামুদুর রহমান রাজেশ, ইয়াসিন আরাফাত, দিদারুল আলম, চিন্ময় মন্ডল প্রমুখ।

আরও পড়ুন:  ঝিনাইদহে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ৫ হাজার তাল বীজ রোপন শুরু

আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধু সহ ১৫ আগস্টে নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

চুরি হয়ে যাওয়া মাছ ধরা ঘুনি সনাক্ত করতে গিয়ে এক যুবক নিহত

তেরখাদা প্রতিনিধি

গতকাল সকাল অনুমান ৭ টায় তেরখাদা উপজেলার পুরাতন জয়সেনা গ্রামের মৃত্যু লুৎফার মোল্যার পুত্র জনি মোল্যা ৩০ তার হারানো ঘুনি চোর সনাক্তক করতে গিয়ে চোর সিন্ডিকেট এর হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত হয়েছে। পুলিশ ও ভূক্তভোগী সুত্রে জানা যায় নিহত জনি মোল্যার মাছ ধরা ঘুনি একই গ্রামের বাশার মোল্যার পুত্র হাফিজ মোল্যা চুরি করলে তাকে ঘুনি সহ হাতে নাতে ধরে এনে এলাকাবাসীর কাছে বিচার চাইলে চোর পক্ষ খোরশেদ মোল্যা, নাসির মোল্যা, সাহেদ মোল্যা, নাহিদ মোল্যা গং উত্তেজিত হয়ে ধারালো অস্ত্র (হাসুয়া) দিয়ে জনি মোল্যাকে কোপ দিলে জনি মোল্যা ঘটনাস্থলে নিহত হয় এবং উভয় পক্ষকে গোলমাল থেকে বিরত থাকার জন্য খায়ের মোল্যা ৫৫ এগিয়ে এলে খোরশেদ গং তাকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুত্বর আহত করে। এড়াছা নিহতে ভাই মাসুদকেও চোরপক্ষ মাথায় কুপিয়ে গুরত্বর আহত করে। তাৎক্ষনি আহতদের তেরখাদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয় এবং নিহতের লাশ এস, আই নাজমুল হক সুরত হাল রিপোর্ট তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য খুলনা মর্গে পাঠায়। এঘটনায় থানার তদন্ত কর্মকর্তা স্বপন কুমার রায় ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিবেশ নিয়ন্ত্রনে আনে এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে খুলনা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস, এম রাজু আহম্মেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন সহ দোষী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনার জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান। এঘটনায় ফুরাদ মোল্যার স্ত্রী মারুফা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানা হেফাজতে রাখা হয়। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোন আসামী গ্রেফতার হয়নি। মামলার প্রস্তুতি চলছে।অপরদিকে নিহতর লাস ময়না তদন্ত শেষে মাগরিবের নামাজ বাদ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পূর্ন করা হয়।

পুলিশ পরিচয়ে অর্থ আদায়কালে দুইজন আটক

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার চুনখোলা বাজারে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে নানা অজুহাতে অর্থ আদায়কালে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চুনখোলা বাজার থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন, গোপালগঞ্জ জেলা সদরের উদয়ন রোডের রিফা মোল্লা (২৩) ও একই এলাকার অনিমেশ দত্ত (৩০)। চুনখোলা ইউপি চেয়ারম্যান মুন্সি তানজিল হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চুনখোলা বাজারে এসে ওই দুই যুবক নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে মাস্ক না পরার কারণে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে জরিমানা আদায় শুরু করেন। বিষয়টি সন্দেহ হলে স্থানীয় চুনখোলা পুলিশ ক্যাম্পে গোপনে খবর দিলে ক্যাম্প পুলিশ তাদের আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায়। এর আগেও এখানে পুলিশ পরিচয়ে এধরনের ঘটনা হয়েছে। চুনখোলা ক্যাম্পের আইসি এসআই আনন্দ প্রসাদ চৌধুরী জানান, ডিবি পুলিশ পরিচয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করাকালে তাদের আটক করে করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের আমলেই ভাতাভোগীরা শতভাগ আওতায় আসবে: এ্যাড. মিলন এমপি

মোড়েলগঞ্জ প্রতিনিধি

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতা বই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে স্থানীয় সংসদ সদস্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য এ্যাডভোকেট আমিরুল আলম মিলন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের আমলেই ভাতাভোগীরা শতভাগের আওতায় আসবে। শুক্রবার দুপুরে ইউনিয়নের পলিট্রিক্স এলাকায় আব্দুল লতিফ ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রে ভাতা বই বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সহকারি কমিশনার(ভূমি) রঞ্জন চন্দ্র দে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএমদাদুল হক, সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো. রায়হান কবীর, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাড. তাজিনুর রহমান পলাশ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক হাফিজুর রহমান সহ স্থানীয় বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। এ সময় প্রধান অতিথি এ্যাড. মিলন আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসলে গরিব মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটে। সরকারের সামাজিক বেষ্টনি উন্নয়ন প্রকল্পের বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, মাতৃত্বকালিন ভাতাসহ সকল সুবিধাভোগীদের প্রতিটি উপজেলায় পর্যায়ক্রমে শতভাগ ভাতার আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য, এ উপজেলার ২৮ হাজার ৯০ জন সুবিধাভোগী ভাতা পেয়ে আসছেন। নতুনভাবে ৫ হাজার ৬শ’ ৯৮ জন তালিকার আওতাভূক্ত হয়ে বই পেয়েছেন। ইতোমধ্যে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে ২ হাজার সুবিধাভোগী ভাতা পাচ্ছেন। নতুনভাবে ৩৩১ জন সুবিধাভোগী বই পেয়েছেন।

