প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

সার খুলনা অঞ্চলের খবর

21
সার খুলনা অঞ্চলের খবর
পড়া যাবে: 39 মিনিটে

স্টাফ রিপোর্টার 

তেরখাদা উপজেলার শেখপুরা ও কাটেঙ্গা  বাজারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের খুলনা জেলা কার্যালয়ের বাজার তদারকিতে ৭টি প্রতিষ্ঠানকে ২০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম জরিমানার আদেশ প্রদান করেছেন।

জেলা কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, এই অভিযানে শেখপুরা বাজারে তদারকি করে মেয়াদ উত্তীর্ণ কসমেটিকস রাখায় মারুফ স্টোরকে ৩হাজার টাকা,  মূল্যবিহীন বিদেশী কসমেটিকস রাখায় মিলন স্টোরকে ২হাজার,  কাটেঙ্গা বাজারে তদারকি করে  মূল্যবিহীন ওষুধ (ফিজিসিয়ান স্মাম্পল) রাখায় শিকদার মেডিকেলকে ২হাজার, সালমা মেডিকেল হলকে ৫হাজার, মূল্য তালিকা না থাকায় তৃষ্ণা মিষ্টান্নকে ২হাজার,  মূল্যবিহীন বিদেশী কসমেটিকস রাখায় বিশুদ্ধ পণ্য সম্ভারকে ২হাজার,  আর. এ. কসমেটিকসকে ৪হাজার  টাকা  প্রশাসনিক ব্যবস্থায় জরিমানা করা হয়। এ অভিযানে  সকলকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ অনুসারে ভোক্তা অধিকার বিরোধী কার্যাবলী হতে বিরত থাকার অনুরোধ জানানোসহ সচেতন করা হয়। পরিদর্শনমূলক এই বাজার অভিযানে সার্বিক সহায়তা করেন ৩ এপিবিএন, খুলনা। জনস্বার্থে এ তদারকি কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

স্টাফ রিপোর্টার

সাতক্ষীরা জেলার সদর থানাধীন ছনকা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। গতকাল সোমবার গোপন সংবাদের মাধ্যমে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন সাতক্ষীরা জেলা সদরের ছনকা এলাকার আলী মুনছুর গাজীর ছেলে মো. ছলেমান গাজী (৩২)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, গতকাল সোমবার সাতক্ষীরা জেলার সদর থানাধীন ছনকা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময়  ছনকা মোড় থেকে ২ কেজি গাঁজাসহ ছলেমান গাজীকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টার

চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা থানা এলাকায় পৃথক দু’টি মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে  ৭৫ বোতল ফেন্সিডিল ও ২ কেজি গাঁজাসহ দু’মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় ও দুপুর ২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার দু’মাদক ব্যবসায়ী হলেন চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা থানার কুড়ুলগাছি পশ্চিম পাড়ার মৃত. কিয়ামত আলীর ছেলে মো. ইমদাদুল হক (৪৫) ও  রামনগর পশ্চিম পাড়ার আব্দুল নতিব এর ছেলে মো. আবুল কালাম (৪৯)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় ও দুপুর ২টার দিকে১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় ও দুপুর ২টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা থানা এলাকায় পৃথক দু’টি মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় দর্শনা থানাধীন সিএন্ডবি পাড়ার পল্লী বিদ্যুৎ অফিস সংলগ্ন অঙ্কুর এগ্রো মেশিনারীজ এর সামনে থেকে ৭৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ ইমদাদুল হককে এবং

দর্শনা ফিলিং ষ্টেশন সংলগ্ন বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট এর সামনে থেকে  ২ কেজি গাঁজাসহ আবুল কালামকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে দর্শনা থানায় হ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টার

ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ড থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ৯২ পিস ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬। ১৩ সেপ্টেম্বর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ী হলেন চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা থানার গোবিন্দপুর দাসপাড়ার মো. আইজাল ইসলামের ছেলে মো. বাপ্পী (৩০)। 

র‌্যাব-৬ জানায়, ১৩ সেপ্টেম্বর ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ড থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল। এসময় তেতুলিয়া মোড় থেকে  ৯২ পিস ইয়াবাসহ বাপ্পীকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে হরিণাকুন্ড থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বাগেরহাট প্রতিনিধি :

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলে বাগেরহাট জেলার ১২টি ইউনিটের দ্বিতীয় দিনে ৫টি উপজেলা ও ১টি পৌর কমিটি গঠনের লক্ষে কেন্দ্রীয় কমিটির খুলনা বিভাগীয় প্রতিনিধি দলের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে শহরের মেইন রোড (থানার মোড়ে) জেলা বিএনপির দলিয় কার্যালয় চত্বরে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা যুবদলের সভাপতি মো. হারুন আল রশীদের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক মো. সুজন মোল্লার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সহ-সভাপতি আলী আকবর চুন্নু। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহসিন মোল্লা, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সহ-সাধারণ সম্পাদক আঃ জব্বার খান, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সহ-সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান লিটন, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কফিল উদ্দীন ভূইয়া, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম কবির প্রমুখ।

এসময় প্রধান অতিথি বলেন, বাগেহাট জেলা যুবদেরে এই কমিটির গতিশীল নেতৃত্ব তৃণমূল পর্যায়ে দলকে সুসংগঠিত করতে যে কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে তা সত্যি প্রশংসনীয়। বাগেরহাট যুবদল নিখুঁত নেতৃত্বের একটি কাফেলা হিসেবে দল দেখতে চায়। তাই দলকে শক্তি শালী করতে হলে ত্যাগী ও সাহসী কর্মীদের মাধ্যমে উপজেলা ও পৌর সভার  যুবদলের কমিটি গঠন করা হবে।

বেনাপোল প্রতিনিধি

পুর্ব ঘোষনা ছাড়াই বেনাপোল বন্দর দিয়ে বন্ধ হয়ে গেল পেঁয়াজের  আমদানি। সোমবার বিকেলে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারত। ফলে বেনাপোলের ওপারের পেট্রাপোলে আটকা পড়ে পেঁয়াজ ভর্তি  প্রায় ১৫০টি ট্রাক। একই অবস্থা  ভোমরা বন্দরেও। সকাল থেকে ভোমরা বন্দর দিয়ে কোন পেঁয়াজের গাড়ি বাংলাদেশে প্রবেশ করেনি।  ভারতের একটি সূত্র জানায়,দেশের সকল বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পেঁয়াজের  আমদানি বন্ধ রয়েছে।  বেনাপোল বন্দর দিয়ে সকালের দিকে ৫০ মেঃ টন পেঁয়াজ ঢোকার পরপরই দেশের সবগুলো বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারতের পেঁয়াজ রফতানিকারকদের সংগঠন।

বেনাপোলের ওপারে পেট্রাপোল রফতানিকারক সমিতির পক্ষে ব্যবসায়ি  কার্তিক ঘোষ বলেন, পেঁয়াজ রফতানি কারক সমিতি সিদ্ধান্ত নিয়েছে ৭শ ৫০ ডলারের নীচে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি করবে না। সে কারনে অনেকগুলো গাড়ি বর্ডারে দাঁড়িয়ে আছে।

বেনাপোলের পেঁয়াজ আমদানি কারক  রফিকুল ইসলাম রয়েল জানান, ভারতের সাথে আমদানি বানিজ্য শুরুর পর থেকে ২শ ৫০ মাঃ ডলারে পেঁয়াজ আমদানি হয়ে আসছে। ভারতের নাসিকে বন্যার কারনে সেখানে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় পেঁয়াজের রফতানি কারকরা স্থানীয় বাজার দর হিসাবে ৭শ ৫০ ডলারের নীচে বাংলাদেশে পেঁয়াজের রফতানি করবে না। এ কারনে তাঁরা পেঁয়াজের  রফতানি সাময়িক বন্ধ করে দিয়েছে।

ভারতের বনগাঁ এলাকার পেঁয়াজ ব্যবসায়ি অনিল মজুমদার টেলিফোনে জানান, বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি করতে তাদের আপত্তি নেই। বাজার দরে এলসি পেলে তাঁরা পূনরায় রফতানি শুরু করবে। সে ক্ষেত্রে পুরানো যে সব এল সি দেয়া আছে সে গুলো ২শ ৫০মাঃ ডলার সংশোধন করে সংশোধিত মুল্যে এবং নতুন এলসি ৭শ ৫০ মাঃ ডলার করা হলে পেঁয়াজের  আমদিনি প্রক্রিয়া  স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের কমিশনার আজিজুর রহমান বলেন, ভারত কোন ঘোষনা ছাড়াই মুল্য বৃদ্ধির দাবিতে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে। পারস্পারিক বানিজ্যে সমঝোতার বিকল্প নেই।  তাঁরা রফতানি বন্ধ না করে পেঁয়াজের  আমাদানিকারকদের কে সময় বেঁধে দিতে পারতেন। হঠাৎ করে এমন সিদ্ধাšতটা নেয়া ঠিক হয়নি।

এদিকে পেঁয়াজের আমদানি বন্ধের খবরে  নড়ে চড়ে বসেছে বেনাপোলের পেঁয়াজের আমদ্নি কারক ও পিঁয়াজ ব্যবসায়িরা। সন্ধ্যার আগেই খুচরো বাজারে পেঁয়াজের  দাম কেজিতে ৫ টাকা বাড়িয়ে ৬৫ টাকা দরে  বিক্রি করতে শোনা গেছে।

খবর বিজ্ঞপ্তি

গণসংহতি আন্দোলন, খুলনা জেলা কমিটির এক কর্মীসভা সোমবার বেলা ১১টায় খালিশপুর হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। কর্মীসভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা আহ্বায়ক মুনীর চৌধুরী সোহেল এবং সঞ্চালনা করেন সদস্য মোঃ আল আমিন শেখ। কর্মীসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছাত্র ফেডারেশন কেন্দ্রীয় সভাপতি গোলাম মোস্তফা। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক নেতা মোঃ নূরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেনÑজেলা সদস্য সচিব মোঃ মারুফ গাজী, সদস্য মোঃ অলিয়ার রহমান, মোঃ আলমগীর হোসেন লিটু, রুস্তম আলী প্রমুখ। কর্মীসভায় প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, দুর্নীতি ও ভুলনীতির কারণে পাটকলগুলোতে যে লোকসান হয়েছে, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে তার দায় শ্রমিকদের উপর চাপিয়ে দিয়ে প্রায় ২৬ হাজার কোটি টাকার সম্পদ দেশীয় লুটপাটকারী ও পাটপণ্যের বাজার ভারতের হাতে তুলে দিতেই সরকার পাটকলগুলো বন্ধ করেছে। কোনোভাবেই এসব মিল পিপিপি, লীজ বা ব্যক্তিমালিকানায় দেয়া চলবে না। শ্রমিক-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ (স্কপ)-এর প্রস্তাবনা অনুযায়ী মাত্র ১২শ কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিকায়ন এবং অবসরপ্রাপ্ত ও কর্মরতসহ সকল শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা এককালীন পরিশোধ করার জোর দাবী করেন। কর্মীসভায় সর্বসম্মতিক্রমে মুনীর চৌধুরী সোহেলকে আহ্বায়ক ও মোঃ মারুফ গাজীকে সদস্য সচিব করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট খুলনা জেলা আহ্বায়ক কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। অপরদিকে মোঃ আলমগীর হোসেন লিটুকে আহ্বায়ক ও মোঃ আনোয়ার হোসেনকে সদস্য সচিব করে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট খালিশপুর থানা আহ্বায়ক কমিটি এবং মোঃ অলিয়ার রহমানকে আহ্বায়ক ও মোঃ শহিদুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট ফুলতলা উপজেলা আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

