প্রচ্ছদ রাজনীতি বিএনপি

ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি প্রদানের ঘটনায় মির্জা আলমগীর এর বিবৃতি

115
ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি প্রদানের ঘটনায় মির্জা আলমগীর এর বিবৃতি
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

বিএনপি মহাসচিব মির্জা আলমগীর এর বিবৃতি —

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের একজন কৃতি শিক্ষক, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক ও সাদা দল-ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খান পত্রিকায় একটি নিবন্ধ লেখার দায়ে ঢাবি সিন্ডিকেট কর্তৃক তাঁকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি প্রদানের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “স্বাধীন মত প্রকাশ ও মুক্তবুদ্ধি চর্চার কেন্দ্র হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য রয়েছে। কিন্তু আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সুমহান ঐতিহ্যটি নস্যাৎ করার অপপ্রয়াস চলছে। ড. মোর্শেদ হাসান খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের একজন স্বনামধন্য শিক্ষক। একটি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত তাঁর একটি নিবন্ধের সূত্র ধরে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তিনি পত্রিকার নিবন্ধটি প্রত্যাহার এবং ঐ পত্রিকায় বিবৃতির মাধ্যমে দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা করলেও তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কর্তৃক চাকুরি থেকে অব্যাহতি প্রদানে প্রমানিত হয় যে, ড. মোর্শেদ হাসান খান গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার। ভিন্নমতের মানুষদের ১৯৭৩ সালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশের ৫৬ ধারার ৩ উপধারা অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোন শিক্ষক বা কর্মকর্তা রাজনীতি করার তথা স্বাধীনভাবে মত প্রকাশের অধিকার রাখলেও কেবলমাত্র একটি দৈনিক পত্রিকায় নিবন্ধ লেখা এবং নিবন্ধ প্রকাশের পর অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে দুঃখ প্রকাশ করা সত্বেও ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি প্রদানের ঘটনা নজীরবিহীন। প্রকৃতপক্ষে সরকার বিরোধী মতের মানুষদের সহ্য করতে পারে না বলেই একটা অজুহাতের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে দিয়ে ড. মোর্শেদকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। শুধুমাত্র পত্রিকায় নিবন্ধ লেখাকে ইস্যু বানিয়ে ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকুরিচ্যুত করা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত চাকুরিবিধির সুষ্পষ্ট ব্যতয় বলে আমরা মনে করি। মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে নিশ্চিহ্ন করা যে এই সরকারের মূল লক্ষ্য এই ঘটনায় তা আবারও প্রমানিত হলো। সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক ড. মোর্শেদকে চাকুরিচ্যুত করা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বায়ত্ত্বশাসনের মূল চেতনার পরিপন্থি। দেশব্যাপী একদলীয় চেতনাকে যেভাবে প্রতিষ্ঠিত করা হচ্ছে, ড. মোর্শেদের চাকুরিচ্যুতি সেই চেতনারই বহিঃপ্রকাশ। ভিন্ন মতের মানুষদের প্রতি অশুভ বার্তা দেয়া হলো ড. মোর্শেদের এই ঘটনায়।

আরও পড়ুন:  বিবেক থাকলে প্রতিদিন ‘কান ধরে উঠবস’ করতেন: কাদেরকে রিজভী

ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি প্রদানের মতো অমানবিক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আমি তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি। ড. মোর্শেদ হাসান খানকে অবিলম্বে চাকুরিতে পুণর্বহাল করার জোর দাবি জানাচ্ছি।”

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 25
    Shares