প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

কুষ্টিয়ায় ভয়ঙ্কর প্রতারক চক্রের নেতৃত্বে শহর যুবলীগ নেতা সুজন

41
কুষ্টিয়ায় ভয়ঙ্কর প্রতারক চক্রের নেতৃত্বে শহর যুবলীগ নেতা সুজন
পড়া যাবে: < 1 minute

কুষ্টিয়ার এক সময়ের ছাত্রদল নেতা আশরাফুজ্জামান সুজন। দল বদলে যুবলীগে এসে সরাসরি হয়ে যান কুষ্টিয়া শহর যুবলীগের আহ্বায়ক।
মাত্র তিন বছরে জমি দখল-চাঁদা-টেন্ডারবাজি-চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণাসহ নানা অপকর্মে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন স্থানীয়রা। তার দাপটে বিরক্ত পুরনো যুবলীগ নেতারা ও। অবেশেষে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণার লাপাত্তা তিনি। এরই মধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছে তার ৫ সহযোগী।

২০১৭ সালের আগেও ছাত্রদল নেতা ছিলেন কুষ্টিয়ার মিলপাড়ার আশরাফুজ্জামান সুজন। স্থানীয়রা বলছেন সেই কমিটি এখনো বহাল। পদত্যাগ না করেই রাতারাতি শহর যুবলীগের কমিটি বাতিল করে নিজেকে আহ্বায়ক ঘোষণা করে নতুন কমিটি করে আনেন।

অভিযোগ- তখনকার যুবলীগ সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরীকে মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে বনে যান যুবলীগ নেতা। যুবলীগ নেতা সুরুজ জানান,’তার নামে নান অভিযোগ ছিল, অন্য দল থেকে অনুপ্রবেশকারী হিসেবেও অভিযোগ ছিল। সে বাড়ি দখল, এনআইডি জালিয়াতির সঙ্গেও জড়িত।’

আরও পড়ুন:  কুষ্টিয়ায় ঘাতক ট্রাক ড্রাইভার জিয়াউরের জামিন বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন

যুবলীগে পদ পাওয়ার পর সুজন নানা রকম প্রতারনায় জড়িয়ে পড়েন। গ্রপ তৈরি করে অন্যের জমি হাতিয়ে নেয়ার মত কাজ করতে থাকেন তিনি। সম্প্রতি জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি করে শহরের একটি দামি সম্পত্তি বিক্রি করে দেন। অপর আরেকটি সম্পত্তি বিক্রির পাঁয়তারা করতে থাকেন। এছাড়া শহরের মজমপুর, চৌড়হাস ও বাহাদুরখালী মৌজার জমি জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া দলিল তৈরি করে আত্মসাতের চেষ্টা চালান।

এভাবে সুজন, গেল তিন বছরে শহরের উদিবাড়ি ও হরিশংকরপুরসহ ৪টি স্থানে কয়েক কোটি টাকার জমি কেনেন। ব্যবহার করেন দামি গাড়িও। এছাড়া ঢাকা শহরে একটি ফ্লাটও রয়েছে তার।

স্থানীয়রা বলছেন সুজন সরকারের এক মন্ত্রীর মেয়ের জামাই পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করেছেন অনেকের সাথে। এমনকি জেলা যুবলীগের নেতাও তার প্রতারনার শিকার। কুষ্টিয়া জেলা যুবলীগ সভাপতি রবিউল ইসলাম বলেন,’সে অনেক নেতাকর্মীদের অনেকের কাছ থেকেই পাঁচ দশ লাখ টাকা নিয়েছে। তবে পরবর্তিতে চোখ উল্টে দিতে দ্বিধা বোধ করে না।’

আরও পড়ুন:  মাটি কাটতে গিয়ে ২৫ বছর পূর্বের অক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার!

সুজনের সহযোগী প্রতারক ও জালিয়াতি চক্রের ৫ সদস্যকে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত জানান,’মামলার অগ্রগতি হয়েছে। এ মামলার সঙ্গে জড়িত বেশ কিছু আসামি রয়েছে আমরা তাদেরকেও ছাড় দিব না। সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে।’

সুজনসহ ১৭ জনের নামে মামলা করেছেন প্রতারণার শিকার জমির মালিক এমএম ওয়াদুদ।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 39
    Shares