ফকিরহাট প্রতিনিধি।

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার লখপুর ইউনিয়নের জাড়িয়া মাইট কুমরা গ্রামের পল্টি খামারী মোঃ আরিফ শেখ বিভিন্ন প্রজাতির মুরগী চাষ করে এখন আগের চেয়ে অনেক স্বাবলম্বী হয়েছেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে গত কয়েক মাস যাবৎ র্ফামের ব্যাবসায় ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছিল। সে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হওয়ায় আবারও নতুন করে পল্টি খামারীরা লাভবান হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন। সরকারী ভাবে এই সমস্ত চাষিদেরকে আর্থিক ভাবে কিছুটা সহযোগীতা করলে তারা এঅঞ্চলের মাংশ ও ডিমের চাহিদা অনেকটা পূরণ করতে সক্ষম হবে।

জানা গেছে, উপজেলা ৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের শতশত খামারী পল্টি মুরগীর চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। কিন্তু গত কয়েক মাসের করোনা পরিস্থিতির কারনে এ শিল্পে চরম ধস নেমে আসে। তার পরেও পল্টি খামরীরা হাল ছাড়েননী। তাঁরা শত প্রতিকুলতার মধ্যে থেকেও এ শিল্পকে টিকিয়ে রেখেছেন। তারই একজন মোঃ আরিফ শেখ। তিনি গত কয়েকবার তাঁর পল্টি খামারে বিভিন্ন প্রজাতির মুরগীর বাচ্ছা উঠিয়ে চরম ভাবে মার খেয়েছেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হওয়ায় তিনি তাঁর ফার্মের তিনটি সেটের ১টিতে ৫হাজার ১শত মুরগীর বাচ্ছা তুলেছেন। এর মধ্যে সোনালী ২হাজার ও কক ৩১শত। গত চালনে তিনি মুরগী বিক্রয় করে লাভও করেছেন ভাল। মোঃ আরিফ শেখ বলেন, চাকুরীর পিছনে না পড়ে থেকে যদি শিক্ষিত বেকার যুবকরা পল্টি খামরের দিকে ঝুকে পড়েন তবে অনেকের বেকারত্ব ঘুচানো সম্ভাব হতো।

বেনাপোল প্রতিনিধি

ভারতে সীমিত আকারে পূজা স্পেশাল ইলিশ রপ্তানির ১২ টনের প্রথম চালান সোমবার বিকেলে বেনাপোল বন্দর দিয়ে রফতানি হয়েছে ভারতে। রোববার ৯ জন ইলিশ রপ্তানিকারককে মোট ১ হাজার ৪৭৫ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। খুলনাস্থ জাহানাবাদ সি ফিশ লিমিটেড নামে একটি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান আজ ১২ টন ইলিশ মাছ ভারতে রপ্তানি করেছেন। প্রতি কেজি ইলিশ মাছ ১০ মার্কিন ডলার মূল্যে রপ্তানি করা হচ্ছে ভারতে। আজ  মোট ১ লক্ষ ২০ হাজার মার্কিন ডলার মূল্যের ইলিশ রপ্তানি করা হয় ভারতে। ভারতের কোলকাতার আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান জে কে ইন্টারন্যাশনাল ১২ টন ইলিশ আমদানি করেছে।  কাস্টমস এর সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন œ করে রফতানি করেন মিলা এন্টারপ্রাইজ নামে একটি সিএন্ডএফ এজেন্ট । ২০১৯ সালের ১০ ই অক্টোবর বাংলাদেশ থেকে ইলিশ মাছের  সর্বশেষ চালান ভারতে রফতানি করা হয়। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল হাসান জানান,এবছর ১ হাজার ৫ শত মেট্রিক টন ইলিশ মাছ ভারতে রপ্তানি করার অনুমতি দিয়েছে বানিজ্য মন্ত্রনালয়। বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, ইলিশ রফতানির প্রথম চালান আজ বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে গেছে। দ্রুত রফতানি করার জন্য কাস্টমমস এর মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা রেল স্টেশনের আশপাশের বস্তি ও কর্মজীবী দরিদ্র পরিবারের সন্তানদের নিয়ে পরিচালিত স্বপ্নপুরী স্কুলের শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা, খাবার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সোমবার বিকেলে খুলনা রেলওয়ে জেলা স্কাউটস ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। খুলনার সোনালী দিন প্রতিবন্ধী সংস্থা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল। অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন সোনালী দিন প্রতিবন্ধী সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ইসরাত আরা হীরা, সোনালী দিন প্রতিবন্ধী সংস্থার উপদেষ্টা সুপতা বৈদজ্ঞ, মাসাস-এর শিশু সুরক্ষা সমন্বয়ক কৃষ্ণা দাশ, সোনালী দিন প্রতিবন্ধী সংস্থার সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম শিমুল ও মো. সাব্বির খান, সহ-সাধারণ সম্পাদক নাজনীন জাহান সৌমী, পড়শি’র নূরুন নাহার হীরা, স্বপ্নপুরী স্কুলের অধ্যক্ষ তামান্না ইয়াসমিন মুন্নী, মো. সবুজুল ইসলাম, এম মোস্তফা কামাল প্রমুখ।

অতিথিরা বলেন, সমাজের সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের একটু যতœ ও দায়িত্ব নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ালেই তারাও ভাল কিছু করতে পারবে। শিক্ষার আলো দিয়েই শিশুদের আলোকিত করতে হবে। এজন্য সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের ভাগ্য উন্নয়নে সরকারের সাথে সমাজের বিত্তবান লোকদের এগিয়ে আসতে হবে।

মহসেন জুট মিলস শ্রমিকদের চুড়ান্ত পাওনা পরিশোধের দাবীতে শ্রম কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালিত: ৩ দিনের কর্মসূচী ঘোষণা

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

খুলনার শিরোমণি শিল্পাঞ্চলের ব্যক্তিমালিকানাধীন মহসেন জুট মিলস শ্রমিক কর্মচারীদের চুড়ান্ত পাওনা পরিশোধের দাবীতে পুর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১৪ সেপ্টেম্বর সোমবার সকাল ১০ টা থেকে ১টা পর্যন্ত ৩ ঘন্টা শ্রম পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালিত হয়। নগরীর বয়রাস্থ শ্রম পরিচালকের কার্যালয় মহসেন জুট মিলস কর্মচারীরা তাদের সকল পাওনা পরিশোধের দাবীতে ঘেরাও কর্মসূচী পালন করা হয়। কর্মসূচী চলা কালে সভাপতিত্ব করেন সাবেক সিবিএ সভাপতি শহিদুল্লাহ খা। ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিক পরিবারের সন্তান সাংবাদিক সাইফুল্ল াহ তারেক এর পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্বারী মোঃ আছহাব উদ্দিন, ইঞ্জিল কাজী, মাহাতাব উদ্দিন, ইব্রাহিম কাগজি, সাবেক সিবিএ সাধারণ সম্পাদক খান গোলাম রসুল, সাংবাদিক মিহির রঞ্জন বিশ্বাস প্রমুখ । সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় খুলনা জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারকলিপি প্রদান, ১৮ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪ টায় মহসেন জুটমিলস শ্রমিক কলোনীতে শ্রমিক জনসভা, ২০ সেপ্টেম্বর  রবিবার খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মুখে পদযাত্রা। নেতৃবৃন্দরা আরোও বলেন, মিল মালিক জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ত্রি পক্ষিয় বৈঠকের সিদ্ধান্ত অমান্য করে মিলের সিবিএদের সাথে আতাত করে একের পর এক ওয়াদা ভঙ্গ করছে। তাই মালিক ও সিবিএ নেতাদের দ্রুত গ্রেফতারের জোর দাবী জানান। এদিকে ঘেরাও কর্মসূচী চলাকালীন শ্রমপরিচালক মোঃ মিজানুর রহমান ও জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি নির্বহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ রাকিবুল হাসান উপস্থিত হয়ে শ্রমিকদের বলেন, মিল মালিক এক সপ্তাহের সময় চেয়েছেন, কিন্তু আমি স্পষ্ট বলে দিয়েছি ১৭ সেপ্টেম্বর  হাজিরার দিন আদালতই এর ব্যবস্থা নিবেন। তিনি আরোও বলেন, আপনি গত ৭ বছর ধরে শ্রমিকদের সকল পাওনার পরিশোধ করার অঙ্গিকার করা স্বত্বেও এ পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেননি এজন্য আপনার উপর আমাদেও আর কোন আস্থা নাই, আদালতই এর ব্যবস্থা নিবে।

শরনখোলা প্রতিনিধি

সুন্দরবনে মাছ ধরতে গিয়ে বিষক্ত সাপের কামড়ে এক জেলের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে । ঘটনাটি ঘটেছে ১৩ সেপ্টেম্বর সোমবার  গভীর রাতে পুর্ব সুন্দর-বনের শরনখোলা রেঞ্জের আড়াই বেকী এলাকায়। নিহত জেলে আবু হাওলাদার (৬০) শরনখোলা উপজেলার বন সংলগ্ন সোনাতলা গ্রামের বাসিন্দা মোঃ হরমুজ হাওলাদারের ছেলে । নিহতের পরিবার সুত্র জানায় , জেলে আবু হাওলাদার ১০ সেপ্টেম্বর শনিবার সকালে শরনখোলা ষ্টেশন থেকে পাস অনুমতি সংগ্রহ করে একই গ্রামের বাসিন্দা জেলে নাছির হাওলাদার ও হাসান হাওলাদারের সাথে মাছ ধরার জন্য সুন্দরবনের ওই এলাকায় যায় । এবং মাছ ধরার জন্য নদীতে পুতে রাখা জাল তুলতে গেলে জালে জড়িয়ে থাকা একটি বিষধর সাপ সোমবার রাত অনুমান ৩টার দিকে আবু হাওলাদার দংশন করেন। এতে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে সংঙ্গীয় জেলেরা তাকে উদ্বার করে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন এবং পথিমধ্যে বনসংলগ্ন চালিতা বুনিয়া এলাকার ওঝার মাধ্যমে আবুকে দু-দফা ঝাড়-ফুক করান । এতে তিনি সুস্থ না হওয়ায় মঙ্গলবার বিকেলে পরিবারের স্বজনরা তাকে শরনখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জেলে আবু হাওলাদারকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। এ ব্যাপারে জানার জন্য পূর্ব সুন্দর-বনের শরনখোলা রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক মোঃ জয়নাল আবেদীনের মুঠোফোনে ফোন করা হলে তিনি কোন বক্তব্য না দিয়ে লাইনটি কেটে দেন ।

