প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

কপিলমুনিতে সড়কে নছিমন-করিমনের অবাধ চলাচল

12
কপিলমুনিতে সড়কে নছিমন-করিমনের অবাধ চলাচল
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

এইচ এম এ হাশেম, কপিলমুনি

মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা মানছে না কেউই। প্রধান সড়ক গুলোতে নছিমন-করিমন বিরোধী অভিযান পরিচালনার কথা থাকলেও অজ্ঞাত কারণে মুখ থুবড়ে পড়েছে সে কার্যক্রম। ভ্রাম্যমান আদালত কর্তৃক এই অভিযান পরিচালিত হওয়ার কথা থাকলেও কার্যত এর সুফল পাওয়া যায়নি। কারণ অবৈধ ও পরিবেশ বিধ্বংসী নছিমন-করিমন, আলমসাধু. ভটভটি অবাধ চলাচলের কারণে দুর্ঘটনা যেন পিছু ছাড়ছে না। তবে কি কারণে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান জোরদার বা সফলতা পায়নি তা নিয়ে নানান প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হয় আইন আছে কিন্তু প্রয়োগ নেই। ফলে খুলনা-পাইকগাছার প্রধান সড়কে বীরদর্পে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে স্যালো ইঞ্জিন চালিত নছিমন, করিমন, আলম সাধু, ভটভটি, মহেন্দ্র ইত্যাদি। এদিকে নির্বিঘেœ এ অবৈধ যন্ত্র দানব চালতে প্রশাসনসহ স্থানীয় কয়েকজনকে দিতে হয় মাসোহারা।

সুত্রমতে প্রকাশ, গত কয়েক বছর যাবৎ স্যালো ইঞ্জিন দিয়ে স্থানীয় ভাবে তৈরী তিন চাকার নছিমন-করিমন, আলমসাধু, ভটভটি ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পায়। এসব অবৈধ যন্ত্রযান মহাসড়ক-অভ্যান্তরিন সড়কগুলোতে যাত্রী ও মালামাল বহন করে চলে আসছে দাপটের সাথে। যার নেই কোন সঠিক নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা, রুট পারমিটসহ বৈধতা। ফলে প্রায়ই যেমন দূর্ঘটনাসহ মানুষের প্রাণহানি ঘটে আসছে তেমনি এর কালো ধোয়া পরিবেশ ধ্বংস করছে। স্যালো ইঞ্জিন চালিত যন্ত্রযান নিয়ে সারা দেশে তোলপাড় ও আলোচনার ঝড় উঠলে নছিমন-করিমন বন্ধের দাবীতে বাস মালিক কর্তৃপ দফায় দফায় ধর্মঘট ও প্রশাসনের সাথে বৈঠকে বসেছেন অনেক বার। কিন্তু অদ্যবধি এর কোন সুরহা হয়নি বরং নছিমন-করিমন বন্ধের দাবীতে পরিবহন কর্তৃপ ধর্মঘট করলে সেদিনও বীরদর্পে মহাসড়ক গুলোতে চলাচল করেছে নছিমন-করিমন।
স্যালো পাম্পের ইঞ্জিন চালিত টেম্পু, ভটভটি, নছিমন, করিমন, ইজি বাইক ইত্যাদি যানবাহন ফিডার রোডের বাইরে সড়ক ও মহাসড়কে চলাচলের উপর বারবার নিষেধাজ্ঞা আনা হলেও কোন কাজে আসেনি।
এমতাবস্থায় উক্ত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য স্ব-স্ব থানার অফিসার ইনচার্জকে ভ্রাম্যমান আদালত ভিজিলেন্স টিমকে সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য পুলিশ সুপার, জেলার বিশেষ শাখা-খুলনা থেকে প্রত্যেক থানায় জরুরী বার্তা পাঠায়। অথচ ঘোষিত এ অভিযান মুখ থুবড়ে পড়েছে।
সূত্রের দাবী, আইনের চোখ ফাঁকি দিয়ে পাইকগাছাসহ পুলিশ প্রশাসন মাসোহারা আদায়ের মাধ্যমে যন্ত্রদানব নছিমন, করিমন, আলম সাধু, ভটভটি ইত্যাদি প্রধান সড়কে পরিচালনার সুযোগ দিচ্ছেন মহাসড়কে এই যন্ত্রদানব চলাচলের পেছনে পুলিশের কিছু অসৎ সদস্যের হাত রয়েছে। কপিলমুনিতে কয়েকজন ব্যক্তি নছিমন-করিমন পরিচালনার নামে প্রতিদিন ব্যপক চাঁদাবাজী করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এদের প্রধান সড়কগুলিতে চলার অনুমোদন না থাকলেও নিয়মিত মাসোহারা দিয়ে প্রধান সড়ক গুলোয় বীরদর্পে চলাচল করছে।

আরও পড়ুন:  গৃহবধুকে নগ্ন করে নির্যাতনের প্রতিবাদে খুলনায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রদল

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 4
    Shares