প্রচ্ছদ রাজনীতি বিএনপি

দেশে গণতন্ত্র ফেরানোই বিএনপির এখন ‘বড় চ্যালেঞ্জ’: মির্জা ফখরুল

10
দেশে গণতন্ত্র ফেরানোই বিএনপির এখন ‘বড় চ্যালেঞ্জ’: মির্জা ফখরুল
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনাকেই বিএনপি এই মুহূর্তে ‘সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ’ মনে করছে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টায় বিএনপি’র ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের শের-ই-বাংলা নগরস্থ সমাধিতে দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন ও ফাতেহা পাঠ শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।  

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এখন আমাদের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করা। বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে এ দেশ একাত্তর সালে যে চেতনা নিয়ে লড়াই-সংগ্রাম করেছিলো- একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র নির্মাণ করা, মানুষের অধিকার ফিরিয়ে দেয়া, এখন আমাদের সেই জায়গায় ফিরে যেতে হবে। গণতন্ত্রকে আবার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।’

‘আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে হরণ করেছে এবং জনগণের সব অধিকার কেড়ে নিয়েছে’- বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল। 

ক্ষমতাসীন সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘যে ভয়াবহ একদলীয় শাসনব্যবস্থা ফ্যাসিজমের কায়েম করেছে বর্তমান সরকার, তার বিরুদ্ধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে এবং দেশে জনগণের শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে হবে।’

আরও পড়ুন:  স্কুল ছাত্রীর শয্যাপাশে বিএনপি নেতা মঞ্জু

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনাই বিএনপি’র বড় চ্যালেঞ্জ। এই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমাদের এখন একটাই লক্ষ্য গণতন্ত্র উদ্ধার করা এবং দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা। আর আমরা বিশ্বাস করি, সরকারের শুভবুদ্ধির উদয় হবে এবং মিথ্যা হয়রানির মামলা থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমান যে রাষ্ট্রব্যবস্থা, এই রাষ্ট্রব্যবস্থা হচ্ছে একটা এক নায়কতান্ত্রিক, স্বৈরাচারী, ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্র ব্যবস্থা। এখানে যেহেতু জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল বা গণতান্ত্রিক অধিকার নেই, সে কারণেই এই জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়ার সুযোগটা অনেক সীমিত হয়ে গেছে। সেজন্যই জনগণকে এখন আমাদের উদ্বুদ্ধ করে কাজের মধ্যে যেতে হবে।’

এর আগে মির্জা ফখরুলের নেতৃত্বে জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা জিয়ার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। পরে প্রয়াত নেতার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করেন।

আরও পড়ুন:  বিনাভোটের সরকার ‘অনিয়ন্ত্রিত’ হয়ে গেছে: সারোয়ার

এসময় নেতৃবৃন্দ প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। দেশ ও জাতির শান্তি, দলীয় চেয়ারপারসন অসুস্থ খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য কামনায় দোয়া মোনাজাত করেন।

পরে মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতাদের নিয়ে জিয়ার কবরে পুস্পমাল্য অর্পণ করেন দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। 

এসময় দলের যুগ্ম-মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদসহ যুবদল, ছাত্রদল, তাঁতীদল, মহিলা দল ও বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। 

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 7
    Shares