প্রচ্ছদ প্রবাস

জনশক্তি প্রেরণ খাতের উন্নয়নে বায়রাকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: সচিব ড. সালেহীন

11
জনশক্তি প্রেরণ খাতের উন্নয়নে বায়রাকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে: সচিব ড. সালেহীন
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন বলেছেন, সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ের শক্ত অবস্থান বারবার বলা হলেও, আপনারা সেই প্রশ্ন উঠান। মালয়েশিয়া শ্রমবাজারে আর ১০ জনের সিন্ডিকেট হবে না। তিনি বলেন, রিক্রুটিং এজেন্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ গুরুতর হলে সার্ভার লক করা উচিত। সচিব ড. সালেহীন বলেন, বায়রা ঐক্যবদ্ধ না বলেই নানা সমস্যা হচ্ছে। বায়রার মধ্যে ঐক্য জরুরি। নয়তো পাল্টাপাল্টি অভিযোগ থাকবেই। তিনি বলেন, আপনারা ১০ জন লোকের তালিকা দেন। যাদের সাথে বৈঠক করে মাস্টারপ্লান নিয়ে কাজ করবো। প্রয়োজনে বারবার আলোচনায় বসবো। করোনার কারণে যারা লাইসেন্স  নবায়ন করতে পারছেন না তাদের জরিমান ছাড়া কিভাবে সুযোগ দেয়া যায় তা ভেবে দেখা হবে বলেও আশ্বাস দেন সচিব।

বায়রার সাবেক সভাপতি নুর আলী বলেন, মন্ত্রণালয়কে ডিজিটাল হতে হবে। আধুনিক হতে হবে। বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে মন্ত্রণালয়কে বিনিয়োগ করতে হবে। বিনিয়োগ ছাড়া পরিবর্তন সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে বায়রাকে সাথে নিয়ে একটি কমিটি করে নতুন বাজার খোলার বিষয়ে কাজ করতে হবে মন্ত্রণালয়কে। তিনি বলেন, কোন রিক্রুটিং এজেন্সির অপরাধ প্রমাণ হওয়ার আগে তার সার্ভার লক করা ক্ষমতার অপব্যবহার। এটা মন্ত্রণালয় পারে না। এটা অনৈতিক। পারফরমেন্স অনুযায়ি এজেন্সিকে সুবিধা দেয়া উচিত। কিন্তু ক্লাসিফিকেশন না করার পক্ষে মত দেন বায়রার সাবেক এই সভাপতি। নূর আলী বলেন, বিএমইটিকে অনেক টাকা দিয়েছে এজেন্সিগুলো কিন্তু মন্ত্রণালয় বা বিএমইটি কী করেছে?

মন্ত্রণালয় কী করেছে নূর আলীর প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, “মন্ত্রণালয় বা বিএমইটি ছিল বলেই নূর আলী তৈরি হয়েছে। এটি একটি উদাহরণ দিলাম মাত্র। কেউ যখন ঐ প্রান্ত থেকে আঘাত করে কথা বলেন, আমরা এই প্রান্ত থেকে সুখ অনুভব করি না। আপনি অনেক আবেগঘন বক্তব্যে দিয়েছেন তবে মিস ইনফরমেশন আছে। আপনার অনেক অবদান আছে সেটা ঠিক কিন্তু ভুল তথ্য দেবেন না। বায়রার মহাসচিব মন্ত্রী সচিবকে যতোটা উপরে উঠিয়েছিলেন, নূর আলী ভাই ততোটা নিচে নামিয়েছেন।”

আরও পড়ুন:  আবুধাবি বিমানবন্দরে ১৩২ যাত্রী আটকা পড়েছেন

রিক্রুটিং এজেন্সিস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-রাওয়াব আয়োজিত এক আলোচনায়  এসব কথা বলেন তারা। রাওয়াব সভাপতি ফখরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বায়রার সাবেক ও বর্তমান নেতারা।

প্রবাসী কল্যাণ সচিব বলেন, বায়রার সদস্য মাত্র ১২০০ আর লাইসেন্স ১৮০০। কেন অন্যরা সদস্য হন নাই। এখানে অভিযোগ আছে, সদস্য হতে পাঁচ লাখ টাকা চাওয়া হয়। এটাকে এক লাখ টাকা করেন না কেন? বিধিতে আছে বায়রার সদস্য না লাইসেন্স পাবে না। কিন্তু সেটা কেন কার্যকর করতে পারছেন না? আবার মাঠ পর্যায়ের দালালদের আইনের আওতায় আনার জন্য সংসদীয় কমিটি তাগাদা দিচ্ছে। কিন্তু আপনারা সেটা করছেন না। আপনারা সেটাতে আগ্রহী নন। সেটা বাস্তবতা। আপনাদের ভালো খবরগুলো কেন মানুষ জানে না। এটা আপনাদের সমস্যা। সৌদিতে ৪/৫ জন নারী নির্যাতিত হলে হেডলাইন হয় কিন্তু এতো কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছেন, ভালো কাজ করছেন সেটা কেন মানুষ জানতে পারে না?”

শ্রম অভিবাসন বিশ্লেষক হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, শুধু মালয়েশিয়া কেন, সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শ্রমবাজার আছে। সেখানে নজর দেয়া উচিত। এজেন্সিগুলো নতুন নতুন বাজার খোঁজ করতে পারে। মালয়েশিয়া যেই ১০ রিক্রুটিং এজেন্সি কর্মী পাঠিয়েছে তাদের কাছে থেকে কর্মী প্রতি ৩ বা ৫ হাজার টাকা করে নিয়ে অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল এজেন্সি মালিকদের সহায়তার দেয়া যায় কিনা-সেই প্রস্তাব করেন তিনি। বিদেশে কর্মীরা নির্যাতিত হলে নিয়োগদাতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয় না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আরও পড়ুন:  পাপুলের আটকাদেশ আরো ১ মাস বাড়িয়েছে কুয়েত সুপ্রিম কোর্ট

অভিবাসন বিষয়ক সাংবাদিক মিরাজ হোসেন গাজী বলেন, বায়রাকে সেক্টরের মান বৃদ্ধিতে কাজ করতে হবে। যেই সেক্টর বছরে আট লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছে সেই খাতের মর্জাদা নেই কেন- তা খুঁজে বের করতে হবে। নীতিনির্ধারকরা নিজেদের ব্যবসায়িক স্বার্থ চিন্তা করেন বলেই সেক্টরের উন্নতি হচ্ছে না বলেও মনে করেন মিরাজ হোসেন গাজী। করোনার আগে বিদেশ পাঠানো কর্মীরা ফেরত আসলে তাদের দিয়িত্ব কে নেবে- সেটা নিয়ে এখনই কাজ শুরু করতে হবে। মন্ত্রণালয় ও বায়রা মিলে কমিটি করে এই কর্মীদের বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা বের করতে হবে বলেও পরামর্শ তার। তিনি বলেন, ১৮০৬ টি রিক্রুটিং লাইসেন্সের মধ্যে ৩০০ লাইসেন্স উধাও হয়ে গেছে। আবার ১৫০০ লাইন্সের মধ্যে বায়রার সদস্য মাত্র ১১৯৯টি। বাকিরা তাহলে কোন পরিস্থিতিতে আছে- সেই প্রশ্ন রাখেন তিনি।

বিস্তারিত আসছে…….

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 9
    Shares