প্রচ্ছদ এক্সক্লুসিভ

বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী জিয়াউর রহমান, আপনি কোথায়?

16
বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী জিয়াউর রহমান, আপনি কোথায়?
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

আনোয়ার বারী পিন্টু

মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমানের ১৯ দফার স্বপ্নে আঁকা দল বিএনপি। বেগম খালেদা জিয়াও একই পথে হেঁটেছিলেন। সময় যেমন সৃষ্টিতে এগিয়ে যায় তেমনি নানা অযত্নে-অবহেলায় বিশাল খর স্রোতা নদীতেও চর জাগে। দলটিরও কি তাই হয়েছে। সব কিছু পাল্টে দিয়ে এখন কূটিল নেতারাই সব, সংগঠন কেবল পদ্ম পাতার জল।জিয়াউর রহমান, বিভ্রান্তির এই সময়ে আজ তোমাকে বেশী মনে পড়ে। তোমার সহধর্মিনী, খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের দিন তোমাকে ভীষন অনুভব করেছি। জানি না তখন কোথায় ছিলে, কেন এলে না!সবচেয়ে বেশ মনে পড়েছে সংলাপ ব্যর্থ হওয়ার পর। তুমি থাকলে আন্দোলনের অংশের নামে হয়তো নির্বাচনে যেতে হতো না। ‘আন্দোলন বাদে বাকি সব কিছুই আন্দোলনের অংশ’ এমন চাণক্য পাঠ অন্তত কর্মীদের গিলতে হতো না।তুমি বলেছিলে, ‘প্রশিক্ষিত কর্মীরাই দলের প্রাণ’। কিন্তু আজ আগাগোড়ায় তার উল্টো। ফলে মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে প্যারালাইজড এডভোকেট সানা উলাহ মিয়া বিদায় নিয়েছেন। ভালো নেই দলের অন্তপ্রাণ আরো অনেকেই। হ্নদয়ে তাদের আজ টপ টপ রক্ত!তুমি বলেছিলে, ‘ব্যক্তির চেয়ে দল বড়’। অথচ এখন দলের চেয়ে ব্যক্তিই বড় হয়ে আছে। বিএনপিতে অনেকেই পাঁচ-দশ বছর একই পদ দখলে নিয়ে আছেন, কেউ জেলা সভাপতি, একই সাথে কেন্দ্রীয় সম্পাদক আবার অঙ্গদলের শীর্ষ নেতা। অথচ কর্মীদের বড় একটি অংশই পরিচয়হীন। পরীক্ষিতদের দুরে ঠেলে ভেসে আসা নব্যদের হাতে পদ পদবি তুলে দেয়া হয়েছে।তুমি বলেছিলে, ‘ধর্মকে কেন্দ্র করে কোন রাজনীতি হতে পারে না’। অথচ ইসলামী মূল্যবোধের দোহাই দিয়ে বিএনপিতে জাতীয়তাবাদের মৌলিকতা ধ্বংস করে দেয়া হচ্ছে।তুমি বলেছিলে, ‘বিএনপিতে কোন পক্ষ নেই। আমরা ডানের বামে, বামের ডানে’। অথচ কয়েক পন্ডিত বিএনপিকে ‘ডানপন্থি’ বলে ব্যাকেটে বন্দি করে রেখেছে। তুমি শিল্পী, সাহিত্যিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বদের কাছে বার বার ছুটে গিয়েছিলে। অথচ বরেণ্য শিল্পী, সাহিত্যিকরা এখন নানাভাবে অবহেলিত। ফলে বেগম জিয়ার জেল জীবনের যে চিত্র দেশেই হবার কথা তা চীনের কার্টুনিস্টকে করতে হয়েছে।চেয়াপার্সন অন্ধকার প্রকোষ্ঠে বছর পার করেছে। হাজারো কর্মী কারাগারের দেয়ালের খসে পড়া পলেস্তার টুকরো দিয়ে মমতাময়ী মায়ের ছবি আঁকছেন! সন্তান সম্ভবা প্রিয়তম বউকে একা ফেলে রেখেই কেউ জেলে এসেছেন। অন্ধকারে প্রতিরাতে নিজের ফুটফুটে সন্তানকে মনে হলে লোহার ডান্ডাবেড়ি জড়িয়ে ধরা ছাড়া তাদের আর এখন কিইবা করার আছে? তাদের কেন্দ্রীয় নেতারা রাজপথে নেই।মনে আছে, নয়া পল্টনে দলের মনোনয়ন নিতে লম্বা লম্বা মিছিলের নকল জোয়ার উদয় দেখে তখনই সংশয় জেগেছিলো মনে। মনোনয়ন ভাগানো নাদুস নুদুস চেহারার পরিপাটি মানুষের উজান গুলো আজ কোথায়? মহাসচিব সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন না। তাই সব ব্যর্থতাকে তিনি কৌশল বলছেন। ‘আন্দোলন ছাড়া বাকী সব কিছুই তাঁর কাছে আজ আন্দোলনের অংশ’। রাজনীতির কৌতুকপ্রদ এই সময়ে তুমি কোথায় আছো? ঐশ্বরিকভাবেই কত কিছুইতো ঘটে। তুমি কি আসতে পারো না। কর্মীরা তোমার অপেক্ষায়।লেখক- সদস্য, ন্যাশনালিস্ট রিসার্চ সেন্টার।

আরও পড়ুন:  সত্যকে মিথ্যা আর মিথ্যাকে সত্যে পরিণত করার বৈজ্ঞানিক সূত্রাবলি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 8
    Shares