প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

টিউবওয়েলের পানি খেলে করোনামুক্তির গুজব (ভিডিও)

38
টিউবওয়েলের পানি খেলে করোনামুক্তির গুজব (ভিডিও)
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

মেহেরপুর প্রতিনিধি

মেহেরপুরের একটি টিউবওয়েল থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পানি বের হচ্ছে গত ৪ দিন ধরে। গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, ওই পানি পান করলেই মিলবে রোগমুক্তি, সারবে ক্যানসারসহ দুরারোগ্য ব্যাধি। এমনকি ওই পানি খেলে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি মিলবে বলেও গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। দূর-দূরান্ত থেকে ওই পানি নিতে শত শত মানুষ ভিড় করছে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের সাধু গুরু ভক্ত আনারুলের ফকিরের আস্তানায়।

জানা গেছে, আনারুল ফকিরের বাসার একটি টিউবওয়েল থেকে বৈদ্যুতিক মোটর বা হাতের চাপ ছাড়াই অবিরতভাবে পানি পড়ছে। এটিকে পুঁজি করে প্রতারণা ব্যবসার ফন্দি আঁটছে একটি চক্র। তবে প্রশাসন বলছে, যদি কেউ প্রতারণা করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভবানীপুর গ্রামের মাথাভাঙ্গা নদীর পাড়ে এক বটবৃক্ষের নিচে আনারুল ফকিরের আস্তানা। আর নদীর পাড়েই বসানো আছে টিউবওয়েলটি। এটা দিয়েই চারদিন আগে হঠাৎ পানি উঠতে শুরু করে। এলাকার লোকজন এটিকে আল্লাহর নেয়ামত বলে মনে করে। এর পানি পান করলে রোগমুক্তি হবে ভেবে পানি নেওয়া শুরু করেন। অনেকেই রোগমুক্তির প্রচারণা চালানোর পর ভবানীপুর ও আশেপাশের এলাকার লোকজন পানি নিতে ভিড় জমায়।
টিউবওয়েলের মালিক আনারুল ফকির জানান, পানি বের হওয়ার বিষয়টি ছেলেরা মোবাইলে ভিডিও করে ফেসবুকে দেওয়ায় এখন লোকজন পানি নিতে আসছে। তিনি বলেন, শিয়ালা গ্রামের একটি ছেলে এই পানি খেয়ে নাকি সুস্থ হয়েছে। তার মাধ্যমে রোগ মুক্তির বিষয়টিও ছড়িয়ে পড়েছে। এখন মানুষ দলে দলে পানি নিতে আসছে।

আরও পড়ুন:  সুন্দরবনের পর্যটন খাতে চরম বিপর্যয়

শুক্রবার বিকেলে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিভিন্ন বয়সী নারী পুরুষের ভিড়। অনেকেই পানি নিয়ে যাচ্ছেন। আবার কেউবা ওখানে নিয়ত করেই পানি পান করছেন।
পানি নিতে আসা ভবানীপুরের হাবিবুর জানান, চোখে কম দেখেন তিনি। ওই পানি দিয়ে চোখ পরিষ্কার করলে ভালো হবে মনে করে খাস নিয়তে তিনি পানি নিয়ে যাচ্ছেন। তবে কাউকে কোনও টাকা দিতে হচ্ছে না। গোয়াল গ্রামের বৃদ্ধা চম্পা এসেছেন তার মেয়ের বন্ধ্যত্ব দূরীকরণের জন্য।

এদিকে একটি চক্র ওই টিউবওয়েলটিকে ঘিরে ব্যবসার ফন্দি আঁটছেন। অনেকেই এটিকে অলৌকিক বলে দাবি করে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করছেন। ঘটনাস্থলে বসেছে মেলার দোকান। এখানে খেলাধুলাসহ মেয়েদের প্রসাধনী ও চুড়ি দুল বিক্রয় করছে ফেরিওয়ালারা।
গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান জানান, ওই স্থানে যাতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য নজরদারিতে রাখা হয়েছে। গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম শাহনেওয়াজ জানান, ওই টিউবওয়েলের পানিতে রোগ সারবে কীভাবে তা বোধগম্য নয়। এটি প্রতারণার ফাঁদ মাত্র। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলীকে পাঠানো হবে এবং টিউবওয়েলটিকে বন্ধ করে দেওয়া হবে।
গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এম রিয়াজুল আলম বলেন, এ পানিতে রোগ নিরাময় হবে এ ধরনের কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। বরং এ পানিতে আর্সেনিক থাকতে পারে। পানি পান করার পর যদি ডায়রিয়া ও রোটা ভাইরাস ইনফেকশন হয় তাহলে তা জনগণের জন্য দুর্ভোগ বয়ে আনবে।

আরও পড়ুন:  চুড়ান্ত পাওনা পরিশোধের দাবিতে সড়ক অবরোধ : শুক্রবার শ্রমিক জনসভার মাধ্যমে লাগাতার কর্মসুচির হুমকি

জনস্বাস্থ্য বিভাগের উপসহকারী প্রকৌশলী আবু সালেহ মো. মাহফুজুর রহমান বলেন, যেহেতু টিউবওয়েলটি নদীর একেবারে পাড়ে, তাই অতিবৃষ্টির কারণে পানির লেয়ার ওপরে উঠে যায়। এ কারণেও কখনও কখনও চাপ ছাড়াই অনবরত পানি বের হয়। এটা স্বাভাবিক ঘটনা। আবার গ্যাস থাকার কারণেও চাপ বাড়লে পানি বের হতে পারে। টিউবওয়েলটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

(জাগো নিউজের সৌজন্যে ভিডিও)

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 6
    Shares