প্রচ্ছদ এক্সক্লুসিভ

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধ’র্ষ’ণ করল প্রিয় শিক্ষক, অন্যকে বিয়ে করায় ছাত্রীর আ’ত্ম’হ’ত্যা

32
বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধ’র্ষ’ণ করল প্রিয় শিক্ষক, অন্যকে বিয়ে করায় ছাত্রীর আ’ত্ম’হ’ত্যা
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

আমার প্রিয় শিক্ষক বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিন বছর ধরে ধর্ষণ করার পরে আরেক ছাত্রীকে বিয়ে করে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করেছিলেন। এবং সেই ভাগ্যবান ছাত্রটি আমি নিজেই। আল্লাহ্ আমাকে ক্ষমা কর. কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ার এক কলেজ ছাত্র ফেসবুকে এই স্ট্যাটাসটি নিয়ে শনিবার সকালে ওড়না বেঁধে আত্মহত্যা করেছে।
পুলিশ সকাল দশটার দিকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ আড়াইশ শয্যা সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। এ সময় পুলিশ শিক্ষার্থীর লেখা আট লাইনের ফেসবুক স্ট্যাটাস উদ্ধার করে।

আত্মহত্যা করার আগে শিক্ষার্থী আরও লিখেছিল যে এই জাতীয় শিক্ষকের উচিত দেশের অন্য কোনও শিক্ষার্থীর জীবনে আসা উচিত নয়। সবাই আমাকে ক্ষমা করবে। এ জাতীয় শিক্ষক যেন দেশের অন্য কোনও শিক্ষার্থীর জীবনে না আসে। প্রত্যেকে আমাকে ক্ষমা করবে, আমি জানিনা যে সদ্য এসএসসি পাস করেছে এমন একটি মেয়েকে বিয়ে করার অর্থ কী। আমি ভদ্রলোক স্যারকে বিশ্বাস করি, তিনি যা বলেছিলেন আমি তা শুনেছি। যাইহোক, কমপক্ষে সে প্রথমে নিজের ব্যাখ্যা না দিয়ে নিচে নামেনি।

আরও পড়ুন:  শিক্ষার্থীদের বিশাল সুখবর জানালেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

কলেজ ছাত্রীর বাড়ি পাকুন্দিয়া উপজেলার সাইতকাহান গ্রামে। তিনি বাড়ি থেকে কিশোরগঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজে পড়াশোনা করতেন। তিনি ওই কলেজের গণিতের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তিনি ২০১ 2016 সালে কালিচাপড়া সুগার মিল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেছিলেন। তিনি যখন স্কুলে নবম শ্রেণিতে পড়তেন, তখন তিনি বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন গণিতের শিক্ষক রাসেল আহমেদের সাথে ব্যক্তিগতভাবে পড়াশুনা করতেন। রাসেল আহমেদ কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার নোয়াবাদ গ্রামের রহমত আলীর ছেলে। ব্যক্তিগতভাবে পড়াশোনা করার সময় তিনি এই শিক্ষকের সাথে একটি প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। একপর্যায়ে তারা বিয়ের প্রতিশ্রুতি পাওয়ার পরে শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। কিছুদিন আগে রাসেল গোপনে অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করেছিল। এ জাতীয় খবর জানার পরে শিক্ষার্থী হতাশায় ভুগছে। একপর্যায়ে ঘুমাতে না পেরে শনিবার সকাল আটটার দিকে তিনি গলায় স্কার্ফ জড়িয়ে আত্মহত্যা করেন।

আরও পড়ুন:  পেনশন নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত সেপ্টেম্বরেই কার্যকর

পাকুন্দিয়া থানার ওসি (তদন্ত) মো। শ্যামল মিয়া জানান, শনিবার সকাল আটটার দিকে কলেজ ছাত্রী তার স্ট্যাটাস ফেসবুকে পোস্ট করে আত্মহত্যা করে। ফেসবুকের স্ট্যাটাস আসার সাথে সাথেই তার এক আত্মীয়ের নজরে এলো ওই ছাত্রীর পরিবারকে। পরে পরিবারের সদস্যরা বাড়ির দরজা ভেঙে তাকে ছাদ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। আত্মহত্যার আগে শিক্ষার্থীর লেখা ফেসবুক স্ট্যাটাস উদ্ধার হয়েছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।

শিক্ষক রাসেল আহমেদকে মন্তব্যে পৌঁছানো যায়নি।

এদিকে স্থানীয়দের ব্যানারে উপজেলার পুলারঘাট বাজারে অভিযুক্ত রাসেল আহমেদকে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 7
    Shares