প্রচ্ছদ রাজনীতি বিএনপি

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে রাজশাহী জেলা বিএনপি’র আলোচনা সভা

12
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে রাজশাহী জেলা বিএনপি’র আলোচনা সভা
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজশাহী জেলা বিএনপি নানা কর্মসূচি পালন করছে। মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) নগরীর পদ্মার পাড়ে একটি কমিউনিটি সেন্টারে আলোচনা সভার আয়োজন করেন তারা। আলোচনার আগে বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে দিনের কর্মসূচির শুভ সূচনা করেন প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এছাড়াও তারা জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন ও শান্তির দূত পায়রা উড়ান। এরপর শুরু হয় আলোচনা সভা। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম মার্শাল। প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও রাজশাহী জেলা বিএনপি’র আহবায়ক আবু সাঈদ চাঁদ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব অধ্যাপক বিশ্বনাথ সরকার।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপি’র সদস্য সাবেক এমপি জাহান পান্না, শেখ মকবুল হোসেন, মিজানুর রহমান মিজান, জিয়াউর রহমান জিয়া, সাইদুর রহমান, নুরুজ্জামান খান, জাকীরুল ইসলাম বিকুল, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম তোতা, জেলা মহিলা দলের সভাপতি এ্যাডভোকেট সামসাদ বেগম মিতালী, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা বেগম, প্রচার সম্পাদক উম্মে হানি, দপ্তর সম্পাদক রোমেলা হোসেন ও জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি রবিউল ইসলাম কুসুমসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়নের ২৩টি ইউনিটের নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ জনগণ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:  বিএনপিকে ‘হামলা-মামলায়’ দমানো যাবে না: জাহাঙ্গীর

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চাঁদ বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ছিলেন স্বাধীনতার ঘোষক, মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক ও বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি। তিনি যদি বাকশাল রুদ্ধ করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা না করতেন তাহলে এদেশে আর কোনো রাজনৈতিক দল রাজনীতি করতে পারত না। প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কারণেই আজ শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। তিনি বিনা ভোটে প্রধানমন্ত্রী হয়ে দেশকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দলীয়করণ করে একতরফা দেশ পরিচালনা করছেন।

তিনি আরো বলেন, দেশে কোন প্রকার গণতন্ত্র নাই। সেই বাকশাল আবার কায়েম করেছেন এই ফ্যাসিস্ট ও রাতের ভোটের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি দেশকে আবার শত বছর পিছিয়ে নিয়ে গেছেন। দলীয় নেতা ও আমলারা হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করে বিদেশে পাচার করেছে। করোনা ভাইরাস পরীক্ষা নিয়েও সরকারের আমলা ও দলীয় নেতারা দুর্নীতি করেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সরকারের মদদে সাধারণ মানুষের উপরে খড়গ তুলে রেখেছে। বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড চলমান রয়েছে। এই সরকারের পুলিশের রাহুগ্রাস থেকে আর্মি অফিসারও রেহাইপাচ্ছে না।

আরও পড়ুন:  দেশজুড়ে ছাত্রলীগ-যুবলীগের ধর্ষণ মহামারি : ড. মোশাররফ

চাঁদ আরো বলেন, সরকার ডিজিটাল আইন করে সাংবাদিকদের কলম এবং মানুষের কণ্ঠ রোধ করে দিয়েছে। যতই অন্যায় অবিচার করুন কোন কথা বলা যাবে না। বললেই আটক করে তাকে অমানবিক নির্যাতন, হত্যা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে অনেক যুবক ও মানুষের প্রাণ নষ্ট করে দিয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার জামিন প্রায় শেষে দিকে। তাকে স্থায়ী জামিন বা খালাস না দিয়ে পুনরায় জেলে পাঠানোর পাঁয়তারা করছেন সরকার। বেগম খালেদা জিয়াকে যদি আবার কারাগারে নেয়া হয় তাহলে তার ফল হবে ভয়াবহ। কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলে তাকে মুক্ত করা হবে। 

বক্তব্য শেষে বেগম জিয়ার সুস্থতা কামনা, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানসহ তার পরিবারের মৃত সদস্য ও সকল মৃত মুসলিম ব্যক্তির আত্মার মাগফেরাত এবং মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 6
    Shares