রামপাল ( বাগেরহাট)  সংবাদদাতা

রামপালে চলন্ত ট্রাকে রাখা বাঁশের ধ্বাক্কায় যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে ৪ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। রামপাল থানার এসআই মনিরুল কবির জানান, খুলনা মোংলা মহাসড়কের চেয়ারম্যানের  মোড় নামক স্থানে বেলা সাড়ে ১১ টায় মোংলাগামী বাঁশ বোঝাই ট্রাকের ধাক্কায় যাত্রীবাসটি খাদে থাকা ইটের স্তুপের সাথে সজোরে আঘাত করে। এতে বাসে থাকা ৪ যাত্রী আহত হন। আঘাতকারী ট্রাক নং ঢাকা মেট্রো ট-১৮-৫৮৮৫। যাত্রীবাহী বাস পিরোজপুর জ-০৫-০০১৩। আহতরা হলেন, রামপাল উপজেলার ভেকটমারী গ্রামের রবিন্দ্রনাথের পুত্র বিষ্ণুপদ, গাববুনিয়া গ্রামের মোহাম্মদ আলীর পুত্র ইসরাফিল শেখ, মোড়েলগ্জর সোহাগ হাওলাদারের স্ত্রী মীম ও মোংলার নূরুল ইসলামের কন্যা নুসরাত। এদের মধ্যে মীমের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অনদের প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ সময় ট্রাক ও বাসের চালক বা হেল্পারদের পাওয়া যায়নি। রামপাল থানার ওসি মোঃ মনজুরুল আলম দুর্ঘটনা ও আহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছার সোলাদানা ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে অসহায় দুঃস্থ প্রতিবন্ধি, বয়স্ক, বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তদের মাঝে কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে কার্ড বিতরণ করেন ইউপি চেযারম্যান এসএম এনামুল হক। এর মধ্যে প্রতিবন্ধি ১৬৭ টি, বয়স্ক ৬৯ টি, বিধবা  ও  স্বামী পরিত্যক্তা ৬৫ টি কার্ড। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য আবুল কাসেম, ঠাকুর দাস সরদার, কল্যানী রানী মন্ডল, মোঃ আঃ সবুর, আজিজুর রহসান লাভলু, আবু সাঈদ মোল্যা, রাজেশ কুমার মন্ডল, আবু বকর সিদ্দিক শিকারী, জেসমিন সুলতানা, সরদার মোস্তাক আহমেদ, ও মফিজুল ইসলাম টাকু। কার্ড বিতরণ শেষে চেয়ারম্যান উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, নানা প্রতিকুলতা উপেক্ষা করে আমাকে বার বার বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করে ঋণী করে রেখেছেন। ইউনিয়ন পরিষদের সেবক হয়ে আপনাদের পাশে আছি, ছিলাম এবং থাকব।

পাইকগাছা প্রতিনিধি

পাইকগাছা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরে পরিবার ভিত্তিক কর্মসংস্থান কর্মসূচীর আওতায় গড়ইখালী ইউনিয়নের কানাখালী গ্রামের হত-দরিদ্রদের মাঝে ঋণের চেক প্রদান করা হয়েছে।

সোমবার সকালে উপজেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কার্যালয়ে পরিবার ভিত্তিক কর্মসংস্থান কর্মসূচীর আওতায় ৩০ জন সদস্য ও সদস্যা হত-দরিদ্রদের মাঝে জনপ্রতি ২০ হাজার করে মোট ৬ লাখ টাকার ঋণের চেক বিতরণ করেন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ ওবায়েদুল হক হাওলাদার। এসময়ে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সহকারী যুব উন্নয়ন অফিসার গোবিন্দ কুমার দে, অফিসের সহকর্মীবৃন্দ সহ ৩০ জন সদস্য সদস্যাগণ। ১৩ জন গাভী পালান, মৎস্য চাষী ১২ জন, হাঁস-মুরগী পালন ৪ জন এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ১ জন সহ মোট ৩০ জন হত-দরিদ্রদের মধ্যে মোট ৬ লাখ টাকার ঋণের চেক বিতরণ করা হয়েছে।

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা

 করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক বৃদ্ধা নারীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার রাতে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এনিয়ে, জেলায় করোনার উপসর্গ নিয়ে সোমবার পর্যন্ত মারা গেছেন অন্ততঃ ৯৪ জন আর ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ৩১ জন। মৃত ওই নারী হলেন, সাতক্ষীরা শহরেরর রসুলপুর গ্রামের মৃত রায়হান উদ্দীনের স্ত্রী আনিছা খাতুন (৮৫)।

মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, জ¦র, সর্দি, কাশি, শ^াসকষ্ট ও কিডনিজনিত রোগসহ করোনার বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে আনিছা খাতুন গত ১০ সেপ্টেম্বর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মারা যান। তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হলেও এখনও পর্যন্ত তার রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডুতে বিসারত আলী (৪৭) নামের এক কৃষক বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে নিহত হয়েছেন। সোমবার দুপুরে ওই উপজেলার পোলতাডাঙ্গা গ্রামে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। বিসারত আলী ওই গ্রামের মৃত কেসমত আলীর ছেলে। পোলতাডাঙ্গা গ্রামের আবুল হোসেন জানান, সোমবার দুপুরে বিসারত আলী গোসল করে তারের উপর লুঙ্গি শুকাতে গেলে বিদ্যুতায়িত হয়ে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হরিনাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। হরিনাকুন্ডু থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রহিম মোল্লা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কয়রা প্রতিনিধি

মহামারি করোনা ও ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ সাড়ে ৩ হাজার পরিবারে খাদ্য সহায়তার জন্য নগত অর্থ, খাবার পানি সংগ্রহের জন্য পানির ট্যাংক, শিক্ষা সামগ্রীসহ হাইজিংক প্যাক বিতরণ কার্যক্রম শুরু করেছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা জেজেএস। সংস্থাটি দীর্ঘ ৩ মাস ব্যাপী জেজেএস-১ ও জেজেএস-২ নামে দুটি প্রকল্পের আওতায় গত ১০ই আগষ্ট থেকে প্রাথমিকভাবে কার্যক্রম শুরু করেছে এবং ইতোমধ্যেই ৭৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। জানা গেছে প্রথম প্রকল্পের আওতায় উপজেলার কয়রা, উত্তর ও দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নে দাতা সংস্থা জাপান প্লাটফর্ম(শাপনা নীড়) এর সহযোগিতায় ১৮০০ পরিবারে নগত অর্থ, আশ্রয় সামগ্রী এবং হাইজিং প্যাক বিতরন করবে। এছাড়া প্রকল্প -২ দাতা সংস্থা এডুকেশন এন্ড ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন(এডুকো) কয়রা ইউনিয়নে ১২৭৫ পরিবারে খাদ্য সহায়তার জন্য নগত অর্থ ২০০ পরিবারে পানির ট্যাংক ১২৭৫ পরিবারে হাইজিং প্যাক ও ২৫৫০ পরিবারে শিশুদের মাঝে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ করার প্রস্তুতি নিয়েছেন। সূত্র জানয়, হিউম্যানিটেরিয়ান এ্যাসিসট্যান্টস ফর দ্যা আম্পান আ্যফেকটেড ট্রিপল লিভিং ইন সাউদার্ন পাট অফ বাংলাদেশ প্রকল্পের আওতায় ৫ বছরের শিশু আছে, প্রতিবন্ধী শিশু, স্কুলে যাওয়া, আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ ঘর এবং করোনায় আক্রান্ত দরিদ্র পরিবার এসব সহায়তার আওতায় আসছে। সে জন্য জেজেএস এর একাধীক মাঠকর্মী ওয়ার্ড মেম্বরদের মাধ্যমে তালিকা সংগ্রহ করে বাড়ী বাড়ী তদন্ত শুরু করেছে। এ বিষয় জেজেএস এর স্থানীয় প্রকল্প ম্যানেজার রতন কুমার বিশ্বাস সাংবাদিকদের জানান, জেজেএস দীর্ঘ ২ যুগেরও বেশি সময় ধরে এ উপজেলায় দূর্যোগ পরবর্তী ক্ষতিগ্রস্থদের বিভিন্নভাবে সহায়তা দিয়ে আসছে এবং তারই ধারাবাহিকতায় কোভিড-১৯ এবং ঘূর্ণিঝড় আম্পানের জলোচ্ছাসে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে সহাযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন সংস্থাটি। তিনি বলেন, জেজেএস -১ ও ২ নামে দুটি প্রকল্পের আওতায় প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্থদের যাচাই বাছাই এর কাজ শেষ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, সোমবার থেকে ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তিদের নগত অর্থ দিতে রকেট চালু করা হবে এবং আগামী এক সম্পাহের মধ্যে অন্যান্য মালমাল বিতরনের মাধ্যমে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের মণিরামপুরে করোনাকালীন ক্ষতিগ্রস্থ পারিবারিক গরু খামারিদের তালিকা প্রস্তুত করছে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিস। সব ইউপির মাধ্যমে চলছে এই তালিকার কাজ। অন্য ইউনিয়নের তালিকা প্রস্তুত বিনা টাকায় হলেও বিপত্তি ঘটেছে রোহিতা ইউনিয়নে। ওই ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ খামারিদের তালিকা প্রস্তুতে ইউপি চেয়ারম্যান ও সচিবের বিরুদ্ধে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ করা হচ্ছে, রোহিতা ইউপি চেয়ারম্যান আবু আনছার সরদার ও ইউপি সচিব কৃষ্ণ গোপাল মুখার্জি লোকপ্রতি সাড়ে ৫০০ টাকা করে আদায় করছেন। ট্রেড লাইসেন্সের নামে তারা এই অর্থ হাতিয়েছেন।

যদিও উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা বলছেন, তালিকা তৈরিতে ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র খামারির ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি, মোবাইল নম্বর ও বাড়িতে পালিত গরুর ছবি ছাড়া আর কিছুই লাগবে না।

