প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

আড়াই লাখ টাকা হেলিকপ্টার ভাড়ায় ২ লাখ টাকার ত্রাণ!

40
পড়া যাবে: 3 মিনিটে

দেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যার ভয়াবহতা কেটে যাওয়ার পর নিজের নির্বাচনী এলাকা লালমনিরহাটে দুর্গতদদের মাঝে ত্রাণ দিতে গিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান জিএম কাদের। শুধু তাই নয়, হেলিকপ্টারে ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে তোপের মুখে পড়েছেন জাপার নবাগত চেয়ারম্যান।

শনিবার দুপুর ১টায় সদর উপজেলার কাজীর চওড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে জিএম কাদেরকে নিয়ে অবতরণ করে মেঘনা এভিয়েশনের চার আসনের হেলিকপ্টারটি।

স্থানীয়রা জানান, জুলাই মাসের প্রথম সাপ্তাহে পর পর দুই দফার বন্যায় পানিবন্দি হয়ে পড়ে লালমনিরহাটসহ আশেপাশের কয়েকটি জেলার কয়েক লাখ মানুষ। কিন্তু জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা দুর্গতদেরর কোনো খোঁজ নেননি। এলাকায় আসেননি সদর আসনে নির্বাচিত সংসদ সদস্য জাপা চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

এ নিয়ে খোদ দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যেই চাপা অসন্তোষ দেখা যাচ্ছিল। এই পরিস্থিতিতে ত্রাণ বিতরণে গিয়ে নতুন করে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন কাদের। এই আলোচনা হচ্ছে ভাড়ায় হেলিকপ্টার নিয়ে গিয়ে ত্রাণ বিতরণের কারণে।

আরও পড়ুন:  নিজের হাতে লাগানো লিচু গাছের নিচে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় এরশাদের দা*ফন সম্পন্ন

বলা হচ্ছে, জিএম কাদের আড়াই লাখ টাকারও বেশি ভাড়ায় হেলিকপ্টার নিয়ে বন্যাকবলিত এলাকায় এলেও দুর্গতদের (লালমনিরহাট ও পার্শ্ববর্তী জেলা কুড়িগ্রামে) যে ত্রাণ দিয়েছেন, তা সাকুল্যে দুই লাখ টাকার বেশি হবে না। অনেকে এটাকে খাজনার চেয়ে বাজনা বেশি প্রবাদের উদাহরণও বলছেন।

এদিকে কাজিচওড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে হেলিকপ্টারযোগে নামার পর প্রশাসনের গাড়িতে করে নিকটস্থ রাজপুর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে যান জিএম কাদের। সেখানে ৫০০ পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করেন কাদের। যদিও সেই চাল পরিমাপ করে অনেকেই ৮-৯ কেজি করে পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন। একইভাবে চাল দেওয়া হয়েছে কুড়িগ্রামের ৫০০ বন্যার্ত পরিবারের মাঝেও।

হেলিকপ্টারের ভাড়া প্রসঙ্গে জি এম কাদেরকে বহনকারী সংশ্লিষ্ট এভিয়েশনের হেলিকপ্টারটির পাইলট ক্যাপ্টেন ইসলাম ও রেজা বলেন, ঢাকা থেকে লালমনিরহাটে আসতে সোয়া ঘণ্টার মতো লাগে একটি হেলিকপ্টারের। এ বাহনের ফ্লায়িংয়ের ভাড়া ঘণ্টাপ্রতি লাখ টাকা এবং অপেক্ষা ঘণ্টাপ্রতি ৫ হাজার টাকা ধরা হয়। তবে এই ট্রিপের (জিএম কাদেরের ভাড়া) খরচ ঢাকায় গিয়ে নির্ধারণ করা হবে। পাইলটের তথ্য অনুসারে, আসা-যাওয়া ধরলে আড়াই ঘণ্টায় ভাড়া আসে আড়াই লাখ টাকা।

আরও পড়ুন:  মনোনয়ন দ্বন্দ্বে ঈশ্বরগঞ্জে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে আ’লীগের হামলা

ত্রাণ বিতরণস্থলে থাকা কয়েকজন জানায়, দুই জেলায় ৫০০ করে ১০০০ পরিবারের মধ্যে ১০ কেজি করে ১০ হাজার কেজি (প্রায় ১০ টন) চাল দেওয়া হয়েছে। যদি ধরা হয়, তাহলে খোলা বাজারে এ প্রকারের চাল প্রতিটন ২০ হাজার টাকা ধরলে খরচ আসে দুই লাখ টাকা। অর্থাৎ দুই জেলা মিলিয়ে জিএম কাদের ত্রাণ দিয়েছেন দুই লাখ টাকার। এই দুই লাখ টাকার ত্রাণ বিতরণের জন্য তিনি হেলিকপ্টার ভাড়াই দিয়েছেন আড়াই লাখ টাকার বেশি।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট