প্রচ্ছদ বিশ্ব সংবাদ কিশোরী সাঁতারুকে কোচের যৌ*ন নি*পীড়*ন,ভি*ডিও ফাঁ*স

কিশোরী সাঁতারুকে কোচের যৌ*ন নি*পীড়*ন,ভি*ডিও ফাঁ*স

177
পড়া যাবে: 4 মিনিটে
advertisement

সোনাজয়ী কিশোরী সাঁতারুকে যৌ*ন হে*নস্তার অ*ভিযোগে কোচ সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে সকল চুক্তি বাতিল করল গোয়া সুইমিং অ্যাসোসিয়েশন। সাঁতারুর ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই সোশাল মিডিয়া উ*ত্তপ্ত হয়ে ওঠে। মুহূর্তেই ভাইরাল হয় ওই ভিডিওটি। এমনকি, সুরজিৎ যেন ভবিষ্যতে অন্য কোথাও চাকরি না পান, কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী কিরেন রিজিজু সেই নির্দেশও দেন সুইমিং ফেডারেশন অব ইন্ডিয়াকে।

advertisement

গতকাল বুধবার (৪ আগস্ট) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ওই প্রতিশ্রুতিমান দেশের প্রতিভাবান সাঁতারুর সঙ্গে হওয়া এই অ*শ্লীল আ*চরণ কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী রিজিজুর নজরে আসতেই ওই কোচের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। বুধবার রাতেই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে টুইট করেন তিনি।

তিনি জানান, অভিযুক্ত ওই কোচের বিরুদ্ধে স্পোর্টস অথরিটি অব ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সেই সাথে এই জ*ঘন্য অ*পরাধের জন্য তৎক্ষণাৎ কোচের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থার জন্য পুলিশকে অনুরোধ জানান তিনি।

এর পর পরই বৃহস্পতিবার সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে যাবতীয় চুক্তি বাতিল করে গোয়া সুইমিং অ্যাসোসিয়েশন। সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের ওপর সুইমিং ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ার এই নির্দেশ দেশের সব সুইমিং সংস্থাগুলোর জন্যই প্রযোজ্য। কিরেন রিজিজুর হস্তক্ষেপে সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়কে এর মধ্যেই ‘একঘরে’ করেছে ভারতের ক্রীড়ামহল।

ওদিকে, বৃহস্পতিবার সকালেই সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে রিষড়া থানায় তথ্যপ্রমাণ-সহ অভিযোগ দায়ের করেন কিশোরীর মা-বাবা। তবে এ ক্ষেত্রে বিশেষভাবে উল্লেখ্য, কিশোরীর মা-বাবা প্রথমটায় রিষড়া থানায় গেলেও কোচ সুরজিতের বিরুদ্ধে অভিযোগ দা*য়ের করতে অনীহা দেখিয়েছিল রিষড়া থানা। বরং উলটে তাঁদের পরামর্শ দিয়েছিল গোয়াতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে। কেননা, কিশোরীর পোস্ট করা ওই ভিডিও গোয়াতেই তোলা।

গত ৬ মাস ধরে যৌ*ন হে*নস্তার শি*কার হতে হতে সে ক্লান্ত। তাই নিরুপায় হয়ে সবার সামনে ঘটনা তুলে ধরতেই গোয়ায় লুকিয়ে ক্যামেরাবন্দি করেছিল সে। তবে বুধবার সোশাল মিডিয়ায় শ্লী*লতাহা*নির কু*রুচিক*র ওই ভিডিও ভাইরাল হতেই টনক নড়ে রিষড়া থানার।

অতঃপর বৃহস্পতিবার সকালেই কিশোরী সাঁতারুর দেওয়া বয়ানের ভিত্তিতেই সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয় সংশ্লিষ্ট থানায়। তবে উষসী কাণ্ডে ‘জিরো এফআইআর’ চালু হওয়ার পরও কেন রিষড়া থানা প্রথমটায় ফিরিয়ে দিয়েছিল কিশোরীর মা-বাবাকে, তা নিয়ে কিন্তু একটা প্রশ্ন উঠছেই।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 103
    Shares
advertisement