তাছাড়া বাড়িতে দুই-চারটা গরু পালন করলে ট্রেড লাইসেন্স করতে হবে! চেয়ারম্যান ও সচিবের এটা কোন আইন সেটাই এখন প্রশ্ন। আর প্রাণি সম্পদ অফিসের সংশ্লিষ্ট ইউপিতে কর্মী থাকলেও তাকে বাদ রেখে কেন মেম্বর, চেয়ারম্যান বা সচিব এই তালিকা করছেন সেটাও স্পষ্ট নয়।

উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিস সূত্র জানায়, দুইটি দুগ্ধদানকারী গরু দিনে ১০ কেজি করে দুধ দেয় এমন দুই-পাঁচটি বা পাঁচ-নয়টি গরু পালনকারী কতজন ক্ষুদ্র খামারি করোনাকালীন মণিরামপুরে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন; ঢাকা থেকে তাদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। সেই অনুযায়ী মণিরামপুর থেকে দুই হাজার চারশ’ খামারির তালিকা প্রস্তুতির কাজ চলছে। এই আবেদনকারিরা মোবাইলের মাধ্যমে সরকারিভাবে পাঁচ-ছয় হাজার টাকা পেতে পারেন।

রোহিতা ইউপির সরণপুর গ্রামের ফুরকান আহমেদ বাড়িতে দেশি জাতের ৫-৭টি গরু পালন করেন। ফুরকান আহমেদ বলেন, আবেদন করতে যেয়ে আমার ৬১০ টাকা খরচ হয়েছে। চেয়ারম্যান আবেদনে সহি করেন কিনা সেই ভয়ে টাকা দিছি। সরকারি টাকা পাব কি পাব না তাও জানিনে।

শ্যামকুড় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি বলেন, আমার ইউনিয়নে প্রাণি সম্পদ অফিসের কর্মী আছে। তাকে দিয়ে ১৭০ জনের তালিকা প্রস্তুত করিয়েছি। কারো কাছ থেকে একটি টাকাও নেওয়া হয়নি।

রোহিতা ইউপি সচিব কৃষ্ণ গোপাল মুখার্জি বলেন, আবেদনকারীদের কাছ থেকে ট্রেড লাইসেন্স বাবদ ৫৩০ টাকা করে নিয়েছি। টাকার রশিদসহ তালিকা অফিসে জমা দেওয়া হবে।

বাড়িতে দুই-চারটা গরু পালন করলে ট্রেড লাইসেন্স লাগে কিনা এমন প্রশ্নে সচিব বলেন, এরাতো কোন সময় লাইসেন্স করিনি। তাই এই সুযোগে করিয়ে নিলাম। অবশ্য এসব ব্যাপারে জানতে চাইলে সচিব কৃষ্ণ গোপাল মুখার্জি একাধিকবার নিউজ না করার জন্য অনুরোধ করেন।

ওই ইউপি চেয়ারম্যান আবু আনছার সরদার বলেন, ট্রেড লাইসেন্সে সাড়ে ১২শ’ টাকা খরচ। আমরা কমিয়ে ৯৫ জন আবেদনকারীর কাছ থেকে ৫৩০ টাকা করে নিয়েছি।

মণিরামপুর উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা আবুজার ছিদ্দিকী বলেন, করোনাকালীন ক্ষতিগ্রস্থ পারিবারিক খামারিদের তালিকা তৈরিতে আমার অফিসে কোন টাকা লাগে না। চেয়ারম্যান-সচিবরা টাকা নিলে সেটা তাদের ব্যাপার।

মণিরামপুরের ইউএনও সৈয়দ জাকির হাসান বলেন, বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

আসাদ, দিঘলিয়া প্রতিনিধি

খুলনা মহানগরীর সঙ্গে ভৈরব নদ দ্বারা বিচ্ছিন্ন দিঘলিয়া উপজেলা। এ উপজেলার প্রায় দুই লাখ মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ভৈরব সেতু স্বাধীনতার ৪৯ বছর পর পূরণ হতে চলছে। দীর্ঘদিনের প্রত্যাশিত ভৈরব নদের ওপর সেতু নির্মাণকাজ শুরু হচ্ছে আগামী নভেম্বর/ ডিসেম্বর মাসে। সেতুটি নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলে খুলনা নগরীর ওপর মানুষের চাপ কমে যাবে। নদীর ওপারে কলকারখানা স্থাপনসহ বসতি বিকেন্দ্রীকরণ হবে এবং দিঘলিয়া উপজেলার প্রায় দুই লাখ মানুষ ১৫-২০ মিনিটের মধ্যে খুলনা শহরে যেতে পারবে। গত ২৭ জুলাই ভৈরব নদের ওপর সেতু নির্মাণ কাজের দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ছিল গত ৩১ শে আগস্ট পর্যন্ত। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সেতু নির্মাণের জন্য ম্যাক্স ইন্টারন্যাশনাল, ওয়াহিদ কনষ্ট্রাকশন, মেসার্স মোজাহার ইন্টারপ্রাইস ও মেসার্স তাহের ব্রাদার্স নামে ৪ টি প্রতিষ্ঠানের দরপত্র জমা পড়েছে। এ মূহুর্তে কাগজ পত্র যাচাই বাছাই এর কাজ চলছে। যাচাই বাছাই শেষে যোগ্য প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেওয়া হবে। ১ দশমিক ৩১৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের সেতু নির্মাণে সম্ভব্য মোট ৬১৭ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যায় ধরে প্রকল্পটি গত বছর ১৭ ডিসেম্বর একনেকে অনুমোদন পায়। যা পরবর্তীতে আনুসঙ্গিক অন্যান্য খরচ সহ ৭৩৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকা নির্ধারন করা হয়। এর মধ্যে শুধু সেতু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০৩ কোটি টাকা। বাকি টাকা ব্যয় হবে জমি অধিগ্রহণসহ অন্যান্য কাজে।

সড়ক বিভাগের প্রকৌশলীরা জানান, বিভিন্ন পরীক্ষার পর ভৈরব নদের পানি প্রবাহ ও নৌযান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে নদী থেকে ৬০ ফুট উঁচুতে পিসি গার্ডার নকশায় সেতুটি নির্মিত হবে। আর সেতুর সঙ্গে সড়কের সংযোগ স্থাপন করতে নগরীর ভেতরেও সেতুর বর্ধিতাংশ পড়ছে। অর্থাৎ দৌলতপুর রেল স্টেশন থেকে ভৈরব নদ পর্যন্ত আধা কিলোমিটার এলাকায় ওভারপাস থাকবে। নদীর ওপারেও ওভারপাস হয়ে সেতু মিশবে দিঘলিয়া উপজেলা পরিষদ মোড় এলাকায়।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সুত্রে যানা যায়, ওভারপাস বা সংযোগ সড়কের জন্য প্রায় ২৮ একর জমি অধিগ্রহণ করতে হবে। ওই এলাকার বেশিরভাগই শিল্পকারখানা। এ জন্য অধিগ্রহণ ব্যয় তিনগুণ ধরে প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে। মূলত এ কারণেই প্রকল্পের ব্যয় বেড়ে গেছে। যাদের জমি নেওয়া হবে তারা তিনগুণ বেশি দাম পাবেন। ফলে কেউই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন না। দরপত্র যাচাই-বাছাই ও আনুষঙ্গিক কাজ শেষ করে যত দ্রুত সম্ভব কার্যাদেশ দেওয়া হবে। আগামী নভেম্বর/ডিসেম্বর মাসে মাঠ পর্যায়ে সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হবে বলে তারা আশা করছেন। ইতিমধ্যে জমি অধিগ্রহণের জন্য  জেলা প্রশাসনের কাছে প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। সেতু নির্মাণে সময় ধরা হয়েছে তিন বছর। সেতুটি দ্রুততম সময়ে নির্মাণের জন্য, খুলনা-৪ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সেতুটি নির্মাণের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করে একাধিকবার জাতীয় সংসদে কথা বলেছেন।

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি

জনতা ও সাংবাদিকদের তোপের মুখে ক্ষমা চাইলেন কপিলমুনির বহু আলোচিত তপন পাল ওরফে বিড়ি তপন ওরফে জামাই তপন । শুধু ক্ষমা প্রার্থনা নয়, নিজের ফেইসবুকে লেখা একটি বিতর্কিত স্টাটাসও ডিলিট করলেন তিনি। এর আগে কপিলমুনি ভূমি অফিসের নায়েব জাকির হোসেন গত ৯ সেপ্টেম্বর কপোতাক্ষ নদের ওপারে গভীর রাতে জনৈকা গৃহবধুর ঘরে প্রবেশ করলে গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায়।

গ্রামবাসীর অভিযোগ, নায়েব জাকির অবৈধ সম্পর্কের জের ধরে ওই বাড়িতে গভীর রাতে প্রায় যাওয়া আসা করে আসছিল। গ্রামের পরিবেশ বিনষ্ট হওয়ায় গ্রামবাসীদের নায়েবের প্রতি ক্ষোভ জন্মায়, এ কারণে নায়েবকে হাতেনাতে ধরার চেষ্টা করলেও গ্রামবাসী ব্যর্থ হন বলে জানান। এদিকে এঘটনা স্থানীয় বিভিন্ন প্রিন্টিং ও অনলাইন পত্রিকার খবর প্রকাশিত হলে নায়েব জাকিরের অন্যতম দোসর বিড়ি ব্যবসায়ী তপন পাল ওরফে বিড়ি তপন অরফে জামাই তপন তার নিজের ফেইসবুকে নায়েবের পক্ষে নির্লজ্জ চাটুকারিতায় ভরা একটি মিথ্যা ভিত্তিহীন ও সাংঘর্ষিক স্টাটাস লেখে। এতে স্থানীয় জনতা ও সাংবাদিক সমাজের মধ্যে ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দেয়। এক পর্যায়ে রবিবার দুপুরে কপিলমুনি কাঁকড়া পট্টিতে তার এই স্টাটাসের প্রতিবাদ করলে তিনি ক্ষমা চান এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের বিতর্কিত কিছু লিখবেন না বলে উপস্থিত শত শত জনতার সামনে অঙ্গিকার করেন। এমনকি ওই বিতর্কিত স্টাটাসটি ডিলিট করে জনতার রোষানল থেকে রেহাই পান তিনি। 

আরও পড়ুন:  রাজবাড়ি থেকে অপহৃত ছাত্রী মণিরামপুরে উদ্ধার, আটক ৬

খাইরুল ইসলাম নিরব, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার পদমদি গ্রামে ৮ বছরের এক শিশু কন্যা ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। সোমবার সকালে ওই গ্রামের আলম মোল্লার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। সেসময় ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শিশুটি পদমদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণীর ছাত্রী। এ ঘটনায় আশিক হোসেন (১৯) নামের ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আশিক শেখপাড়া দুঃখী মাহমুদ ডিগ্রী কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্র। নির্যাতিতার স্বজনরা জানায়, পাশ্ববর্তী আলমের বাড়ির ফ্রিজে মাছ রাখা ছিল। মেয়েটি সোমবার সকালে ওই মাছ আনতে গেলে আলমের ছেলে আশিক মেয়েটিকে ভয় দেখিয়ে এমন ঘটনা ঘটায়।