নিম্নমানের খাবার সরবরাহ ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অমানবি আচারনের অভিযোগ যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে

স্টাফ রিপোর্টার

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে শিশু কিশোরদের সরবরাহকৃত খাবার ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আচারন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কেন্দ্রে অবস্থানকৃত শিশু কিশোর ও তাদের অভিভাবকরা। এমনকি বাড়ী থেকে খাবারও দিতে দেওয়া হয় না তাদের। নাগরিক সমাজ বলছে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের আচারন ও পরিবেশ শিশু কিশোরদের মানসিকভাবে অপরাধী করে তোলে। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সমাজ সেবা কর্মকর্তা। আর ধারন ক্ষমতার প্রায় দ্বিগুন শিশু কিশোর অবস্থান করছে এখানে।

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে শিশু কিশোরদের সরবরাহকৃত খাবারের মান ভাল নয়। আর শিশু কিশোরদের সাথে ব্যবহার করা হয় দাগী আসামীদের মতন। অভিযোগ শিশু কিশোরদের। চুয়াডাঙ্গা থেকে হত্যা মামলার আসামী কিশোর মোঃ পাবেল জানান, খাবার ঠিক মত দেয় না। মাঝে মাঝে ভাল খাবার দিলেও বেশির ভাগ সময় খারাপ খাবার দেয়। নোয়াখালি থেকে আসা মোঃ জাবেদ হোসেন হত্যা মামলার আসামী জানান, এখানে ০২ বছর ধরে আছি। কুরবানিতে আমাদের খারাপ মাংস খাওয়ানো হয়েছে। ঠিকমত খেতে দেয় না। বাড়ি থেকে খাবার আসলেও দেয় না। অপর আসামী যশোরের মোঃ আব্দুল্লাহ আল মাহিম জানান, আমরাতো আসামী আমাদের সাথে তারা আসামীর মত আচারন করে। একই অভিযোগ অভিভাবকদের। বাড়ী থেকে আনা খাবারও দিতে দেওয়া হয় না শিশু কিশোরদের।

শিশু কেন্দ্রের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার আসামী আনিসুর রহমান পোদ্দার এর বাবা আব্দুর রহমান জানান, গত বৃহষ্পতিবার এখানে তিন শিশু মারা গেছেন। আমরা এখনও আমাদের সন্তানদের সাথে দেখা করতে পারি নাই। গত ঈদের আগে তার সাথে দেখা করলে সে বরে এখানে ভাল খাবার দেয় না। খারাপ ব্যবহার করে। সে এখানে আর থাকবে না।

জয়পুরহাট থেকে আসা আরো একজন অভিভাবক একই কথা বলেন। তিনি বলেন, তার ছেলেও এখানে থাকতে চায় না। এখানে সমস্যা বলেই সে আর এখানে থাকতে চায় না। নাগকির সমাজের দাবি শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের পরিবেশ ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আচারণ শিশু কিশোরদের মানসিকভাবে অপরাধী করে তোলে, বলছেন যশোরের সনাকের এই নির্বাহী সদস্য জিল্লুর রহমান ভিটু।

তবে এসকল অভিযোগ মানতে নারাজ যশোরের সমাজ সেবা অধিদপ্তরে এই কর্মকর্তার। তার দাবি এখানে শিশু-কিশোররা পরিবারের মত থাকে। যশোর সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ পরিচালক অসিত কুমার সাহা আরো জানান, আমি এটি নিয়মিত পরিদর্শন করি। এখানে কেউ আমাকে এই অভিযোগ করিনি। যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের ধারন ১৫০ এর বিপরীতে শিশু কিশোর রয়েছে ২৭৭ জন।

সমাজের অপরাধ কর্মে জড়িয়ে যাওয়া শিশু কিশোরদের সংশোধনের জন্য নিয়ে আসা হয় শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে। এই শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের পরিবেশ ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিমাতা সুলভ আচারণ সংশয় সৃষ্টি করেছে এই শিশু কিশোরদের ভবিষ্যৎ নিয়ে।

