প্রচ্ছদ জেলা পুলিশ আমাদের মানসিক ট*র্চার করছে

পুলিশ আমাদের মানসিক ট*র্চার করছে

96
পড়া যাবে: 6 মিনিটে
advertisement

এখনো সাদা পোশাকধারী পুলিশ আ*তঙ্কে আছেন বলে জানিয়েছেন চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হ*ত্যা মা*মলার প্রধান সাক্ষী থেকে আ*সামি হওয়া আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর। তার অভিযোগ, ‘সার্বক্ষণিক ছায়ার মতো আমার ও আমার পরিবারের পেছনে ওরা লেগে আছে। পুলিশ এভাবে আমাদের মা*নসিক ট*র্চার করছে।’

advertisement

নিজ বাড়িতে বসে গতকাল বুধবার এ অভিযোগ করেন মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর। এ সময় মা*মলার পু*নঃতদ*ন্তের মাধ্যমে মূল রহস্য উদ্ঘাটন করে প্রকৃত দোষীদের দৃ*ষ্টান্তমূলক শা*স্তির ব্যবস্থার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশনা কামনা করেন তিনি।

আমাদের সময়কে মোজাম্মেল হোসেন বলেন, ‘আমার নি*র্দোষ মেয়েটি ৪৮ দিন পর অ*তিক*ষ্টে জে*ল থেকে মু*ক্তি পেয়েছে। রাতে ঘুমের ঘোরে মেয়েটি ভয়ে চিৎকার দিয়ে ওঠে। মা*নসিক ও শা*রীরি*কভাবে সে অ*সুস্থ। তাকে ঘুমের ও*ষুধ দিয়ে রাখা হয়েছে। তার দুই হাঁটুতে প্রচ- ব্যথা।’

এদিকে রিফাত হ*ত্যা মা*মলার অ*ভিযুক্ত ২৪ নম্বর আ*সামি আরিয়ান হোসেন শ্রাবণকে মিডিয়ার সঙ্গে কথা না বলার শর্তে জা*মিন দেওয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আছাদুজ্জামান আরিয়ানের জা*মিনের আদেশ দেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী গোলাম মোস্তফা কাদের জামিনের প্রার্থনা করে বলেন, ‘আ*সামি একজন শিশু। তার বয়স ১৬ বছর, ১০ম শ্রেণির ছাত্র। পুলিশ ১৯ বছর দেখিয়ে তাকে চালান দিয়েছে।’ রাষ্ট্রপক্ষে জা*মিনের বি*রোধিতা করেন এপিপি অ্যাডভোকেট সঞ্জিব দাস।

গণমাধ্যমের সঙ্গে কোনো কথা বলা যাবে না এবং বাবার জিম্মায় থাকবেন- এ দুই শর্তে হাইকোর্ট থেকে জা*মিন পান। পরে গত মঙ্গলবার বরগুনা কা*রাগা*র থেকে মুক্তি পান আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। আদালতের নি*ষেধা*জ্ঞা থাকায় মুক্তির পর কা*রাফট*কে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি। তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে সরাসরি শহরের মইঠা এলাকায় বাবার বাসায় নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন:  এই মিষ্টি বিতরণ প্রমাণ করে আমার ছেলের হ*ত্যাকা*রী মিন্নি

মোজাম্মেল হোসেন কিশোর আরও বলেন, আমি আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করছি। আমার নির্দোষ মেয়েটি দেড় মাস অতিকষ্টে জে*লে ছিল। অথচ আমার মেয়ে ছিল এ মা*মলার সা*ক্ষী। মিন্নি তার স্বামীকে বাঁচানোর জন্য নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেদিন স*ন্ত্রাসী*দের সামনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। অথচ একটি প্রভাবশালী মহলের কারণে আমার মেয়েকে আ*সামি করা হয়েছে। বিনা দোষে দীর্ঘদিন জে*ল খা*টতে হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি এখনো সাদা পোশাকধারী পুলিশ আ*তঙ্কে আছি। ওরা সার্বক্ষণিক ছায়ার মতো আমার ও আমার পরিবারের পেছনে লেগে আছে। বাড়ির আশপাশ দিয়ে ঘোরাঘুরি করে। আমি কোথায় যাই, কী করছি সব খোঁজখবর নিচ্ছে ছ*দ্মবেশে। আমার মেয়ে স্বামীহারা হয়েছে। আর পুলিশ আমাদের কেন মানসিক ট*র্চার করছে?

এ ব্যাপারে মা*মলার তদন্ত কর্মকর্তা বরগুনা থানার ওসি (তদন্ত) মো. হুমায়ুন কবীরের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন ধরেননি। বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবীর মোহাম্মদ হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে আমার কিছুই জানা নেই।

আরেক প্রশ্নের জবাবে কিশোর বলেন, মিন্নিকে উন্নত চিকিৎসার পর সুস্থ হলে আবার সে পড়াশোনা শুরু করবে। আলোচিত এ হ*ত্যা মা*মলার অধিকতর, স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ ত*দন্তে আবারও পিবিআইকে দায়িত্ব দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন মোজাম্মেল হোসেন কিশোর।

আরও পড়ুন:  ‘আরেকটু আস্তে ধরুন’

তিনি জানান, গত ১৯ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জননিরাপত্তা বিভাগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব ও আইজিপি বরাবরে করা আবেদনে উল্লেখ করেন, রিফাত শরীফ হ*ত্যা মা*মলায় তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি প্রধান সা*ক্ষী ছিল। হ*ত্যাকা-ের ১৯ দিন পর মা*মলার প্রধান সাক্ষী আমার মেয়েকে হঠাৎ করে মা*মলার বা*দী হ*ত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেন।

একটি প্রভাবশালী মহল ও পুলিশ সুপার মারুফ হোসেনসহ অন্য পুলিশ সদস্যরা রিফাত শরীফের বাবা অর্থাৎ বাদীকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করিয়ে আমার মেয়েকে হ*ত্যার সঙ্গে জ*ড়ানোর চেষ্টা করেন। পুলিশ রি*মান্ডে নিয়ে আমার মেয়েকে শা*রীরিক ও মা*নসিক নি*র্যাতন করে ১৬*৪ ধা*রায় জ*বানব*ন্দি দিতে বাধ্য করে। যা আমার মেয়ের ঐচ্ছিক জ*বানব*ন্দি নয়। আমি রিফাত শরীফ হ*ত্যা মা*মলার অধিকতর তদ*ন্তের দায়িত্ব পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) অথবা সি*আই*ডিতে হস্তান্তরের দাবি জানাচ্ছি।

গত ২৬ জুন রিফাত শরীফকে প্রকাশ্যে কু*পিয়ে হ*ত্যা করা হয়। পর দিন রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ ১২ জনকে আ*সামি করে একটি মা*মলা করেন, তাতে প্রধান সা*ক্ষী করা হয়েছিল মিন্নিকে। পরে মিন্নির শ্বশুর তার ছেলেকে হ*ত্যায় পুত্রবধূর জ*ড়িত থাকার অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করলে ঘটনা নতুন দিকে মোড় নেয়।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 217
    Shares
advertisement