এ ব্যাপারে শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ ঘটনার সাথে জড়িত আশিক নামে একজনকে আটক করা হয়েছে এবং ধর্ষিতার পিতা বাদি হয়ে শৈলকুপা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। যার মামলা নং ১০।

মোড়েলগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ পৌর সদরের এসিলাহা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এটিএম মঞ্জুরুল করিম(৫০) চেতনানাশক স্প্রে’র শিকার হয়ে আশংকাজনক অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। স্প্রে করে নগদ টাকা ও স্বর্ণলংকার হাতিয়ে নেয় দুর্বৃৃত্তরা।  

সোমবার পর্যন্ত ২৪ ঘন্টার বেশি সময় অতিক্রান্ত হলেও এখনো তার অবস্থার তেমন কোন উন্নতি হয়নি বলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক জানান। শনিবার রাত ১১টার দিকে পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডে শুভরাজকাঠি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

শিক্ষকের স্ত্রী নাছিমা শাহিন জানান, ঘটনার দিন শনিবার রাত ৯টার দিকে পাশর্^বর্তী তাদের পুরাতন বাড়ি থেকে ফিরে স্বামী শিক্ষক মঞ্জুরুল করিম ছেলে মেয় পরিবার পরিজন নিয়ে খাবার শেষ করে ঘুমিয়ে পড়ে। তারা ধারা করছেন পূর্ব থেকে ঘরের মধ্যে লুকিয়ে থেকে দুর্বৃত্তরা স্পে দিয়ে তাদের স্বামী স্ত্রীকে অজ্ঞান করে ওয়ার্ড ড্রোপে থাকা নিজের পরিহিত কানের দুলসহ ৩ ভরি ওজনের বিভিন্ন স্বর্নের মালামাল ও নগদ ৮ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

রবিবার সকালে অজ্ঞান অবস্থায় তার বড় ভাই শাহাজাহান ফকির ও স্থানীয় লোকজন ওই শিক্ষক ও তার স্ত্রী নাসিমা শাহিন (৪৬) কে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় মঞ্জুরুল করিমকে। থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে শিক্ষক অসুস্থ্য থাকার কারনে তাদের পরিবার থেকে কোন অভিযোগ দায়ের করেননি তারা।

বেনাপোল প্রতিনিধি

বন্দর নগরী বেনাপোল প্রখম শ্রেণীর একটি পৌরসভা। ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত,বেনাপোল পৌরসভার নাগরিকরা ২০১১ সালে একবার ভোট দিতে পেরেছে। ৫ বছর ধরে পৌরসভার ভোটাররা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেনি।

প্রায় ৫ বছর ধরে আদালতে ঝুলে আছে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার ৯ টি মামলা। কবে মামলা নিষ্পত্তি হবে সেটি কেউ নিশ্চিত নয়। এতে মামলা পৌরসভার ভোটগ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন ভোট না হওয়ায় বর্তমান মেয়র আশরাফুল আলম লিটন দুষছেন অনেকেই। তার কলকাঠিতেই মামলার জালে ভোট বন্ধ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পৌর বাসীরা।

অভিযোগ প্রসঙ্গে মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেন, সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার ৯ টি মামলা রয়েছে আদালতে। রাজনৈতিক কারনে মামলা নিয়ে অনেকে না বুঝে আমাকে দোষারাপ করছেন। আমিও চাই মামলা গুলো দ্রুত নিষ্পত্তি হয়ে ভোট হোক। ৩ বছর আগেও মামলাটি নিষ্পত্তির জন্য আমি ও আমার পিরষদ চেষ্টা করেছিলাম। কিন্ত মামলার কোন অগ্রগতি নেই।

পৌর সভা সুত্র জানায়, ২০০৬ সালে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় বেনাপোলকে পৌরসভা হিসাবে ঘোষণা করা হয়। ২০১১ সালের ১লা জানুয়ারী বেনাপোল পৌরসভার প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ নেতা আশরাফুল আলম লিটন। ৫ বছর পর ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারী পৌরসভার মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়। এ সময় নির্বাচন হবার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই সীমানা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে মামলা করেন বেনাপোল পৌর সভার মিয়াদ আলী, আজিবর রহমান সহ আরো দশ জন, যার মামলা নং ৪৩১৩ /১৪, ৪৩১৪ /১৪, ৪৩১৫/১৪। নয় জনের মামলার বাদীর মামলার বিষয় ছিল একই। তারা উল্লেখ করেন, তাদের এলাকায় দরিদ্র মানুষের বসবাস, তারা কম আয়ের মানুষ, তাদের কে পৌর এলাকায় অন্তর্ভুক্ত করা হলে, তাদের ট্যাক্স দিতে হবে বেশী বেশী। ফলে তারা পৌর এলাকার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত হতে চান না।

বেনাপোল পৌরসভার বড়আচড়া গ্রামের বাসিন্দা আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন জানান, আদালতে মামলা থাকায় দীর্ঘদিন নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। ভোট না হওয়ায় মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী হতে ইচ্ছুক নেতাকর্মীরা হতাশ।দীর্ঘদিন পৌরসভার নির্বাচন না হওয়ায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। কাঙ্খিত উন্নয়ন বঞ্চিত নাগরিক সমাজ। বর্তমান পরিষদের জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতাও নেই। সর্বশেষ কবে নির্বাচন হয়েছে সেটি ভুলতে বসেছে নাগরিকরা। দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি করে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হোক। মেয়র আশরাফুল আলম লিটন কৌশলে নিজরে লোক দিয়ে মামলা করিয়ে পৌর সভার নির্বাচন আটকে রেখেছেন দীর্ঘদিন ধরে।

যশোরের জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান বলেন, সম্প্রতি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে পৌরসভার মামলা সংক্রান্ত তথ্য চেয়ে চিঠি দিয়েছে। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে বেনাপোল ও ঝিকরগাছা পৌরসভার মামলা সংক্রান্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। নির্বাচনের ব্যাপারে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় পরবর্তী ব্যবস্থা নেবেন।

যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ আফিল উদ্দিন জানান, আমি শুনেছি বেনাপোল পৌর সভায় বিভিণœ ভাবে সাজানো  মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্বাচন করতে দেয়া হচ্ছে না। বেনাপোল পৌরবাসীর সাথে আমিও চাই একটি সুন্দর নির্বাচন হোক।

তথ্য বিবরণী

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স একটি জরুরি সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান। জনগণের জান-মাল রক্ষায় এ সার্ভিসের সদস্যরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। তিনি বলেন, ভূমিকম্প, অগ্নিদুর্র্ঘটনা, আহতদের সেবা প্রদান, মুমূর্ষু রোগী পরিবহণ, নৌযান দুর্ঘটনা ও সড়ক দুর্ঘটনাসহ যে কোন দুর্যোগে এ বিভাগের সদস্যরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধার কাজে অংশ নেন। মেয়র সোমবার সকালে নগর ভবন শহীদ আলতাফ মিলনায়তনে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা, কেসিসি’র বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান এবং তাঁদের অধিনস্ত শাখা প্রধানদের নিয়ে অগ্নিনির্বাপণ বিষয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন। সিটি মেয়র বলেন, গরম, শীতকালসহ যে কোন সময়ে অগ্নি দুর্র্ঘটনা ঘটতে পারে। সরকার প্রতিটি উপজেলায় একটি করে ফায়ার স্টেশন স্থাপন করেছে। পেশাগত দক্ষতা অর্জনে প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। অগ্নিদুর্র্ঘটনা প্রতিরোধে জনসচেতনা তৈরি করতে হবে। উদ্ধার, অগ্নিপ্রতিরোধ ও অগ্নিনির্বাপণ কার্যক্রম সম্পর্কে জনসাধারণকে বেশি বেশি অবহিত করতে তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আহবান জানান। কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পলাশ কান্তি বালা এবং খুলনা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের  সিনিয়র স্টেশন অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন। এই প্রশিক্ষণে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তা, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান এবং কেসিসি’র অধিনস্ত শাখা প্রধানরা অংশগ্রহণ করেন। পরে নগর ভবন চত্ত্বরে অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধার বিষয়ক মহড়া অনুষ্ঠিত হয়।

খবর বিজ্ঞপ্তি

সরকারি হাজী মুহাম্মদ মুহসিন কলেজ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে কলেজে ভর্তিচ্ছু ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের গরীব অসহায় শিক্ষার্থীসহ সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক ও কলেজে ভর্তি ফরম বিতরন করা হয়। প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু করে কলেজ চলাকালীন সময় পর্যন্ত এই মাস্ক ও ভর্তি ফরম সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরন করছে খালিশপুর থানা ছাত্রলীগসহ কলেজ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। এ ছাড়াও কলেজে ভর্তিচ্ছু ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে সাধ্যমত চেষ্টা করছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের এ মহতি উদ্যোগ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষসহ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকবৃন্দ। শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক ও কলেজে ভর্তি ফরম বিতরন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খালিশপুর থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শেখ আশিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রাকিবুল ইসলাম, মোঃ মিলন শেখ, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা শেখ ইমন, ওবায়দুর রহমান, খালিশপুর থানা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক মোঃ আনিছুর রহমান, প্রচার সম্পাদক অহিদুজ্জামান। এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা অনিক সরদার, হাসিব, জসিম, বদিউর, সজিব, সাইফুল, প্লাবন, আফজাল প্রমুখ।

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ

জেলার ফকিরহাটে মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত এক পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ । ১৩সেপ্টেম্বর-২০২০ইং রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার আড়ুয়াডাংগা গ্রাম থেকে ওই আসামীকে আটক করা হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফকিরহাটের মৌভোগ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আশরাফুজ্জামানের নেতৃত্বে আটকের পর রাতেই আসামীকে ফকিরহাট মডেল থানায় সোপর্দ করা হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। আটককৃত সাজাপ্রাপ্ত আসামী রবিউল ইসলাম রবি (৩০) ওরফে সানি হলেন ফকিরহাট উপজেলার নলধা মৌভোগ ইউনিয়নের আডুয়াডাঙ্গা গ্রামের  মৃতঃ হেকমত আলীর পূত্র। রবি ওরফে সানি একটি মাদক মামলায় (মামলা নং-জি,আর ৭৭/১৬) এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী।

