প্রচ্ছদ রাজনীতি আওয়ামী লীগ

শিপ্রার এসব ব্যক্তিগত ছবি-ভিডিও ফেসবুকে কেন?

78
শিপ্রার এসব ব্যক্তিগত ছবি-ভিডিও ফেসবুকে কেন?
পড়া যাবে: 3 মিনিটে

 

 
 

কক্সবাজারের টেকনাফে মেরিন ড্রাইভে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের নিহতের এক সপ্তাহ পর ‘জাস্ট গো’ নামের ইউটিউব চ্যানেল থেকে একটি ভিডিও আপলোড করা হয়। এরপই শিপ্রা দেবনাথের ব্যক্তিগত ছবি ও ভিডিও নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তুমুল আলোচনা শুরু হয়।

স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজের ছাত্রী শিপ্রা দেবনাথের সঙ্গে সিনহার পরিচয় দেড় বছর আগে সুনামগঞ্জের টাঙ্গুয়ার হাওড়ে ঘুরতে গিয়ে। পরিচয় থেকে বন্ধুত্বের এক পর্যায়ে ভ্রমণ বিষয়ক ডকুমেন্টারি নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন তারা।

সেই পরিকল্পনা থেকে ‘জাস্ট গো’ নামে ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজ খুলে ডকুমেন্টারি নির্মাণ শুরু করেন। শুটিং ও এডিটিংয়ে সহায়তার জন্য সহপাঠী সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও তাহসিন রিফাত নূরকে সঙ্গে নিয়ে ৪ জনের দল হয়ে জুলাইয়ের শুরুর দিকে কক্সবাজারে গিয়েছিলেন সিনহা-শিপ্রারা।

সেখানে কাজ চলার মধ্যে গত ৩১ জুলাই টেকনাফের একটি তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে সিনহা রাশেদ খান নিহত হওয়ার পর শিপ্রা ও সিফাতকেও গ্রেফতার করা হয়েছিল। পরে এই মামলায় টেকনাফ থানার ওসিসহ পুলিশের ৭ সদস্য গ্রেফতার হওয়ার পর জামিনে ছাড়া পান তারা।

এরপর সিনহা হত্যাকাণ্ড নিয়ে দেশজুড়ে আলোচনার মধ্যে তাদের তৈরি করা একটি ডকুমেন্টারি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ওই ভিডিও তাদের প্রকাশিত না হওয়ায় নিজেদের স্বপ্নকে টিকিয়ে রাখতে জাস্ট গো-তে ডকুমেন্টারি প্রকাশের ঘোষণা দিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করেন শিপ্রা। এরপরই শুরু হয় তাকে নিয়ে নানা ধরনের নোংরা প্রচারণা।

শিপ্রার পরিবার বলছে, ভিডিও আপলোডের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে একটি গ্রুপ শিপ্রার চরিত্রহননের চেষ্টা করছে। তারা শিপ্রার পুরোনো ব্যক্তিগত ছবি ব্যবহার করে নানা রকম মন্তব্য করছে এবং তাকে স্বার্থপর হিসেবে সমাজের চোখে পরিচয় করে দিচ্ছে।

আরও পড়ুন:  করোনায় প্রাণ হারালেন পপুলার মেডিক্যালের অধ্যক্ষ

শিপ্রার ভাই শুভজিৎ কুমার দেবনাথ ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘সোস্যাল মিডিয়ায় অনেকে শিপ্রার ব্যক্তিগত ছবি আপলোড করে তার সম্পর্কে খারাপ ধারণা তৈরি করার চেষ্টা করছে। তারা বোঝানোর চেষ্টা করছে মানুষের আবেগের সুযোগ নিয়ে শিপ্রা জাস্ট গো ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও প্রকাশ করছে। এই সুযোগেই যেন শিপ্রা তার চ্যানেলের প্রচার করতে পারে।’