জাতীয় শোক দিবস-২০২০ উপলক্ষে মৌন শোক অবস্থান কর্মসূচি পালন

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী, জাতীয় শোক দিবস-২০২০ উপলক্ষে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ-এর কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে খুলনা মহানগর শাখার উদ্যোগে আজ খুলনা পিকচার প্যালেস মোড়ে (উত্তরা ব্যাংকের সামনে) বেলা ১১টা থেকে ১১:০৫ পর্যন্ত মৌন শোক অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। মৌন শোক অবস্থান কমূসূচিতে অংশগ্রহণ করেনÑবাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ, খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার কু-ু, কোষাধ্যক্ষ রতন কুমার নাথ, যুব ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় সভাপতি রবার্ট নিক্সন ঘোষ, খুলনা মহানগর সভাপতি বিশ্বজিৎ দে মিঠু, খুলনা সদর থানা পূজা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব সাহা লব, সোনাডাঙ্গা থানা সাধারণ সম্পাদক রামচন্দ্র পোদ্দার, তীর্থলোক সংঘ, খুলনা সাধারণ সম্পাদক স্বপন চক্রবর্তী, বিবেকানন্দ শিক্ষা ও সংস্কৃতি পরিষদ খুলনা সভাপতি সুজিত মজুমদার, পূজা পরিষদ খুলনা মহানগর সম্পাদকম-লীর সদস্য উজ্জ্বল ব্যানার্জী, তপা হালদার, বাবু শীল, ছাত্র ঐক্য পরিষদ, খুলনা মহানগর আহ্বায়ক পাপ্পু সরকার, সদস্য সচিব প্রণব চক্রবর্ত্তী, ভবেশ সাহা, মানিক শীল, অলোক দাস, কৌশিক সরকার, দীপ্ত বিশ্বাস, বাপ্পি রায়, সৈকত বর্মণ, সমর বিশ্বাস প্রমুখ।

অপর এক বিবৃতে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস-২০২০ উপলক্ষে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ, খুলনা মহানগর শাখার পক্ষ থেকে আর্য্য ধর্মসভা মন্দির প্রাঙ্গণে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বেলা ১১ টায় প্রার্থনা সভা ও ১১:৩০ টায় অসহায়দের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হবে। এছাড়া মহানগরের প্রতিটি মন্দিরে প্রার্থনা সভা করার আহ্বান জানানো হয়।

আওয়ামী লীগ নেতার সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মোঃ শাহাজাদার সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি দিয়েছে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ। উল্লেখ্য যে তিনি শারীরিক অসুস্থতাজনিত কারনে নগরীর গরীবের নেওয়াজ কিনিকে অপারেশন হন। ডাক্তারের পরামর্শে বর্তমানে তিনি কিনিকে অবস্থান করছে। তার আশু সুস্থতার জন্য সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করা হয়েছে। তার সুস্থতা কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত কুমার অধিকারী।

প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষায় খেজুর, নারিকেল ও তালের চারা রোপন করবে: বিএআরআই

স্টাফ রিপোর্টার

খুলনাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলের পাঁটটি জেলার ৩৮টি উপজেলায় ফল বাগান স্থাপন ও রাস্তার ধারে তাল, খেজুর ও নারিকেল গাছ লাগানোর কর্মসূচি নিয়েছে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএআরআই)। গোপালগঞ্জ জেলায় কৃষি গবেষণা কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পের আওতায় এ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে। সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, কর্মসূচি বাস্তবায়ন হলে এ অঞ্চলের মানুষ জলবায়ূ পরিবর্তন, পরিবেশ বিপর্যয়ের হাত থেকে কিছুটা হলে রক্ষা পাবে। প্রতিষ্ঠানটির উপ প্রকল্প পরিচালক ও খুলনার প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. হারুন অর রশিদ জানান, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, গোপালগঞ্জ ও পিরোজপুর জেলার ৩৮টি উপজেলায় ফল বাগান স্থাপন করা হবে। এসব জেলার উপজেলাগুলোর রাস্তার ধারে তাল, খেজুর ও নারিকেল গাছ লাগানো হবে। এসব গাছ বেড়ে উঠলে বজ্রপাত, ঝড়, জলোচ্ছ্বাসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে উপকূলের মানুষ উপকৃত হবে। পাশাপাশি পশুপাখির আশ্রয়স্থল হিসেবে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গাছের বিকল্প নেই। একটি গাছ ৫০ বছরে ৪১ লাখ টাকা মূল্যের উপকার করে থাকে। করোনা আমাদের অক্সিজেনের গুরুত্ব বুঝিয়ে দিয়েছে। ফলে গাছ শুধু আমাদের প্রাকৃতিক সম্পদই নয়, বেঁচে থাকারও অবলম্বন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত এককোটি গাছ লাগানোর কর্মসুচি তারই অংশ হিসেবে এ গাছ রোপন করা হচ্ছে। আগামীতে স্কুলে স্কুলেও আমাদের গাছ লাগানোর পরিকল্পনা আছে।

এদিকে কর্মসূচির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) খুলনার কয়রা মহারাজপুর ইউনিয়নের মঠবাড়ী গ্রামের কায়েমের ব্রীজ থেকে সেরাজিয়া হাইস্কুল পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার রাস্তার দু’পাশে খেজুর ও তালের চারা রোপন করা হয়। এ সময় উপস্থিত মহারাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান জিএম আব্দুল্লাহ আল মামুন লাভলু, আওয়ামী লীগ নেতা প্রভাষক শাহাবাজ আলী, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের এমএল সাইট কয়রার বৈঞ্জানিক সহকারি মো. জাহিদ হাসান

