প্রচ্ছদ বিশ্ব সংবাদ সাংবাদিকতা ছেড়ে অনাথ শিশুদের রেঁধে খাওয়ান ইনি

সাংবাদিকতা ছেড়ে অনাথ শিশুদের রেঁধে খাওয়ান ইনি

32
পড়া যাবে: 3 মিনিটে
advertisement

ছিলেন সাংবাদিক।‌ চাকরি পোষাচ্ছিল না। একদিন তাই দুম করে ছেড়ে দিলেন। তার পর পড়লেন তার নেশা নিয়ে। নেশা?‌ রান্না করা। সেই নেশাকেই পেশা করে ফেললেন খাজা মইনউদ্দিন। খুলে ফেললেন নিজের ইউটিউব চ্যানেল। রান্না করে অনাথ, দুস্থ শিশুদের খাওয়ান। সেই ভিডিও পোস্ট করেন চ্যানেলে। এখন মাসে অন্তত ১২০০ দুস্থ, অনাথ শিশুকে খাওয়ান মইন।

advertisement

মইনউদ্দিন একটি তেলুগু চ্যানেলে ১০ বছর সাংবাদিক হিসেবে কাজ করেছেন। চ্যানেলটির প্রোডিউসার ছিলেন তিনি। তার পর এক দিন ঠিক করেন, আর চাকরি করবেন না। যেই ভাবা, সেই কাজ। ছেড়ে দেন চাকরি। ২০১৭ সালে ইউটিউব চ্যানেলটি শুরু করেন। নাম ‘‌নবাব’‌স কিচেন ফুড ফর অল অরফ্যানস’‌। ভিডিওর শ্যুট করেন তাঁর দুই বন্ধু শ্রীনাথ রেড্ডি, ভগৎ রেড্ডি। রান্নার শখ মইনউদ্দিনের ছোটবেলা থেকে। খুব সাধারণ পরিবারে মানুষ হয়েছেন। ভালমন্দ খাওয়ার ক্ষমতা ছিল না।

তাই চেষ্টা করতেন, সাধারণ সরঞ্জাম দিয়েই অসাধারণ একটা পদ বানিয়ে ফেলা। নিজের রান্নায় কখনওই খুব বেশি দামি মশলা ব্যবহার করেন না মইন। তাঁর বন্ধু এবং আত্মীয়রা জানিয়েছেন, এর পরেই মইনের হাতে রান্নার স্বাদ অসাধারণ। সেই নিয়ে বারবার বলতেন মইনকে। তা থেকেই রান্নাকে পেশা করার ভাবনা তাঁর। পড়তে শুরু করেন দেশবিদেশের রান্নার বই। রান্নার শোও দেখতে শুরু করেন। তার পরই শুরু করেন চ্যানেল।

ঠিক করেন, নিজের রান্না করা পদ দুস্থ, অনাথদের মুখে তুলে দেবেন। তাঁর আনারসের কেক তৈরির ভিডিওটি প্রথম ভাইরাল হয়। তার পর আর ফিরে তাকাতে হয়নি মইনকে। প্রথমদিকে একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রান্না করে খাবার প্যাক করতেন। তার পর শিশুদের হাতে তুলে দিতেন। এখন সকলকে পাত পেড়ে বসে খাওয়ান। তাতেই আনন্দ পান মইন। স্বপ্ন দেখেন, একদিন সব অনাথ, দুস্থদের মুখে এভাবেই খাবার জোগাবেন। যাতে কোনও শিশুকে খালি পেটে ঘুমোতে যেতে না হয়।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 362
    Shares
advertisement