ইলিয়াস হোসেন, তালা

তালায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মহিলাসহ ৪জনকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষ হাফিজুর গংরা। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টার দিকে উপজেলার সুজনশাহা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। আহতরা হলেন সুজনশাহা গ্রামের মৃত কিয়ামউদ্দীনের ছেলে খোরশেদ আলম (৬০), তার স্ত্রী রাবিয়া বেগম (৪৫), মেয়ে মাসুমা (৩২) ও ভাই আব্দুল রাজ্জাক শেখ (৬৪)। এরমধ্যে খোরশেদসহ গুরুতর আহত ২জনকে তালা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, একই এলাকার কওছার আলী শেখের ছেলে হাফিজুর রহমান গংদের সাথে খোরশেদ আলম গংদের দীর্ঘদিন ধরে ১৬ শতাংশ জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে সোমবার বেলা ১২টার সময় হাফিজুর গংরা পরিকল্পিতভাবে দা,কুড়াল ও বাঁশের লাঠিসহ জমি দখল নিতে ফলন্ত লেবু গাছ, কুলগাছসহ বিভিন্œ গাছ কাটতে শুরু করে। এ সময় তাদেরকে বাঁধা দিতে গেলে হাফিজুর রহমান গংদের হামলায় তারা আহত হয়। এ সময় এলাকাবাসী তাদেরকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে তালা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

 তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী রাসেল জানান, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তেরখাদা প্রতিনিধি

তেরখাদায় এক পুলিশ কসস্টেবল কর্তৃক ৪য় শ্রেণীর এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ এবং ঐ ছাত্রীকে গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের উত্তর মোকামপুর গ্রামের ফুল দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে পুলিশ কনস্টেবল আলমগীর শিকদার এর পুত্র পুলিশ কনস্টেবল রেজাউল শিকদার একই গ্রামের ৪র্থ শ্রেণীতে পড়–য়া কন্যাকে নিজ ঘরে ডেকে নিয়ে যৌন নির্যাতনের সময় তার আতœচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। উল্লেখ্য কনস্টেবল রেজাউল নাটোর জেলা পুলিশ লাইনে দায়িত্বরত আছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়। বর্তমানে তিনি ছুটিতে বাড়ি এসেছেন। এঘটনায় রেজাউল কে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন গ্রেফতার করে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানা হেফাজতে রেখেছে। তার নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা রুজ হয়েছে। যার নং ০১। তারিখ-১৪/০৯/২০২০ইং। এঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) দক্ষিণ বিএম আবুল কালাম আজাদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ সার্কেল এম রাজু আহমেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

তেরখাদা প্রতিনিধি

তেরখাদার উপজেলার নাচুনিয়া গ্রাম আইন অমান্য করে  নবম শ্রেণীতে পড়–য়া ছাত্রীর বাল্য বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। এঘটনায় করোনা পরিস্থিতির ভিতরেও বৃহৎ আকারে বিয়ের অনুষ্ঠান  সম্পন্ন হয়েছে। সূত্র মতে জানা যায়, উপজেলার নাচুনিয়া গ্রামের রবিউল ইসলামের নবম শ্রেণীতে পড়–য়া কন্যার কয়েকদিন পূর্বে গোপনে বিবাহ সম্পন্ন হয়। তার অনুষ্ঠান মহা ধুমধামে গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই বিয়ে বাড়িতে কোন একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিয়ের আগের দিন রাতে ছোট খাটো সংঘর্ষের সৃষ্টি হলে তেরখাদা থানার টহলরত এসআই মনিরুজ্জামান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করেন এবং বাল্য বিবাহের ব্যাপারে জানতে পেরে বিয়ে টি বন্ধ করার নির্দেশ দেন। কিন্তু এরপরের দিন গতকাল বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হওয়ার সময় বিভিন্ন সোর্স থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল কুমার সাহাকে অবহিত করলে তিনি সহকারী কমিশনার (ভূমি) মমতাজ বেগম কে সেখানে যেতে বলেন। সহকারী কমিশনার ঘটনাস্থলে না গিয়ে বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে জানতে পারলেন বিয়ের কাজ সম্পন্ন হয়ে গিয়েছে। ঘটনাস্থলে বর কন্যা নেই। তাই সেখানে আর কোন পদক্ষেপ নেন নাই। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, চেয়ারম্যান ১৮ বছর দিয়ে জন্ম সনদ দিলে বিয়ের জন্য আইনগত কোন বাধা থাকেনা। তবে পুরো বিষয়টি আমি দেখছি।

খবর বিজ্ঞপ্তি

গতকাল সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধা ৭ টায় পাওয়ার হাউজ মোড়¯’ আইএবি মিলানায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগরের উদ্দোগে নগর, থানা ও সহযোগী সংগঠনের উর্দ্বতন  দায়িত্বশীলদের সাথে এক যৌথসভা নগর সভাপতি আলহাজ্ব মুফতী মুফতী আমানুল্লাহ’র সভাপতিত্বে ও নগর সেক্রেটারী শেখ মোঃ নাসির উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। যৌথসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে আলোচনা করেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমীর হাফেজ মাওলানা অধ্যক্ষ আব্দুল আউয়াল। প্রধান আলোচক ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সহকারী মহাসচীব মাওলানা আব্দুল কাদের। যৌথসভায় আরও আলোচনা করেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর সহ সভাপতি মাওঃ মোজাফ্ফার হোসাইন, মুফতী মাহবুবুর রহমান, জয়েন্ট সেক্রেটারী মাওঃ দ্বীন ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওঃ মুফতী ইমরান হোসাইন, সহ সাংগঠনিক মোল্লা রবিউল ইসলাম তুষার, প্রচার সম্পাদক ডাঃ মাওঃ নাসির উদ্দিন, সহ প্রচার গাজী ফেরদাউস সুমন, দপ্তর সম্পাদক মোঃ শরিফুল ইসলাম, সহ দপ্তর মোঃ সাইফুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক মুক্তিযুদ্ধা জিএম কিবরিয়া, সহ অর্থ আলহাজ্ব মোমিনুল ইসলাম, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওঃ হাফিজুর রহমান, সহ প্রশিক্ষণ মোঃ আব্দুল্লাহ আল নোমান, ছাত্র ও যুব বিষয়ক মোঃ ইমরান হোসেন মিয়া, কৃষি ও শ্রম বিষয়ক আলহাজ্ব আমজাদ হোসেন, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক মাওঃ শায়খুল ইসলাম বিন হাসান, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট কামাল হোসেন, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুস ছালাম, মহিলা ও পরিবার বিষয়ক হাফেজ আব্দুল লতিফ, সংখ্যালঘু বিষয়ক আলহাজ্ব আবু তাহের, নির্বাহী সদস্য শেখ হাসান ওবায়দুল করীম, মাওঃ সিরাজুল ইসলাম, আলহাজ্ব জাহিদুল ইসলাম, হাফেজ খায়রুল ইসলাম, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন খুলনা মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ জাহিদুল ইসলাম, সিনিয়র সহ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ,  সাধারণ সম্পাদক গাজী মুরাদ হোসেন, ইসলামী যুব আন্দোলন খুলনা মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কাশেম, সহ সভাপতি মুফতী আব্দুর রহমান মিয়াজী, সাধারণ সম্পাদক মুফতী আমিরুল ইসলাম, ইশা ছাত্র আন্দোলন নগর সভাপতি এইচ এম খালিদ সাইফুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মঈনুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলন সদর থানার সভাপতি আলহাজ্ব আবু তাহের, সেক্রেটারী মোঃ শরিফুল ইসলাম, সোনাডাঙ্গা সভাপতি মুফতী ইমরান হোসাইন, সেক্রেটারী মোল্লা রবিউল ইসলাম তুষার, খালিশপুর থানার সভাপতি হাফেজ আব্দুল লতিফ, সেক্রেটারী মাওঃ হাফিজুর রহমান, দৌলতপুর থানার সভাপতি মোঃ গোলাম সরোয়ার, সেক্রেটারী হাফেজ খায়রুল ইসলাম, খানজাহান আলী থানার সভাপতি মোঃ শেখ জামিল হোসেন, সেক্রেটারী মোঃ কামরুল ইসলাম, লবণচরা থানার সভাপতি মাওঃ দ্বীন ইসলাম, জয়েন্ট সেক্রেটারী মোঃ শফিউল ইসলাম  প্রমুখ।

নড়াইল প্রতিনিধি

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ জহিরুল ইসলাম রেজওয়ানকে (২৪) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় ১৪ জনকে আসামি করে লোহাগড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিহত রেজওয়ানের মা জরিনা বেগম বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান এ তথ্য জানান।  ওসি জানান, দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা লতিফুর রহমান পলাশ হত্যা মামলাসহ ১৩টি মামলার আসামি সোহেল খানকে প্রধানসহ মোট ১৪ জনকে এ মামলায় আসামি করা হয়েছে। সোহেল দিঘলিয়া ইউনিয়নের কুমড়ী গ্রামের বদির খানের ছেলে। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দিঘলিয়া গ্রামের মৃত শেখ সাইফুল ইসলামের ছেলে ছাত্রলীগ নেতা রেজওয়ান বাড়ির পাশে দিঘলিয়া চৌরাস্তা এলাকায় হাঁটছিলেন। এ সময় আসামিরা মোটরসাইকেলে এসে রেজওয়ানের হাত-পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পরে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। ওসি আশিকুর রহমান জানান, পূর্বশত্রুতা ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে রেজওয়ানকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষ। এ ঘটনায় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ১০ জনকে আটক করে। ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততা না থাকায় পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে বলে ওসি জানান।

যশোর প্রতিনিধি

যশোর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুলের বিরুদ্ধে আদালত সমন জারি করেছেন। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালতের (কেশবপুর) বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম এ আদেশ দেন। এদিন কেশবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কাজী আযহারুল ইসলাম মানিক আদালতে ৫০ কোটি টাকার মানহানির একটি পিটিশন দাখিল করেন। পিটিশনে প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, যশোর অফিসের দুই সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম ও মাসুদ আলমকে আসামি করা হলেও আদালত তা আমলে নেয়নি। যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) শাহীন চাকলাদারের বিরুদ্ধে ‘হত্যা পরিকল্পনার’ অভিযোগ সম্বলিত একটি সংবাদ প্রকাশের ঘটনায় কেশবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কাজী আযহারুল ইসলাম মানিক এই পিটিশন দাখিল করেন। পিটিশিনে তিনি দাবি করেন, গত ৭ সেপ্টেম্বর প্রথম আলোর ৬ নম্বর পৃষ্ঠায় ‘সাংসদ শাহীন চাকলাদারের বিরুদ্ধে ‘হত্যা পরিকল্পনার’ অভিযোগ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় তারা বিস্মিত, মর্মাহত এবং বিক্ষুব্ধ হয়েছেন। মামলার এক নম্বর আসামি আনোয়ার হোসেন বিপুল সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে প্রেসকাব যশোর মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলন করে যশোর-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের বিরুদ্ধে হত্যার পরিকল্পনার অভিযোগ উত্থাপন করেন। সেখানে বলা হয়, তিনি কাঁঠালতলাস্থ ব্যক্তিগত কার্যালয়ে বসে তাকে (বিপুল) হত্যার পরিকল্পনাসহ তার (এমপি) নির্দেশে ক্যাডাররা বিপুলের নামে অপপ্রচারে লিপ্ত রয়েছে।