শরণখোলা প্রেসকাবের হরিণ চত্বরের উদ্ধোধন

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বাগেরহাটের শরণখোলা প্রেসকাব প্রাঙ্গনে সুন্দরবনের অবয়বে নির্মিত হরিণ চত্বরের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ধোধন করেছেন বাগেরহাট-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আমিরুল আলম মিলন। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ফিতা কেটে ওই চত্বরের উদ্ধোধন করেন। এরপর তিনি প্রেসকাবের সম্মেলন কক্ষে এলাকার উন্নয়ন ও সমস্যা নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভা করেন।

কাবের সভাপতি ইসমাইল হোসেন লিটনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন কাবের সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরদার মোস্তফা শাহিন, থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ এসকে আব্দুল্লা আল সাইদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা, আওয়ামীলীগ নেতা ইউপি চেয়ারম্যাান মোঃ মোজাম্মেল হোসেন, এমএ রশিদ আকন, আব্দুল হক হায়দার, ইউপি চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক আসাদুজ্জামান মিলন, বাবুল দাস, শেখ মোহাম্মদ আলী, নজরুল ইসলাম আকন, আমিনুল ইসলাম সাগর, আঃ রাজ্জাক তালুকদার, হুমায়ুন কবির, আনোয়ার হোসেন, আঃ মালেক রেজা, মনিরুজ্জামান আকন, সাবেরা ঝর্ণা, আসাদুজ্জামান স্বপন, মাহফুজুর রহমান বাপ্পি।

সভায় সংসদ সদস্য এ্যাডঃ আমিরুল আলম মিলন বলেন, শরণখোলার উন্নয়ন এবং সুন্দরবনের উপর নির্ভরশীল জনগোষ্ঠিকে বিকল্প পেশায় ফিরিয়ে আনতে পর্যাটন কেন্দ্র গড়ে তুলতে হবে। এজন্য ইতোমধ্যে তিনি কাজ শুরু করে দিয়েছেন। তাই সকলের সহযোগিতা পেলে অচিরেই এর কার্যক্রম শুরু করা যাবে।

পাইকগাছায় সম্ভাব্য উপ-নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা শুরু

বাবুল আক্তার, পাইকগাছা

পাইকগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলীর মৃত্যুর পর সম্ভাব্য উপ-নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে। অনেকে শুরু করেছেন গণসংযোগ। কেউ কেউ চেয়ে আছে উপর মহলের দিকে।

১০টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা নিয়ে পাইকগাছা উপজেলা গঠিত। গত ৩১ মার্চ ২০১৯ তারিখে উপজেলা নির্বাচনে গাজী মোহাম্মদ আলী আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হন। এ নির্বাচনে একই দলের ৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ১৭ জুলাই ২০২০তারিখে উপজেলা চেয়ারম্যান করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেলে উপজেলা চেয়ারম্যানের পদটি শূন্য হয়। এরপরই শুরু হয় সম্ভাব্য প্রার্থী ও উপ-নির্বাচন নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে জল্পনা-কল্পনা। আগামী উপ-নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের কে হচ্ছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী? ইতোমধ্যে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আনোয়ার ইকবাল মন্টু, সহ-সভাপতি সমীরণ সাধু, সম্পাদক শেখ কামরুল হাসান টিপু, উপজেলা আ’লীগের সাবেক সম্পাদক মোঃ রশীদুজ্জামান, আ’লীগ জেলা সদস্য শেখ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এ্যাড. শেখ আবুল কালাম আজাদ ও শেখ ফরহাদ হোসেন তুষার। অনেকেই ইতোমধ্যে উপ-নির্বাচন নিয়ে শুরু করেছেন গণসংযোগ। কেউ কেউ বিভিন্ন মতবিনিময় সভা ও সামাজিক অনুষ্ঠানে প্রার্থী হওয়ার ইশারা ইঙ্গিত দিয়ে যাচ্ছেন। যারা পদ-পদবীধারী তাদের অনেকেই পদ হারানোর ভয়ে প্রকাশ্য প্রার্থী ঘোষণা না দিলেও চেয়ে আছে উপর মহলের দিকে। অনেকে বলছে, দলীয় প্রতীক পেলে নির্বাচন করব। কেউ কেউ অনঢ় রয়েছে নির্বাচনের জন্য।

 ‘স্বাধীনতা সাংবাদিক ফোরামে’র কর্মসূচি

খবর বিজ্ঞপ্তি

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ‘স্বাধীনতা সাংবাদিক ফোরাম’ খুলনার কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- ১৫ আগস্ট সকাল ১১টায় খুলনা প্রেস কাব চত্বরে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে পুষ্পমাল্য অর্পণ। ফোরামের সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন উক্ত কর্মসূচিতে সাংবাদিকদের অংশ নেয়ার জন্য আহবান জানিয়েছেন।

বঙ্গবন্ধু জনগণের দাবী আদায়ের লক্ষে আন্দোলন সংগ্রাম করে গেছেন: সিটি মেয়র

তথ্য বিবরণী

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি ও স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকালে নগরীর ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে একশত গরীব, অসহায় ও দুস্থদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়। খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে ছিল আট কেজি করে চাল ও নগদ অর্থ। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

আরও পড়ুন:  চিংড়িতে অপদ্রব্য পুশ থামছে না

খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে সিটি মেয়র বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জনগণের দাবী আদায়ের লক্ষে আন্দোলন সংগ্রাম করে গেছেন। তাঁর জন্যই বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে ততদিন বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ বাঙালির হৃদয় থেকে মূছে ফেলতে পারবে না। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক মুক্তির জন্য সারা জীবন কাজ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধু শোষণমুক্ত সমাজ বিনির্মাণের স্বপ্ন দেখেছিলেন, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে সকলকে একসাথে কাজ করার আহবান জানান সিটি মেয়র। খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ আনিছুর রহমান বিশ^াস, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবিদ উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ হাসান ইফতেখারসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঝিনাইদহে নবজাতক শিশু উদ্ধার, চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন ওসি মিজান

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের তেতুলতলা বাজার এলাকার মায়াধরপুর গ্রামের নুরগীতলা নামক স্থানে এক নবজাতক ছেলে শিশু উদ্ধার করল সদর থানা পুলিশ। ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে একটি নবজাতক শিশুকে দেখে এলাকাবাসী থানা পুলিশকে জানালে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় শিশুটিকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি আরো জানান, বাচ্চাটির সুচিকিৎসার সকল ব্যবস্থা আমি গ্রহণ করেছি। বাচ্চাটি এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি আছে। আগ্রহী নিঃসন্তান দম্পতিরা বাচ্চাটিকে নেওয়ার জন্য হাসপাতালে ভিড় করেছে। বাচ্চাটি নিরাপত্তার জন্য আমাদের থানার নারী কনস্টেবল নিয়োজিত করা হয়েছে। আমাদের প্রধান লক্ষ্য বাচ্চাটিকে আগে সুস্থ করে তোলা। তারপর উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইসলামী আন্দোলন খুলনা মহানগরীর ২১ নং ওয়ার্ডের মাসিক বৈঠক

খবর বিজ্ঞপ্তি

গতকাল শুক্রবার (১৪ আগষ্ট) বাদ আছর রেলষ্টেশনস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরের সদর থানার আওতাধীন ২১ নং ওয়ার্ডের মাসিক ও জরুরী বৈঠক ওয়ার্ড সভাপতি মোঃ আবুল কাশেমের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী মোঃ নুরুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরীর সভাপতি আলহাজ্ব মুফতি আমানুল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরীর সেক্রেটারি শেখ মুহা.নাসির উদ্দীন। অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড সহ-সভাপতি মোঃ আনোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম, কুদ্দুস খলিফা, মোঃ রফিক, মোঃ ইকবাল হোসেন, মোঃ নুর ইসলাম, ছাত্রনেতা মুহা.আঃ আল মামুন, মোঃ আব্দুল্লাহ, হাফেজ উসামা আবরার প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

মহানগর ও জেলা বিএনপির উদ্যোগে দোয়া মাহফিল আজ

খবর বিজ্ঞপ্তি

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আরোগ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা, দেশবাসী ও দলের নেতাকর্মি যারা করেনাসহ অন্যান্য রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা ও অসুস্থদের আশু সুস্থতা কামনা এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ বানবাসী মানুষদের দুর্দশার হাত থেকে রেহাই পেতে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

আজ ১৫ আগস্ট শনিবার কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সকাল সাড়ে ১১টায় খুলনা মহানগর ও জেলা বিএনপির উদ্যোগে নগরীর ৬, কেডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে এ দোয়া মাহফিল ।

উক্ত অনুষ্ঠানে দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মিদের উপস্থিত থাকার জন্য আহবান জানিয়েছেন নগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক  মনিরুজ্জামান মনি. জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড শফিকুল আলম মনা ও সাধারণ সম্পাদক  আমীর এজাজ খান।

যশোরের শার্শায় উপজেলায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ১ বিঘা জমির ফলন্ত কলাগাছ কেটে নস্ট করেছে দুর্বৃত্তরা

বেনাপোল প্রতিনিধি

যশোরের শার্শা উপজেলায় র্পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ১ বিঘা জমির ফলন্ত কলাগাছ কেটে নস্ট করে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।গতরাতে দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কৃষক সিরাজুল ইসলামের কলা বাগান কেটে দেয়।

সিরাজুল ইসলাম দক্ষিণ বুরুজবাগান গ্রামের মৃত গোলাম নবীর ছেলে । শুক্রবার সকালে তিনি তার কলাবাগানে গিয়ে দেখেন গাছগুলো সব কাটা অবস্থায় পড়ে আছে। তিনি এসময় কান্নায় ভেঙে পড়েন।

