প্রচ্ছদ উদ্যোক্তা

সল্প বিনিয়োগে শুরু করুন টিস্যু তৈরীর ব্যবসা!

27
সল্প বিনিয়োগে শুরু করুন টিস্যু তৈরীর ব্যবসা!
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

সল্প বিনিয়োগে শুরু করুন টিস্যু তৈরীর ব্যবসা!

বর্তমান সময়ে মানুষের জীবনযাত্রায় এসেছে আমূল পরিবর্তন। করোনাভাইরাসের কারণে এখন আমরা গৃহবন্দী এবং সাথে এই ভাইরাস থেকে বাঁচতে পরিচ্ছন্নতার দিকে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করে চলেছি সকলে। এই পরিস্থিতিতে সমগ্র দেশের বাজারে বেশ কয়েকটি সামগ্রীর চাহিদা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। এই সামগ্রীগুলির মধ্যে সর্বাধিক চাহিদা এখন টিস্যু ন্যাপকিনের।

টিস্যু পেপারের চাহিদা হোটেল হোক বা অফিস, সব জায়গাতেই রয়েছে। তবে, এই ভাইরাসের পর থেকে এখন এটি মানুষের জীবনের আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সুতরাং, সাম্প্রতিক পরিস্থিতির ভিত্তিতে কাগজের ন্যাপকিনের ব্যবসা শুরু করা একটি অত্যন্ত ভাল বিকল্প হতে পারে এবং সরকারও আপনাকে এতে সহায়তা করবে। আসুন জেনে নেওয়া যাক আপনি কীভাবে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

বিনিয়োগকৃত রাশি: বাজারে টিস্যু পেপারের ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনায়, ভবিষ্যতে এই ব্যবসায়ের আরও উন্নতির ভাল সুযোগ রয়েছে। আপনি যদি এই ব্যবসাটি শুরু করার কথা ভাবেন, তবে আপনাকে প্রথমে নিজের থেকে ৩.৫০ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। এর পরে আপনি যে কোনও ব্যাংক থেকে সহজেই মুদ্রা লোণের আওতায় লোণের জন্য সহজেই আবেদন করতে পারবেন। লোণ অনুমোদনের পড়ে আপনি মেয়াদী লোণ হিসাবে প্রায় ৩ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং কার্যনির্বাহী মূলধন লোণের আওতায় ৫.৩০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোণ পাবেন।

আরও পড়ুন:  অল্প পুজিতে ফলের ব্যবসা লাভজনক!

কোটি টাকার টার্নওভার: এই ব্যবসাটি শুরু করার সাথে সাথে আপনি বার্ষিক ১.৫০ লক্ষ কেজি টিস্যু উৎপাদন করতে পারবেন। আপনি যদি সীমিত পরিমাণের চেয়ে বেশি টিস্যু উত্পাদন করতে চান তবে আপনাকে অনুমোদন নিতে হবে। কেজি প্রতি ৬৫ টাকা দরে উৎপাদিত ​​ন্যাপকিন বাজারে বিক্রি করতে পারেন।

যদি বার্ষিক ১.৫০ লক্ষ কেজি টিস্যু আপনি উত্পাদন করেন, তবে আপনার টার্নওভার ৬৫ টাকা কেজি প্রতি হিসাব করলে উপার্জন দেখা যাবে প্রাযজন ৯৭.৫০লক্ষ টাকা। উপার্জিত টাকা থেকে উত্পাদন ব্যয় অপসারণ করলে দেখা যাবে আপনার বার্ষিক সঞ্চয় প্রায় ১০ থেকে ১২ লক্ষ টাকা। অনুমোদন নিয়ে বড় আকারে ব্যবসা শুরু করলে লাভের পরিমাণ আরও বেশী।

আরও পড়ুন:  ১৪ টি শাড়ী বিক্রির টাকাই ব্যবসার প্রথম পুঁজি

এটির জন্য ব্যয়কৃত রাশি: এই ব্যবসাটি শুরু করতে, যন্ত্রপাতি এবং অন্যান্য সরঞ্জাম ক্রয় করতে এককালীন ব্যয় হবে প্রায় ৪.৪০ লক্ষ পর্যন্ত টাকা, কাঁচামালের জন্য ৭.১৩ লক্ষ এবং অন্যান্য ব্যয়ের জন্য অর্থাৎ পরিবহন, স্টেশনারী, রক্ষণাবেক্ষণ, বিদ্যুতের বিল ইত্যাদির ব্যয় সহ মোট ১১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে হবে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 4
    Shares