প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

কেউ কথা রাখেননি !

12
কেউ কথা রাখেননি !
পড়া যাবে: < 1 minute

আনোয়ার হোসেন, মণিরামপুর (যশোর)

কয়েকদিনের ভারী বর্ষায় যশোরের মণিরামপুরের সুন্দলপুর বাজার থেকে মোকমতলা খানপুর পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার রাস্তাটি কাঁদায় ভরে গেছে। প্রতিবছর বর্ষার সময় রাস্তাটি চলাচলের অনোপযোগী হয়ে পড়ে। ফলে পথচারীসহ স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীরা ভোগান্তিতে পড়েন। বেগ পেতে হয় মাঠের ফসল বাড়ি তুলতে কৃষককে। রাস্তাটি সংস্কার এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি হলেও আজ পর্যন্ত ভোগান্তি লাঘবে কেউ এগিয়ে আসেননি। ভোটের সময় জনপ্রতিনিধিরা প্রতিশ্রুতি দিলেও শেষ পর্যন্ত কেউ কথা রাখেননি।

স্থানীয়রা জানান, সুন্দলপুর বাজার থেকে মোকমতলা খানপুর রাস্তাটির দুরত্ব প্রায় দুই কিলোমিটার। সুন্দলপুর বাজার থেকে ধলিগাতী হাইস্কুল পর্যন্ত আধা কিলোমিটার রাস্তায় ইটের সলিং রয়েছে। বাকি দেড় কিলোমিটার রাস্তা কাঁচা। রাস্তাটি শ্যামকুড় ও খানপুর দুই ইউনিয়ন যুক্ত করায় দিনরাত মানুষের চলাচল অব্যহত থাকে। এছাড়া এই রাস্তার পাশেই রয়েছে ধলিগাতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ধলিগাতী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ধলিগাতী মাদরাসা, রয়েছে মসজিদও। এই রাস্তায় নিত্য জামলা, ভরতপুর, খানপুর, চিনাটোলা ও নেহালপুর এলাকাসহ পূর্ব এলাকার কয়েক হাজার মানুষ যাতায়াত করে। এছাড়া স্থানীয় কৃষকদের ক্ষেতের ফসল ঘরে তুলতে ও বাজারে নিতে এই রাস্তাই একমাত্র ভরসা। কিন্তু বর্ষা মৌসুমে রাস্তাটি কাঁদায় ভরে যাওয়ায় এলাকাবাসীর ভোগান্তির সীমা থাকে না। সাইকেল, ভ্যান বা মোটরসাইকেল দূরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচলই সেখানে অতি কষ্টের।

আরও পড়ুন:  উৎপাদনেই যায়নি চিংড়ি খামার, বছরে দেয় লাখ টাকা লভ্যাংশ!

স্থানীয় জাকারিয়া নামে এক যুবক বলেন, রাস্তাটি গুরুত্বপূর্ণ হলেও তা সংস্কারে কেউ এগিয়ে আসেননি। ভোটের সময় আসলে অনেকে কথা দেন আমাদের ভোগান্তি লাঘব করবেন কিন্তু পরে আর কথা রাখেন না। এই রাস্তা সংস্কারের কথা মসজিদে উঠেও ঘোষণা দিয়েছিলেন জনপ্রতিনিধিরা। কিন্তু কাজ হয়নি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম বুলু বলেন, শুক্রবার (২১ আগষ্ট) আমি ওই রাস্তায় গিয়েছিলাম। আমি নিজেই হেঁটে আসতে পারছিলাম না। রাস্তাটি দ্রুত সংস্কার হবে বলে তিনি আশাবাদী।

শ্যামকুড় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি বলেন, ইউনিয়নের একটি মাত্র রাস্তা নিয়ে বড় সমস্যায় আছি। আর সেটি হচ্ছে সুন্দলপুর-খানপুর সংযোগ রাস্তা। ইতিমধ্যে রাস্তাটি সলিং হওয়ার জন্য অর্থ বরাদ্দ হয়েছে। করোনাকালীন দুর্যোগের কারণে কাজ বন্ধ আছে। 

আরও পড়ুন:  বাগেরহাটে ৭৬ জন সাংবাদিক পেল প্রধানমন্ত্রীর অর্থিক সহায়তার চেক

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 7
    Shares