তিনি জানান, গাছগুলো কেটে দেয়ায় তার প্রায় ৪ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। তার অভিযোগ, পাশের জমির মালিক কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত আফিল উদ্দিনের ছেলে খতিব উদ্দিন, মৃত মোবারক হোসেনের ছেলে কামাল হোসেন ও মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে চড়া শামছুর রহমান রা  এর আগেও একবার তার জমির ফসল নষ্ট করেছে। তারাই এ ঘটনা ঘটাতে পারে।

শার্শা থানা পুলিশের ওসি বদরুল আলম খান বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এখনও কেউ কোন অভিযোগ করেন নি। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজাপুর কহিনুর খাদেমুল উলুম মাদরাসা চত্বরে বৃক্ষ রোপণ

খবর বিজ্ঞপ্তি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন ও খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদীর পক্ষ থেকে রূপসা উপজেলার রাজাপুর কহিনুর খাদেমুল উলুম মাদরাসা চত্বরে গাছের চারা রোপণ হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টায় দু’টি গাছের চারা রোপণ করা হয়। ইউনিয়ন ব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে গাছের চারা রোপণ করা হয়। আইচগাতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট সমাজসেবী আলহাজ্ব শেখ শামিম হাসান তুুহিন প্রধান অতিথি থেকে এই চারা রোপণ করেন। বিশিষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগ রাজাপুর ওয়ার্ড শাখার সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য শেখ ওহিদুজ্জামান মিন্টু ও আওয়ামী লীগ নেতা মো. কামরুজ্জামান টিপু। এসময় মো. আরমান হোসেন, মনিরুল ইসলাম বাবলু, কামাল হোসেন মানিক, মো. পলাশ, আমির হামজা তপু, মো. বাপ্পি, মো. সুমন বাবু  ও মো. জামালসহ এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন। পরে ৫নং দেয়াড়া ওয়ার্ড থেকে আগত বিভিন্ন শ্রেনি পেশার মানুষ আলহাজ্ব শেখ শামিম হাসান তুুহিনের সাথে তার রাজাপুরস্থ বাস ভবনে সৌজন্য সাক্ষাত করেন এবং ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

মহেশপুর পৌর ও ইউনিয়ন আ.লীগের হাতে জাতীয় শোক দিবসের অনুদান দিলেন এমপি চঞ্চল

মহেশপুর (ঝিনাইদহ)প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের মহেশপুর পৌর ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারন সম্পাদক এর হাতে জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য নগদ অনুদান দিলেন ঝিনাইদহ -৩ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড,শফিকুল আজম খাঁন চঞ্চল। শুক্রবার সকালে মহেশপুর অডিটোরিয়ামে জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য এ অনুদান প্রদান করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মহেশপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাজ্জাদুল ইসলাম সাজ্জাদ,মহেশপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি শেখ নিজামউদ্দিন আহমেদ ,উপজেলা আ,লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর সুলতানুজ্জামান লিটন।

মহেশপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অমল কুমার কুন্ড, ফতেপুর ইউনিয়ন আ,লীগের সভাপতি আতাউর রহমান,বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন আ,লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নওশের আলী মল্লিক, যাদবপুর ইউনিয়ন আ,লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সালাউদ্দীন, নাটিমা ইউনিয়ন আ,লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম মাষ্টার, মান্দার বাড়িয়া ইউনিয়ন আ,লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ অনুদান গ্রহন করেন। এসময় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্হিত ছিলেন।

ঝিনাইদহে নবজাতক শিশু উদ্ধার, চিকিৎসার দায়িত্বভার নিলেন ওসি মিজান

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের তেতুলতলা বাজার এলাকার মায়াধরপুর গ্রামের নুরগীতলা নামক স্থান থেকে ব্যাগ ভর্তি অবস্থায় এক নবজাতক ছেলে শিশু উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে একটি নবজাতক শিশুকে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় শিশুটিকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি আরো জানান, শিশুটির সুচিকিৎসার সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। শিশুটি এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি আছে। আগ্রহী নিঃসন্তান দম্পতিরা নবজাতক শিশুটিকে নেওয়ার জন্য হাসপাতালে ভিড় জমাচ্ছে। নবজাতকের নিরাপত্তার জন্য আমাদের থানার নারী কনস্টেবল নিয়োজিত করা হয়েছে।