তিনি বলেন, ঘটনার পর অনেকে ভুয়া নাম-পরিচয় ব্যবহার করে জাস্ট গো নাম দিয়ে ডকুমেন্টারি তৈরি করে ইউটিউবে ছেড়ে দেয়। এটা প্রচার হওয়ার পর অনেকের মধ্যে বিভ্রান্তি দেখা যায়। এ কারণে শিপ্রা তার কাছে থাকা কিছু ছবি ও ভিডিও ইউটিউবে ছাড়েন। যা তার গুগল ড্রাইভে ছিল। সিনহার স্বপ্নগুলো এই ডকুমেন্টারির মাধ্যমেই মানুষের কাছে বাঁচিয়ে রাখতে চেয়েছিল শিপ্রা। সেটাকে পুঁজি করেই তার সমালোচনা করছে ওই গ্রুপ। পাশাপাশি তার ব্যক্তিগত ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে চরিত্রহননের চেষ্টা করছে। প্রমাণ করার চেষ্টা করছে তার জীবনে শৃঙ্খলা ছিল না।

শিপ্রার ভাই আরও বলেন, ‘এই সুযোগে সামাজের অনেক দায়িত্বশীল মানুষও শিপ্রার ব্যক্তিগত ছবি পোস্ট করেছেন। সাধারণ চোখে এটা কিছু না হলেও এর পেছনে একটা ষড়যন্ত্র কাজ করছে বলে আমরা বিশ্বাস করছি। তাছাড়া কেউ জানতেও চাচ্ছে না এই ছবিগুলো কোথা থেকে আসছে।’

মানসিকভাবে বিপর্যস্ত দাবি করা শিপ্রা দেববাথ ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘আমি বুঝতে পারিনি ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও ছাড়া নিয়ে সাধারণ মানুষ এমন বাজে প্রতিক্রিয়া দেখাবে। আমার উদ্দেশ্য এমন ছিল না যে আমি রাতারাতি সেলিব্রিটি হয়ে যাবো। মানুষের এমন প্রতিক্রিয়ার পর আমি ভিডিওটি সরিয়ে নিয়েছি। তবুও একটা গ্রুপ আমার চরিত্রহননের চেষ্টা করে যাচ্ছে।’

আরও পড়ুন:  বাড়ি গিয়ে ঈদ করা হলো না আনিছের

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, মেরিন ড্রাইভে গুলির ঘটনার পর নীলিমা রিসোর্টে অভিযান চালায় পুলিশ। পুলিশের অভিযান এক ভিডিওতে দেখা যায়। সিনহার কক্ষ থেকে এক রাউন্ড গুলি জব্দ করেছিল পুলিশ। এছাড়া তার কক্ষে একটি ল্যাপটপ ও তিনটি হার্ডড্রাইভ ছিল। অভিযানের সঙ্গে যুক্ত একজন পুলিশ সদস্যকে সিনহার ওই হার্ডড্রাইভ অনেক সময় ধরে নাড়াচাড়া করতেও দেখা যায়। অভিযানের শুরুতে সিনহার কক্ষে ল্যাপটপের সামনে বসেই পুলিশের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় শিপ্রা দেবনাথকে। তবে নীলিমা রিসোর্টে অভিযানের ঘটনায় রামু থানায় পুলিশ যে মামলা করেছিল, সেখানে সিনহার কক্ষ থেকে উদ্ধার করা গুলি, ল্যাপটপ ও হার্ডড্রাইভ জব্দ তালিকায় দেখানো হয়নি।

সূত্র বলছে, নীলিমা রিসোর্টে অভিযান চালানোর সময় সিনহার কক্ষ থেকে ল্যাপটপ ও হার্ডডিস্ক গায়েব হয়ে যায়। পুলিশের জব্দ তালিকায় তা দেখানো হয়নি। কেউ হার্ডডিস্ক থেকে শিপ্রার ব্যক্তিগত ছবি নিয়ে চরিত্রহননের চেষ্টা করছে কিনা সেটা তদন্ত করা প্রয়োজন।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, একটি অসাধু মহল শিপ্রার ব্যক্তিগত বিষয় সামনে এনে আসল ঘটনা আড়াল করার চেষ্টা করছে। তারা যেটা করছে, এটা সাইবার ক্রাইম। সে বিষয়েও তদন্ত চলছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 5
    Shares