প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

মশিয়ালীতে গুলি করে তিনজনকে হত্যা মামলার আসামি বাবু রিমান্ড শেষে জেলহাজতে

16
মশিয়ালীতে গুলি করে তিনজনকে হত্যা মামলার আসামি বাবু রিমান্ড শেষে জেলহাজতে
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

স্টাফ রিপোর্টার

নগরীর খানজাহান আলী থানাধীন মশিয়ালী এলাকায় গুলি করে তিনজনকে হত্যা মামলার ১৩নং এজহারভুক্ত আসামি মো. আলমগীর সরদার ওরফে বাবু (২০) এর ৩দিনের রিমা- শেষে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে  আদালত।

গত ২৩ আগস্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. এনামুল হক আসামি বাবুকে আদালতে হাজির করে ৭দিনের রিমা-ের আবেদন করেছিলেন। আদালতের বিচারক মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট তরিকুল ইসলাম ৩দিনের রিমা-ের আদেশ প্রদান করেন। বাবু  মশিয়ালী গ্রামের মো. ইনছার আলির ছেলে। ২২ আগস্ট বিকেলে সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. এনামুল হক জানান,  মামলার এজহারভুক্ত আসামি হচ্ছে ২২জন। এ পর্যন্ত মোট ১০জনকে গ্রেফতার করা হলো। গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন মশিয়ালী গ্রামের মৃত. হাসান আলি শেখের ছেলে মো. জাফরিন শেখ (৩২), মো. মোকছেদ শেখের ছেলে মো. জাহাঙ্গীর শেখ (৩৫) ও মো. আলমগীর শেখ (৩৮), মো. কুরবান শেখের ছেলে মো. আরমান শেখ (২০), মৃত. আক্তার আকুঞ্জির ছেলে মো. রহিম আকুঞ্জি (২২), মো. ফারুকের ছেলে মো. রবিন (২০), মো. বাবুল শেখের ছেলে মো. মিঠু শেখ (৩৩) ও সবশেষ মো. মোকছেদ শেখের ছেলেমো. জুয়েল শেখ (৪০) ও তার ভাই মো. মুরাদ শেখ (৩২)। এদের মধ্যে জাফরিন শেখ, আরমান শেখ ও আলমগীর শেখ আগে আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। গতকাল জুয়েল ও তার ভাই মুরাদ স্বীকারোক্তি দিয়েছে। গ্রেফতার ৯জনকেই রিমা-ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।    পলাতক আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

আরও পড়ুন:  আইভি রহমানের মধ্যে কোনো অহমিকা ছিল না বলেই তিনি সভা সমাবেশে শ্রমিকের সাথে বসে থাকতেন: বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি

মামলার বিবরণে জানা যায়, ১৬জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মো. জাকারিয়া শেখ মশিয়ালী সিএন্ডবি’র ঘরের একটি কক্ষে ৩রাউন্ড বন্দুকের গুলি ও ২রাউন্ড পিস্তলের গুলি নিজে রেখে বাদীর চাচাতো ভাই মুজিবর শেখকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাদীসহ পাড়ার আরো কিছু লোক মুজিবরকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার কারণ জানতে জাফরিনদের বাড়ির সামনে যায়। এসময় তাদের সঙ্গে বাক-বিতন্ডার একপর্যায়ে মিল্টন শেখ গুলি করলে নজরুল শেখ মারা যায়। জাফরিন শেখ গুলি করলে গোলাম রসুল মারা যায়। জাকারিয়ার গলিতে আহত হয় বাদীর ছেলে সাইফুল। পরে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মারা যায় সাইফুল। তাদের অন্যান্য সহযোগিদের গুলিবর্ষণে বাদীসহ অন্যরা পালিয়ে যায়। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয় আফসার উদ্দিন, তার ছেলে রবি, শামীম, খলিল, রানা, সুজন শেখসহ আরো অনেকে। এঘটনায়  নিহত সাইফুলের পিতা  মো. শাহিদুল শেখ বাদী হয়ে  মশিয়ালী গ্রামের মৃত. হাসান আলি শেখের ৪ছেলেসহ ২২জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরো ১৫/১৬জনকে আসামি করে খানজাহান আলী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন যার নং-১২।

আরও পড়ুন:  মহিশাডাঙ্গা এলাকা থেকে ২৯০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ এক নারী মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 6
    Shares