প্রচ্ছদ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ইউটিউব সম্পর্কে বিস্ময়কর কিছু তথ্য!

12
ইউটিউব সম্পর্কে বিস্ময়কর কিছু তথ্য!
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

ইউটিউব বিশ্বের অন্যতম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং ভিডিও শেয়ারিং এর সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্ম৷ ফেসবুকের সাথে টেক্কা দিয়ে ইউটিউব দিন দিন তাদের ইউজার সংখ্যা বাড়িয়ে চলেছে৷

বর্তমানে তাদের মোট ইউজার সংখ্যা ৩ বিলিয়নেরও বেশি । এগুলো তো আমাদের জানা কথা । তাহলে নতুন কিছু শোনা যাক। এই আর্টিকেলের ইউটিউব সম্পর্কে এমন কিছু ফ্যাক্ট আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চলেছি যে গুলো জানার পর আপনি বিস্মিত হতে বাধ্য হবেন।

১.আপনি কি জানেন ইউটিউব এর প্রতিষ্ঠাতা কারা?
জেনে অবাক হবেন ইউটিউব এর যে তিনজন প্রতিষ্ঠাতা রয়েছে তার মধ্যে রয়েছেন একজন বাংলাদেশী নাগরিক। তিনি জার্মান প্রবাসী তার নাম জাওয়াদ করিম৷ এবং অন্য ২ জন হার্লি এবং স্টিভস চেন। ২০০৫ সালে তারা বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম ইউটিউব তৈরি করে। তারা হয়তো জানতো না ইউটিউব আজকে এমন এক পর্যায়ে পৌঁছোবে। ২০০৬ সালে মাত্র দেড়শ কোটি ডলারের বিনিময় গুগোল ইউটিউব কে কিনে নেয়৷ এবং এখন ইউটিউব থেকে গুগলের মাসিক আয় ২০০ কোটি মার্কিন ডলার৷

২.কিভাবে ইউটিউব ওয়েবসাইট তৈরীর পরিকল্পনা মাথায় আসলো?
ইউটিউব এর তিন প্রতিষ্ঠাতা খুবই ভালো বন্ধু ছিল। একবার স্টিভ চেন আয়োজিত ছোট্ট একটি ডিনার পার্টিতে বাকি দুই বন্ধুকে আমন্ত্রণ করেন৷ স্টিভ চেন ও তারা সারারাত খুব মজা করে । এবং পরের দিন সকালে তারা তাদের অন্য বন্ধুদের ডিনার পার্টির ভিডিও ইমেইল করতে শুরু করে। তবে মোবাইলের মাধ্যমে ইমেইল করাটাও মোটেও সহজ ছিল না । এবং সে কারণেই তারা তিন বন্ধু মিলে একটি ওয়েবসাইট খুলে ফেলে । যেখানে তারা তাদের ভিডিওগুলো শেয়ার করে অন্য বন্ধুদের কে দেখাতে পারবে৷ এবং সেই থেকেই প্রতিষ্ঠিত হয় বিশ্বের সেরা ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম ইউটিউবের।

আরও পড়ুন:  ১০৮ মেগাপিক্সেলের ফোন আনছে শাওমি

৩.আপনি কি জানেন শুরুর দিকে ইউটিউব চলত কিসের খরচ দিয়ে?
আপনার হয়তোবা মনে হতে পারে ইউটিউব ব্যবসায়িকভাবে যে অর্থ উপার্জন করত সেটি দিয়ে ইউটিউবের সমগ্র টিম পরিচালিত হতো৷ কিন্তু আপনার ধারনাটি সম্পুর্ন ভুল৷ ইউটিউব এর প্রতিষ্ঠাতা তাদের বেতন এর একটি অংশ দিয়ে ইউটিউব চালাতো।

৪.ইউটিউবের আদি নাম কি?
ইউটিউব এর আদি নাম জানেন? ২০০৫ সালের ভ্যালেন্টাইনস ডে এর দিনে youtube.com ডোমেইন কেনা হয়েছিল৷ ইউটিউব এর প্রতিষ্ঠাতা ওয়েবসাইটের নাম রেখেছিল ” ইউটিউব “। তবে পরবর্তীতে ইউটিউব নামটি তাদের তেমন মনে ধরেনি। তারা ইউটিউব এর নাম রাখল “ইউটিউব অনলাইন” (Utubeonline)। এখন ভিজিটররা যখন তাদের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করত তখন দেখে কিছুটা বিভ্রান্ত হতো। পরবর্তীতে ইউটিউব এর প্রতিষ্ঠাতা ইউটিউব এর নামকরণ আবার “ইউটিউব” করেন।

৫.আপনি কি জানেন ইউটিউবে সর্বপ্রথম ভিডিও কোনটি এবং ইউটিউবে সর্বপ্রথম ভিডিও কে আপলোড দেয়?
ইউটিউবে সর্বপ্রথম ভিডিও ছিল “মি এট জু”। ২০০৫ সালের ২৩ এপ্রিল সর্বপ্রথম ইউটিউবে আপলোড করা হয় এটি৷ এবং ইউটিউবে ভিডিওটি আপলোড করে বাংলাদেশি নাগরিক জার্মান বংশভূত জাওয়াদ করিম । ২০০৫ সালের এপ্রিল মাসে একটি চিড়িয়াখানায় গিয়ে ঘোরাঘুরি করার সময় তিনি কিছু ভিডিও ক্লিপস নেন । এবং তার মধ্য থেকে ১৭ সেকেন্ডে একটি ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করেন । আপনি যদি ইউটিউবে সার্চ দেন ” হুইচ ইজ দা ফ্রাস্ট ভিডিও অফ ইউটিউব ” তাহলে সহজে দেখতে পাবেন।

আরও পড়ুন:  নকিয়া ফিচার ফোন এক চার্জে চলবে ২৪ দিন

৬.আপনি কি জানেন ইউটিউবে সবচেয়ে বেশি ডিসলাইক পাওয়া ভিডিও কোনটি?
এটি হয়তোবা আমরা কমবেশি সবাই জানি৷ তবে যারা জানে না তাদেরকে বলছি ইউটিউবে সবচেয়ে বেশি লাইক পাওয়া ভিডিওটি ২০১০ সালে আপলোড করা হয়৷ এটি একটি মিউজিক সং৷ যার নাম ছিল “বেবি”।

বর্তমানে এর মোট প্রাপ্ত ডিজলাইক সংখ্যা ৪ কোটি ৪০ লাখেরও বেশি । ভিডিওটি মোট ২ বিলিয়ন বার দেখা হয়েছে।

৮. ৩ ভাগের ১ ভাগ ট্রাফিক আমেরিকার!
ইউটিউব এর জন্মস্থান আমেরিকা থেকে ইউটিউব প্রায় ৩০শতাংশ এর বেশি ট্রাফিক পায়। এবং বাদ বাকি ৭০ শতাংশ ট্রাফিক ইউটিউব অন্য দেশ থেকে সংগ্রহ করে। বাংলাদেশ থেকে ইউটিউব প্রায় ২.৪% ট্রাফিক সংগ্রহ করে৷

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 4
    Shares