প্রচ্ছদ আইন-আদালত

বুড়িগঙ্গায় দূষণ : ওয়াসার এমডিকে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

12
বুড়িগঙ্গায় দূষণ : ওয়াসার এমডিকে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

বাংলা ম্যাগাজিন ডেস্ক  :     বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণরোধে বর্জ্যব্যবস্থাপনা না করায় ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খানকে সতর্ক করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এক মাসের মধ্যে আদেশ পালন করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি গোবিন্দচন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এছাড়াও মামলায় পরবর্তী শুনানি ও আদেশের জন্য আগামী ১৮ অক্টোবর দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত।

আদালতে আজ রিটকারীদের পক্ষে শুনানি করেন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। পরিবেশ অধিদফতরের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আমাতুল করিম এবং ওয়াসার এমডির পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট উম্মে সালমা।

আদেশের বিষয়ে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খান ইচ্ছাকৃতভাবে বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণ বন্ধে হাইকোর্টের দেয়া রায় প্রতিপালন করছেন না বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। তাই বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণ বন্ধে হাইকোর্টের দেয়া রায় বাস্তবায়ন না করায় তাকসিম এ খানকে সতর্ক করেছেন আদালত। পাশাপাশি আগামী এক মাসের মধ্যে আদালতে প্রকৃত রায় বাস্তবায়নের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

রাজধানীর শ্যামপুরের বিভিন্ন শিল্প-কারখানা থেকে বর্জ্য নিঃসরণে বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণ বন্ধে জনস্বার্থে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি) ২০১০ সালে একটি রিট পিটিশন দায়ের করে। ওই রিটের শুনানি নিয়ে ২০১১ সালে হাইকোর্ট তার রায়ে ওয়াসার এমডিকে ছয় মাসের মধ্যে বুড়িগঙ্গা নদীতে কারখানার বর্জ্য নিঃসরণ লাইন বন্ধের নির্দেশনা দেন।

আরও পড়ুন:  সুপ্রিম কোর্ট খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত বৃহস্পতিবার

কিন্তু রায় বাস্তবায়ন না হওয়ায় একটি সম্পূরক আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খান আদালতে হাজির হয়ে রায় বাস্তবায়নের জন্য আদালতে প্রতিশ্রুতি দেন। পরবর্তীতে গত ১৮ আগস্ট এবং ৭ সেপ্টেম্বর দুটি প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করা হলেও রায় বাস্তবায়ন না হওয়ায় তা গ্রহণ না করে সময় প্রদান করেন হাইকোর্ট।

এদিকে আজ শুনানিতে ওয়াসার এমডির পক্ষে আরও একটি প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করা হয়। কিন্তু আদালত তা গ্রহণ না করে ওয়াসার এমডিকে সতর্ক করেন এবং বারবার সময় নিয়ে রায় বাস্তবায়ন করার তার প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করার বিষয় উল্লেখ করেন। আদেশে আরও উল্লেখ করা হয় যে, ওয়াসার এমডি ইচ্ছাকৃতভাবে রায় প্রতিপালন করছেন না এবং বারবার প্রতিবেদন দাখিলের মাধ্যমে সময়ক্ষেপণ করছেন।

রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ আদালতের শুনানিতে বলেন, রায়ের পর ৯ বছর অতিক্রান্ত হলেও তালবাহানা করে রায় বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না। যার কারণে বুড়িগঙ্গা নদীর পানি দূষণ বন্ধ হচ্ছে না এবং ওয়াসা তাদের দায়িত্ব বারবার পালনে ব্যর্থ হয়েছে।

আরও পড়ুন:  কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ : ৩৫৯০ জনের লিখিত পরীক্ষা চেয়ে রিট

এছাড়াও ২০১৪ সালে দায়ের হওয়া আরেকটি রিটের আদেশে হাইকোর্টের একই বেঞ্চ পরিবেশ অধিদফতরের ঢাকা বিভাগের পরিচালক, ঢাকার জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার, কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে দুই সপ্তাহের মধ্যে বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিণ পাশে নদী ও নদী তীরে ময়লা/আবর্জনা/বর্জ্য ফেলা ও স্তূপ করা বন্ধের নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে যে ময়লা-আবর্জনা/বর্জ্য ফেলা হয়েছে তা অপসারণ করে ১৫ দিনের মধ্যে আদেশ বাস্তবায়নের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত। এছাড়াও মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর দিন নির্ধারণ করে দেন।

আদালতের নির্দেশনা অনুসারে ইটিপি স্থাপন ব্যতীত পরিচালিত কারখানা বন্ধের নির্দেশ বাস্তবায়নের জন্য পরিবেশ অধিদফতরের পক্ষে সময়ের আবেদন করা হয়। আদালত সে আবেদন মঞ্জুর করে উক্ত আদেশ দেন।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 5
    Shares