পিটিশনে আরও বলা হয়, এইসব ‘মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক’ বক্তব্য উপস্থাপনের মাধ্যমে শাহীন চাকলাদারের মতো একজন জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সৎ, যোগ্য, ত্যাগী নেতার সুনাম ও সুখ্যাতি বিনষ্ট করেছেন আসামিরা। এ কারণে সংসদ সদস্য ও বাদীর সম্মানহানি হওয়ায় ৫০ কোটি টাকা ক্ষতি হওয়ায় তিনি এই মামলা করেছেন। এই মামলায় আসামি করা হয় মোট চারজনকে। বাদীপক্ষের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম পিটু জানান, বিজ্ঞ আদালত আনোয়ার হোসেন বিপুলের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন। বাকি তিন আসামির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ আমলে নেননি। আদালতের পরবর্তী ধার্যদিন ৭ অক্টোবর। প্রসঙ্গত, গত ৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে প্রেসকাব যশোরে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল সংবাদ সম্মেলন করেন। সেই সংবাদ সম্মেলনে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদারের বিরুদ্ধে ‘হত্যা পরিকল্পনার’ অভিযোগ আনেন।

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি

কপিলমুনির হাউলী সার্বজনীন পূজা মন্দিরের নব-নির্বাচিত কমিটির উদ্যোগে সরকারী স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খুলনা-৬ আসনের সাংসদ শেখ আক্তারুজ্জামান বাবু’র আশু রোগ মুক্তি কামনা করে প্রার্থনা ও ধর্মীয় আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ সঞ্জয় দাশ। মন্দিরের সভাপতি প্রভাষক যতীন্দ্র নাথ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন সাধারণ সম্পাদক মৃত্তুঞ্জয় মন্ডল, সদস্য বিদ্যুৎ মন্ডল প্রমূখ। আলোচনায় প্রধান আলোচক কলিযুগে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের করণীয় ও ধর্মীয় রীতি নিয়ম সম্পর্কে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন।

নড়াইল প্রতিনিধি

চলতি মওসুমে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিামাঞ্চলের ৪ জেলায় পাটের আবাদ হয়েছে ৩৬ হাজার ৪০৫ হেক্টর জমিতে।আবাদকৃত জমিতে ৪লাখ বেল পাট উৎপাদনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে। এ চার জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৬ হাজার ৯শ’৩৯ হেক্টর জমিতে।লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫শ’৩৪ হেক্টর কম জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে বলে জানালেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খুলনা আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা ফয়েজ আহমেদ।

খুলনা আঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে,এ অঞ্চলের চার জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি পাটের আবাদ হয়েছে নড়াইল জেলায়।চলতি মওসুমে নড়াইল জেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩শ’৬৫ হেক্টর বেশি জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে।এ জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২১ হাজার ৯শ’১০ হেক্টর জমিতে।চাষ হয়েছে ২২হাজার ২শ’৭৫ হেক্টর জমিতে।এছাড়া খুলনা জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১হাজার ৫শ’৬০ হেক্টর জমিতে।পাট চাষ হয়েছে ১হাজার ৩শ’ ৬২ হেক্টর জমিতে। সাতক্ষীরা জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১১হাজার ৫শ’৫০ হেক্টর জমিতে।পাট চাষ হয়েছে ১০হাজার ৮শ’ হেক্টর জমিতে।বাগেরহাট জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১হাজার ৯শ’১৯ হেক্টর জমিতে।এ জেলায় পাট চাষ হয়েছে ১হাজার ৯শ’ ৬৮ হেক্টর জমিতে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নড়াইলের উপ-পরিচালক দীপক কুমার রায় বলেন, এ মওসুমের পাট কর্তন শেষে পথে।এ পর্যন্ত ৯৭শতাংশ জমির পাট কাটা শেষ হয়েছে।পাট জাগ শেষে পাটগাছ থেকে আঁশ বাছাই চলছে।পাটের দামও ভালো।বর্তমানে প্রতিমণ পাট ২হাজার ৪শ’ টাকা থেকে ২হাজার ৫শ’ টাকা দরে বাজারে বিক্রি হচ্ছে।নড়াইল পাট চাষের জন্য উপযোগী একটি জেলা। এ জেলায় পাটের ফলনও ভালো হয়েছে।গত বছর পাটের দাম ভালো পাওয়ায় চলতি মওসুমে এ জেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩শ’৬৫ হেক্টর বেশি জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে বলে তিনি জানান।

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে) এর সদস্য, খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও ডিবিসি টেলিভিশনের ব্যুরো প্রধান মো. আমিরুল ইসলাম এর শাশুড়ি ফাতেমা আক্তার (৬০) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি …. রাজিউন)। গতকাল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় তিনি খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্বামী, সন্তানসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ মঙ্গলবার নামাজে জানাজা শেষে তাকে গোয়ালখালী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

এদিকে তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন কেইউজে’র নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ মরহুমার রুহের মাগফিরাত কামনা করেন।

বিবৃতিদাতারা হলেন সভাপতি মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সহ-সভাপতি মোঃ হুমায়ুন কবীর ও মহেন্দ্রনাথ সেন, সাধারণ সম্পাদক ও বিএফইউজের নির্বাহী সদস্য মোঃ সাঈয়েদুজ্জামান সম্রাট, যুগ্ম সম্পাদক নেয়ামুল হোসেন কচি, কোষাধ্যক্ষ অভিজিৎ পাল, দপ্তর সম্পাদক জয়নাল ফরাজী, প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক নূর হাসান জনি, নির্বাহী সদস্য আনোয়ারুল ইসলাম কাজল, আল মাহমুদ প্রিন্স ও বিমল সাহা। অনুরূপ বিবৃতি দিয়েছেন বিএফইউজের নির্বাহী সদস্য এস এম ফরিদ রানা।

আলমগীর হোসেন, কেশবপুর প্রতিনিধি,

যশোরের কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুসরাত জাহান ,ও সহকারী কমিশনার( ভূমি) ইরুফা সুলতানার  নির্দেশে সকল ইউনিয়ন ভুমি অফিসে সাপ্তাহিক ক্যাম্প কালেকশন জোর অব্যাহত রয়েছে। ভূমি রাজস্ব আদায়েপ্রজা সাধারণের উৎসাহিত করার জন্য ২নং সাগরদাড়ী ভূমি অফিসে ভূমি উন্নয়ন কর আদায়ী ক্যাম্প করে কর আদায়ের কার্যক্রমের একটি অংশ, সাগরদাড়ী  ইউনিয়নের সৎ ও নিষ্ঠাবান ভূমি  সহকারী কর্মকর্তা  শহিদুল ইসলাম জানান  ক্যাম্প করে কর আদায়েজনগণের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জেগেছে যে কারণে এ  অফিসে প্রতিদিন অন্যান্য দিনের তুলনায় অনেক কর আদায় হচ্ছে। এলাকাবাসী   উপজেলা  নিবার্হী অফিসার নুসরাত জাহান ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইরুফা সুলতানাকে এ ধরনের  উদ্যোগ গ্রহণ করায়  তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।

ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, বটিয়াঘাটা

ব্লাক বেঙ্গল জাতের ছাগল উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় বটিয়াঘাটা উপজেলা প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের আয়োজনে গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় স্হানীয় অফিস চত্বরে ছাগল প্রদর্শনী মেলা উপলক্ষ্যে এক ব্যালি ও পুরষ্কার বিতরনী সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে ও প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ বঙ্কিম চন্দ্র হালদার এর স্বাগত বক্তৃতার মাধ্যমে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা এস এম আউয়াল হক। বক্তৃতা করেন সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মনিরুল মামুন, সমাজসেবা কর্মকর্তা অমিত কুমার সমাদ্দার, ভেটেরিনারি সার্জন ডাঃ প্রীতিলতা দাস, উপজেলা প্রেসকাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, প্রাণি সম্পদ অফিসার মৃন্ময়ী সরকার মিনু। প্রদর্শনীতে ৬০ জন ছাগল পালনকারী খামারী তাদের উন্নত জাতের ছাগল প্রদর্শন করেন।

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি

বটিয়াঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ নজরুল ইসলাম গতকাল সোমবার গল্লামারী স্মৃতি সৌধ এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে মাদক সেবনের দায়ে মাদকদ্রব্য আইনের সংশ্লিষ্ট ধারায় ৪ ব্যক্তির কাছ থেকে ২ হাজার ৫শত টাকা জরিমানা আদায় করেন। অভিযুক্তরা হলেন ওই এলাকার মৃত বারেক করিমের পুত্র মোঃ রবিউল করিম, শহীদ শেখের পুত্র মোঃ সোহেল শেখ, দুলাল খা’র পুত্র আল আমিন খা ও সত্তার মোড়লের পুত্র ইসমাইল মোড়ল। এদের মধ্যে রবিউল করিমকে ১০০০ টাকা এবং অন্য সবাইকে ৫০০ টাকা করে জরিমানা প্রদান করেন। আদালত পরিচালনাকালে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

খান নাজমুল হুসাইন, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরার তালায় করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। সোমবার (১৪ সেপ্টেস্বর) সকালে জাতপুর সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠ চত্বরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে এ ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।  এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তালা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকির হোসেন। জাতপুর করোনা ও দুর্যোগ প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে, স্থানীয় জনগোষ্ঠীর উদ্যোগে এবং বে-সরকারী সংস্থা উত্তরণ এর সহযোগিতায় এলাকার ৮৬ পরিবারের মাঝে উক্ত খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। এ সময় সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক মোঃ আলমগীর হোসেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক সাংবাদিক গাজী জাহিদুর রহমান, জাতপুর করোনা ও দুর্যোগ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি তামজীদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক হেদায়েতুল্লাহ মুকুল, মোঃ জগলুল বিশ্বাস, মোঃ বক্কার বিশ্বাস, উত্তরণের মোঃ রেজওয়ান উল্লাহ, মির্জা মনিরুল ইসলামসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