আমাদের প্রধান লক্ষ্য শিশুটিকে আগে সুস্থ করে তোলা। তারপর উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঝিনাইদহে পানিতে ডুবে দুই মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে পুকুরের পানিতে ডুবে দুই মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকালে কোটচাঁদপুর উপজেলার রাজাপুর গ্রামের একটি পুকুর থেকে ওই দুই ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। কোটচাদপুর থানার ওসি মাহবুবুল আলম জানান, কোটচাঁদপুরের রাজাপুর আল-হেরা হাফেজিয়া মাদ্রাসার নূরানী বিভাগের ২ ছাত্র চঞ্চল ও মিশন হোসেন বৃহস্পতিবার পাশের পুকুরে গোসল করতে যায়। অন্যরা ফিরে এলেও চঞ্চল ও মিশন নিখোঁজ ছিল। গতকাল সন্ধ্যায় মাদ্রাসায় ফিরে না গেলে রাতভর পুকুর ও আশপাশের বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করা হয়। পরে শুক্রবার সকালে ওই পুকুরের মিশনের মরদেহ দেখতে পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয় এলাকাবাসী। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে মিশন ও চঞ্চলের লাশ উদ্ধার  করে।

গিলাতলা মিনাপাড়ায় জমিজমা সংক্রান্ত জেরে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

নগরীর খানজাহান আলী থানাধীন গিলাতলা মিনাপাড়ায় জমিজমা সংক্রান্ত জেরে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। গিলাতলা  মিনাপাড়া এলাকার লতিফ মুন্সি ও মোহাম্মাদ মুন্সীর সাথে একই এলাকার মৃত মোজাহার মুন্সীর পুত্র মারুফ মুন্সীর বিরোধ চলে আসছিল। গত ৯ আগষ্ট বেলা সাড়ে ১১টায় মৃত মকবুল মুন্সীর পুত্র মোহাম্মাদ মুন্সী আমাদের যৌথ মালিকানার কবরস্থানে মারুফ মুন্সীর লাগানো ২০/২৫টি মেহগুনী গাছের চারা উপড়ে ফেলে। এব্যাপারে মারুফ মুন্সী গাছের চারা কেন উপড়ে ফেলা হল জানতে চাইলে তাঁর উপর লতিফ ও মোহাম্মাদ মুন্সী ক্ষিপ্ত হয়ে তেড়ে আসে এবং বলে তোকে এলাকা ছাড়া করবো। এ ঘটনার ৩দিন পর লতিফ মুন্সীর পুত্র সোহেল মুন্সী বাদী হয়ে মারুফ মুন্সী(৪৪),সেলিম মুন্সী(৩৯), রফিকুল মুন্সী(৩৮) এর নামে হয়রানি মুলক মিথ্যা মামলা দায়ের করে। মারুফ মুন্সী জানান কবর স্থানের জায়গাটি আমাদের যৌথ মালিকানা সম্পত্তি। তাই সেখানে মেহগুনী গাছের চারা লাগানো হয়েছিল। হিংসার বসবতি হয়ে লতিফ ও মোহাম্মাদ মুন্সী গাছের চারা গুলি উপড়ে ফেলে। এবং মসজিদের চলাচলের একমাত্র রাস্তায় ময়লা আবর্জনা ফেলে চলাচলের অযোগ্য এবং ব্যবহৃত পুকুরে গরুর গোয়ালের আবর্জনা ফেলে পুকুরটি ব্যবহারের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। মসজিদের মুসল্লীদের সমস্যার কথা ভেবে এর প্রতিবাদ করতে প্রতিপক্ষ মিথ্যা মামলা দিয়ে হেনস্থা করছে এবং আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করছে। এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মনিরুল ইসলাম ও ইউপি সদস্য হাফেজ মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান, সম্প্রতি মারুফ মুন্সী আমাদের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছিল, আমরা উভয় পক্ষকে আলোচনা সাপেক্ষে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানের কথা বলেছিলাম। কিন্ত তারা আমাদের কথার কর্নপাত না করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। এব্যাপারে ভুক্তভুগী মারুফ মুন্সী তদন্ত পূর্বক প্রশাসনের উর্ধŸতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

গভ: ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

ফুলবাড়ীগেট (খুলনা) প্রতিনিধি

গভ: ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন। ১৪ আগষ্ট সকাল ১০টায় ল্যাবরেটরী হাই স্কুল প্রাঙ্গনে ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্ররা এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে কেক কেটে, বৃক্ষ রোপণ ও আলোচনা সভার মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করেন। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রাক্তণ ছাত্র আব্দুল খালেক। প্রধান অতিথি ছিলেন এ্যাসোসিয়েশনেরপ সেক্্েরটারী মোঃ নওশাদুজ্জামান পল্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন আড়ংঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম। মোঃ রেজাউল ইসলাম রেজার পরিচালনায় বক্তৃতা করেন শেখ আতিয়ার রহমান, নাসির উদ্দিন ধনি, মাহবুবুর রহমান সেলিম, কাজী আসাদুজ্জামান মিল্টন, রুপালী ব্যাংকের সহকারী মহাব্যবস্থাপক শেখ আলাউদ্দিন হোসেন, সাইদুর রহমান, মোঃ কাজল, মোঃ কামাল আহম্মেদ, মোঃ রানা, শাহাবুদ্দিন জুয়েল, মোঃ বজলুর রহমান, মোঃ শফি, ওয়াহিদুর রহমান রাজু প্রমুখ।

