প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

লামিয়ার গুলিবিদ্ধ পায়ে সফল অস্ত্রোপচার

21
খুলনায় ঠিকাদারদের বিরোধে স্কুলছাত্রী গুলিবিদ্ধ
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

স্টাফ রিপোর্টার, আহাদ আলী

খুলনা নগরীতে ঠিকাদারের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলিতে আহত ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী লামিয়ার (১৩) পায়ে অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে।
সোমবার (৩১ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে প্রায় দুই ঘণ্টার অপারেশনের পর তার পা থেকে গুলিটি বের করা হয়।
এদিকে, ঠিকাদার শেখ ইউসুফ আলীর গুলিবর্ষণের কারণ হিসেবে ভিন্ন বিষয় জানা গেছে। মেয়ের প্রেমিক ও প্রেমিকের তিন বন্ধু বাড়িতে গেলে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি গুলি ছুঁড়েছিলেন। ওই গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে লামিয়ার বাম পায়ে বিদ্ধ হয়।
ইউসুফ আলীর দায়ের করা চাঁদাবাজির মামলায় মেয়ের প্রেমিকাসহ চার যুবককে পুলিশ গ্রেপ্তারের পর এই তথ্য প্রকাশ পায়।
খুমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুন্সি রেজা সেকেন্দার বলেন, খুমেকের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেয়াজ ও ডা. অনুপ কুমার মজুমদারের তত্ত্বাবধানে পায়ে সফল অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।
গ্রেপ্তার চার যুবক হলেন, যশোরের কেশবপুর উপজেলার মো. মোস্তফা বিশ্বাসের ছেলে মোহাম্মদ আবু সাঈদ ওরফে শাহেদ (২২), বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার মল্লিক আব্দুল হাইয়ের ছেলে মো. ইসমাইল মল্লিক (২৭), খুলনার কয়রা উপজেলার শেখ হাবিবুর রহমানের ছেলে মো. মেহেদী হাসান (২১) ও খুলনার দৌলতপুর থানার ৬নং ওয়ার্ডের মো. মিজানুর রহমান শেখের ছেলে মো. সাইফুল ইসলাম (২৩)।
মামলায় ওই যুবকদের চাঁদাবাজ ও দুষ্কৃতকারী উল্লেখ করা হয়। মামলায় অভিযোগে বলা হয়, ঠিকাদার ইউসুফ আলী খুলনা নগরীর বাবু খান রোডের সংস্কারের কাজ পেয়েছেন। কিছু দুষ্কৃতকারী এ কাজের জন্য তাকে চাপ দিচ্ছিলেন। দুষ্কৃতকারীরা কাজটা কিনতে চান। শুক্রবার (২৮ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তারা চাঁদা চাইতে বাড়িতে গেলে লাইসেন্স করা বন্দুক দিয়ে ইউসুফ আলী গুলি ছোড়েন।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, ওই যুবকদের কাছে অস্ত্র ছিল না। তারা চাঁদাবাজ বা দুষ্কৃতকারী নন। তারা ঠিকাদারের মেয়ের প্রেমিক ও তার তিন বন্ধু। তাদের পরিচয় পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে হুমকি দেন ইউসুফ আলী। পরিস্থিতি খারাপ হবে বুঝে বাড়ির লোকেরা তাদের বের হয়ে যেতে বলেন। তারা বের হতে না হতেই পিস্তল হাতে বেরিয়ে পড়েন ইউসুফ আলী। তখনই তিনি তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন।
গ্রেপ্তার সাইফুল ইসলামের মামা মো. সোহেল বলেন, তার ভাগিনা ও তার বন্ধুদের ওপর বেআইনিভাবে গুলি ছুড়েছেন ঠিকাদার ইউসুফ। আবার তাদের বিরুদ্ধেই চাঁদাবাজির মামলা করেছেন। তারা বিষয়টি আইনিভাবে মোকাবেলা করবেন।
ঠিকাদার ইউসুফ আলীর বাড়ির সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ওই চার যুবক স্বাভাবিকভাবে দরজা দিয়ে বের হয়ে যাচ্ছিলেন। তখন পিস্তল নিয়ে ছুটে আসেন ইউসুফ। মেয়ের মামা গুলি করতে বাধা দেন। কিন্তু তাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে ইউসুফ গুলি ছোড়েন এবং সিঁড়ি দিয়ে তাদের পিছু ধাওয়া করতে থাকেন। ঠিক তখন পিস্তলের ছোড়া গুলি লামিয়ার বাম পায়ে বিদ্ধ হয়।
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার কানাই লাল সরকার জানান, খুলনার বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে চার আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আসল রহস্য উদঘাটনে আরও তদন্ত করা হবে বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন:  জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 6
    Shares