প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

মোবাইলে ২০ টাকা ব্যালেন্সের জন্য স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন স্ত্রী!

75
পড়া যাবে: 3 মিনিটে

সাভারের ধামরাই উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে স্বামীর যৌ*নাঙ্গ কে*টে দিয়েছে স্ত্রী। সোমবার (২২ জুলাই) মধ্যরাতে সোমবাগ ইউনিয়নের কংসপট্টিতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আজ মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দুপুরে ভু*ক্তভোগী*র স্বজনরা বা*দী হয়ে একটি মা*মলা করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত অভিযুক্ত গৃহবধূকে গ্রে*ফতার করতে পারেনি পুলিশ।

ভু*ক্তভো*গী স্বামীর নাম ইউসুফ আলী (২৭)। তিনি ধামরাই উপজেলার সোমভাগের কংসপট্টি এলাকার মৃ*ত ইদ্রিস আলীর ছেলে এবং পেশায় একজন ভ্যানচালক। তার স্ত্রী পারভীন (২৪) একই গ্রামের বাসিন্দা এবং দুলাল মিয়া ওরফে আইচান বেপারির মেয়ে। পারভীন স্থানীয় একটি গার্মেন্টসে কাজ করেন। পাঁচ বছর আগে ভালোবেসে বিয়ে করেন তারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে ঝ*গড়া হতো। সোমবার কাজ শেষে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হন স্ত্রী। পথিমধ্যে স্ত্রীর সঙ্গে দেখা হয় তার। কিন্তু স্ত্রীর সঙ্গে কোনো কথা না বলে দোকানে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিতে বসেন স্বামী। কিছুক্ষণ পর বাড়ি এসে স্ত্রীর মোবাইলটি নিয়ে যান স্বামী। এতে রাগ করে বাবার বাড়ি চলে যান পারভীন।

এ ঘটনার পর স্বামী বাসায় ফিরে পারভীনকে দেখতে না পেয়ে আত্মীয়দের বাসায় খোঁজ নেন। কিন্তু কোথাও স্ত্রীকে খুঁজে পাননি স্বামী। রাত ১০টার দিকে পারভীন বাসায় আসলে তাদের মধ্যে ঝ*গড়া শুরু হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে হা*তাহা*তি হয়। এতে ক্ষি*প্ত হয়ে ছু*রি দিয়ে স্বামীর পু*রুষা*ঙ্গ কে*টে দেন স্ত্রী। এতে ইউসুফের যৌ*নাঙ্গে*র এক তৃতীয়াংশ কে*টে যায়।

এ সময় স্বামী চি*ৎকার করলে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসেন। ঘটনার পরপরই পারভীন পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা আ*হত অবস্থায় ইউসুফকে প্রথমে ধামরাই সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে সাভারের এনাম মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। অবস্থার অবনতি হলে সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে ইউসুফ বলেন, ওর (পারভীনের) মোবাইলে ২০ টাকা ব্যালেন্স ছিল। কথা বলে ব্যালেন্স শেষ করেছি। এটাই আমার অ*পরাধ! আমি এই অ*ন্যায়ের বি*চার চাই। ওর সঙ্গে আর সংসার করবো না। তার যৌ*নাঙ্গে ৬টি সেলাই পড়েছে বলে জানান তিনি।

ভুক্তভোগীর বরাত দিয়ে ধামরাই থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল জলিল বলেন, পারভীনের মোবাইলে ২০ টাকা ব্যালেন্স ছিল। দোকানে আড্ডা দেয়ার সময় সেই টাকা খরচ করে ফেলেছিলেন স্বামী। এটাই স্বামীর অপরাধ। মূলত এটা নিয়েই তাদের মধ্যে কলহের সৃষ্টি হয়। সেখান থেকে এ ঘটনার সূত্রপাত। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত ওই গৃহবধূকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

Loading...

আপনার মতামত লিখুন :

Loading Facebook Comments ...