মশিয়ালীতে গুলি করে তিনজনকে হত্যা মামলার আসামি মিঠু রিমান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর খানজাহান আলী থানাধীন মশিয়ালী এলাকায় গুলি করে তিনজনকে হত্যা মামলার এজহারভুক্ত আসামি মো. মিঠু শেখ (৩৩) এর ২ দিনের রিমা- মঞ্জুর করেছে আদালত।

গতকাল শুক্রবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. আতিকুস সামাদ পিএইচডি রিমা-ের আদেশ প্রদান করেছেন। মিঠু শেখ মশিয়ালী গ্রামের  মো. বাবুল শেখের ছেলে। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. এনামুল হক আসামি মিঠুকে আদালতে হাজির করে ৭দিনের রিমা-ের আবেদন করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. এনামুল হক জানান, এ মামলার এজহারভুক্ত আসামি হচ্ছে ২২জন। এ পর্যন্ত মোট ৭জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন মশিয়ালী গ্রামের মৃত. হাসান আলি শেখের ছেলে মো. জাফরিন শেখ (৩২), মো. মোকছেদ শেখের ছেলে মো. জাহাঙ্গীর শেখ (৩৫) ও মো. আলমগীর শেখ (৩৮), মো. কুরবান শেখের ছেলে মো. আরমান শেখ (২০), মৃত. আক্তার আকুঞ্জির ছেলে মো. রহিম আকুঞ্জি (২২), মো. ফারুকের ছেলে মো. রবিন (২০) ও মো. বাবুল শেখের ছেলে মো. মিঠু শেখ (৩৩)। এদের মধ্যে জাফরিন শেখ ও আরমান শেখ আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

মামলার বিবরণে জানা যায়, ১৬জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মো. জাকারিয়া শেখ মশিয়ালী সিএন্ডবি’র ঘরের একটি কক্ষে ৩রাউন্ড বন্দুকের গুলি ও ২রাউন্ড পিস্তলের গুলি নিজে রেখে বাদীর চাচাতো ভাই মুজিবর শেখকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাদীসহ পাড়ার আরো কিছু লোক মুজিবরকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার কারণ জানতে জাফরিনদের বাড়ির সামনে যায়। এসময় তাদের সঙ্গে বাক-বিতন্ডার একপর্যায়ে মিল্টন শেখ গুলি করলে নজরুল শেখ মারা যায়। জাফরিন শেখ গুলি করলে গোলাম রসুল মারা যায়। জাকারিয়ার গলিতে আহত হয় বাদীর ছেলে সাইফুল। পরে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মারা যায় সাইফুল। তাদের অন্যান্য সহযোগিদের গুলিবর্ষণে বাদীসহ অন্যরা পালিয়ে যায়। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয় আফসার উদ্দিন, তার ছেলে রবি, শামীম, খলিল, রানা, সুজন শেখসহ আরো অনেকে। এঘটনায়  নিহত সাইফুলের পিতা  মো. শাহিদুল শেখ বাদী হয়ে  মশিয়ালী গ্রামের মৃত. হাসান আলি শেখের ৪ছেলেসহ ২২জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরো ১৫/১৬জনকে আসামি করে খানজাহান আলী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন যার নং-১২।

নগরীতে পুলিশের অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার ২

স্টাফ রিপোর্টার

মহানগর পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে ১০ পিস ইয়াবাসহ ও ১৫ গ্রাম গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন নগরীর খালিশপুর মুজিবনগর বাস্তুহারা মুক্তিযোদ্ধা কলোনীর আবুল কাশেম ফরাজীর ছেলে মো. রাসেল ফরাজী (২০) ও দৌলতপুর কদমতলা ওবায়দুর রহমান এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া মৃত. আব্দুল মজিদ খানের ছেলে মেহবুব আব্দুল খান (৩৫)।

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) কানাই লাল সরকার জানান, গত ২৪ ঘন্টায় নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে মহানগর পুলিশ। এসময়  ১০ পিস ইয়াবা ও ১৫ গ্রাম গাঁজাসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় ২টি মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে। 

ঝিকরগাছায় র‌্যাবের অভিযানে দু’কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার

যশোর জেলার ঝিকরগাছা থানাধীন নাভারণ কলোনী মোড়ে অভিযান চালিয়ে ২ কেজি গাঁজাসহ এক মহিলা মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। ১৩ আগস্ট রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন যশোর জেলার ঝিকরগাছা থানাধীন নাভারণ কলোনীর মৃত. লতিফের স্ত্রী মোছা. পাপিয়া (৫০)।  

র‌্যাব-৬ জানায়, ১৩ আগস্ট রাতে যশোর জেলার ঝিকরগাছা থানাধীন নাভারণ কলোনী মোড়ে অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় কলোনী মোড়ের পশ্চিম পাশ্বে বাংলালিংক টাওয়ার সংলগ্ন আইয়ুব এর বাড়ীর পূর্ব পাশের কাঁচা রাস্তার উপর থেকে ২ কেজি গাঁজাসহ পাপিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে ঝিকরগাছা থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।