ফুলবাড়ীগেট(খুলনা)প্রতিনিধি

যোগিপোল ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডের গৃহিনীদের সাথে মতবিনিময় ও স্বাস্থ্য-শিক্ষা উপকরণ বিতরণের অংশ হিসাবে ১৪ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪ টায় যোগিপোল ৭নং ওয়ার্ডের ইউনিট মহিলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এবং জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ সাজ্জাদুর রহমান লিংকনের সহযোগিতায় করোনাভাইরাস প্রাদূর্ভাবে মতবিনিময় সভা ও স্বাস্থ্য-শিক্ষা উপকরণ বিতরণ  হয়। মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও খানজাহান আলী থানা যুবলীগের আহবায়ক মোঃ সাজ্জাদুর রহমান লিংকন। যোগিপোল ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী রুমা খন্দকার মুন্নির সভাপতিত্বে এবং ওয়ার্ড মহিলা নেত্রী রতœা বেগমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ৩৩ নং ওয়ার্ড   আওয়ামী লীগের (যোগিপোল ইউনিয়ন) সভাপতি মোঃ ইউসুফ আলী খলিফা, ৭নং ওয়ার্ড মেম্বর শেখ আমজাদ হোসেন, মহিলা মেম্বর হাফিজা বেগম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবু হেনা বাবলু, খানজাহান আলী থানা যুবলীগের যুগ্ন্ আহবায়ক মিজানুর রহমান রুপম, হোসেন আলী হাওলাদার, আলম মোল্যা । বক্তৃতা করেন লিপি বেগম, সোনিয়া বড়াই, শাহনাজ, জিনিয়া আক্তার ইমা, ভানু বেগম সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ সাজ্জাদুর রহমান লিংকনের সহযোগিতায় স্থাস্থ্য উপকরণ সাবান, মাস্ক, হ্যান্ডসেনিটাইজার এবং শিক্ষা উপরকরণ খাতা এবং কলম বিতরণ করা হয়। এ সময় ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষ তাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরলে প্রধান অতিথি তাদের সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ^াস প্রদান করেন।

খবর বিজ্ঞপ্তি

সোমবার সকাল ১০ টায় কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড এর নেতৃত্বে ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর অর্থায়নে বাস্তবায়িত ‘পুষ্টি উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্প’ (ঈজঅঅওঘ)-এর আওতায় রূপান্তর-এর আয়োজনে বাগেরহাট জেলা ও প্রকল্পের আওতাভূক্ত ৪টি উপজেলার সংবাদকর্মীদের সাথে পুষ্টি বিষয়ক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রকল্পটি উন্নয়ন সংস্থা- কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড, ওয়াটার এইড, রূপান্তর ও জেজেএস-এর সমন্বয়ে গঠিত কোস্টাল কনসোর্টিয়ামের মাধ্যমে বাগেরহাট জেলার কচুয়া, শরণখোলা, মোল্লাহাট এবং মোংলা উপজেলায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। ‘পুষ্টি উন্নয়নে অংশগ্রহণমূলক সমন্বিত প্রকল্প’(ঈজঅঅওঘ) -এর লক্ষ্য মা ও শিশু পুষ্টি উন্নয়ন করা। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন বিভাগ, কমিউনিটি এবং সুশীল সমাজের সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পুষ্টি, কৃষি, সামাজিক সুরক্ষা এবং পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন এই চারটি খাতকে সম্পৃক্ত করবে এই প্রকল্প। গর্ভবতী ও দুগ্ধদানকারী নারী, শিশু, কিশোরী, প্রজননক্ষমনারী, সুবিধাবঞ্চিত পরিবার, প্রাপ্ত বয়স্ক পুরুষ, বয়স্ক জনগোষ্ঠী ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন জনগোষ্ঠীর পুষ্টির উন্নয়ন উদ্দেশ্যে এই কার্যক্রম পরিচালিত হবে। বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে বাগেরহাট জেলার উপকূলীয় চারটি উপজেলার (কচুয়া, মোংলা, মোল্লাহাট ও শরণখোলা) সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠী এই কার্যক্রমের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত হবে। অনুষ্ঠানের সমাপনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ জাহারুল ইসলাম, জেলা তথ্য অফিসার,বাগেরহাট। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগেরহাট প্রেস কাবের সভাপতি জনাব মোঃ মোজাফফর হোসেন। সহায়ক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সাংবাদিক ও খুলনা প্রেস কাবের সাবেক সভাপতি ফারুক আহমেদ।

আরও পড়ুন:  পাইকগাছায় দুই কিঃমিঃ রাস্তা স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার হচ্ছে

সভায় অংশগ্রহনকারীদের মধ্য থেকে পরামর্শ সভায় বক্তব্য রাখেন, শরনখোলা প্রেসকাবের সাধারন সম্পাদক মহিদুল ইসলাম, বাগেরহাট প্রেসকাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক আলী আকবর টুটুল, মোল্লাহাট প্রেসকাবের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী মোহন এবং কচুয়া প্রেসকাবের সাধারন সম্পাদক কাজী সাইদুজ্জামান। বক্তব্য প্রদানকালে তারা বলেন-আগামীতে এ কার্যক্রম সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য পাশে থাকার অংগীকার ব্যাক্ত করেন। সভায় সকল অংশগ্রহনকারীরা ৪ টি দলে বিভক্ত হয়ে দলীয় কাজের মাধ্যমে কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানে প্রকল্প সমন্বয়কারী খালেদা হেসেন মুন অংশগ্রহনকারীদের সামনে প্রকল্প কার্যক্রম উপস্থাপন করেন অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শরিফুল বাসার, জেলা সিএসও  মোবিলাইজার। অপুষ্টিজনিত সমস্যার সমাধানে সকলের সমন্বয়ে, স্থানীয় পর্যায়ের উদ্ভাবনী ও টেকসই পুষ্টি সুশাসনের মডেল তৈরি করে টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে এই প্রকল্প ভূমিকা রাখবে বলে অংশগ্রহনকারীরা মতামত ব্যক্ত করেন।

খবর বিজ্ঞপ্তি

করোনা মোকাবেলায় গণসচেতনা তৈরিতে খুলনা ও বরিশাল জেলায় নানামুখী ব্যাপক কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হয়েছে। ইউএসএইড ও ইউকেএইড-এর আর্থিক সহযোগিতায় কাউন্টারপার্ট ইন্টারন্যানালের সহায়তায় রূপান্তর এবং আভাস মাঠ পর্যায়ে এ কাজ বাস্তবায়ন করে।

কর্মসূচীর মধ্যে ছিল ই-ক্যাম্পেইন সামগ্রী উন্নয়ন ও প্রচার, মাইকযোগে সম্প্রচার, সচেতনতামূলক প্রচার সামগ্রী তৈরি ও মানুষের মাঝে বিলি, সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের সাথে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সভা ও সমন্বয় এবং জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদের সাথে সভা।

করোনা প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য এ পর্যন্ত মোট ছয়টি পটগান প্রস্তুত ও ভিডিও তৈরি করা হয় যা’ রূপান্তর-এর ইউটিউব চ্যানেল এবং ফেসবুক পেজে আপলোড করা হয়। গতকাল ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এর মোট দর্শকসংখ্যা ছিল ৮২ লাখ ৬৮ হাজার ৬৯১ জন। দুই জেলার মেট্রোপলিটন শহর এলাকা এবং উপজেলাসমূহে সর্বমোট চার হাজার দুইশ’ ৩২ ঘন্টা মাইকযোগে করোনা সচেতনীকরণে মাইকযোগে সর্বমোট চার হাজার দুইশ’ ৩২ ঘন্টা প্রচার করা হয়। ৫২ হাজার পাঁচশ’ কপি প্রচারপত্র ইতোমধ্যেই বিলি করা হয়েছে দু’ জেলায়। রাষ্ট্রীয় সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান যেমন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য বিভাগ, মাধ্যমিক শিক্ষা দপ্তরের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে ১৪৭টি এবং জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদের সাথেও ১৪৭টি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে এই সভাসমূহে অংশগ্রহণ করেন বাল্যবিয়ে এবং নারী নির্যাতন প্রতিরোধে গঠিত প্লাটফর্মের সদস্যবৃন্দ। সভায় দায়িত্বশীল কর্মকর্তাগণ করোনাকালে চিকিৎসা, শিক্ষা ও রাষ্ট্রীয় নানান প্রণোদনায় নারীকে অগ্রাধিকার প্রদানের অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন। সেই সাথে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে আরো জোরালো ভূমিকা পালনের ঘোষণা দেন।

কে এম রেজাউল করিম দেবহাটা সাতক্ষিরা 

দেবহাটা থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে দেবহাটা উপজেলা বিভিন্ন এলাকা হতে  আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিল ও বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে সোমবারে (১৪ই সেপ্টেম্বর) থানার চৌকস পুলিশ অফিসার গন এএসআই রশিদুল ইসলাম, এএসআই সোহেল উদ্দীন, এএসআই মোজাম্মেল হক এবং এএসআই শামীম হোসেন সিআর-২৫/২০ এর আসামী ১। নূরালী বিশ্বাস, পিতা-আহাদ বিশ্বাস, সাং-ভাতশালা, থানা-দেবহাটা, সিআর-২৫/২০ এর আসামী ২। আব্বাস ঢালী, পিতা-কালু ঢালী, সাং-ভাতশালা, থানা-দেবহাটা,  জিআর-১৬১/১৮ (লালঃ) এর আসামী ৩। আমিনুর রহমান, পিতা-আলহাজ্ব আবুল কাশেম গাজী, সাং-চালতেতলা, থানা-দেবহাটা, জিআর-১৬১/১৮ (লালঃ) এর আসামী ৪। মোঃ জামাল গাজী, পিতা-আলহাজ্ব আবুল কাশেম গাজী, সাং-চালতেতলা, থানা-দেবহাটা,  জিআর-১৬১/১৮(লালঃ) এর আসামী ৫। মোসাঃ মোনয়ারা খাতুন, স্বামী-মোঃ জামাল, সাং-চালতেতলা, থানা-দেবহাটা,  জিআর-১৬১/১৮(লালঃ) এর আসামী ৬। মোসাঃ মাজিদা খাতুন, স্বামী-আমিনুর রহমান গাজী, সাং-সাং-চালতেতলা, থানা-দেবহাটা গ্রেফতার করেন। দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার সাহা জানান আসামীদেরকে সোমবারে (১৪ই সেপ্টেম্বর)  বিচারার্থে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আশাশুনি প্রতিনিধি

আশাশুনি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ড. মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। বেসরকারি আমলের অধ্যক্ষের চাকুরীর মেয়াদ শেষ হওয়ায় তিনি সংযুক্ত অধ্যক্ষ হিসাবে যোগদানের পর থেকে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার আশ্রয় গ্রহণ করে কলেজটিকে ধ্বংসের দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগে প্রকাশ, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ৭/১১/১৭ তাং আশাশুনি কলেজে এবং ৮/১১/১৭ তাং পরিবর্তন করে জয়পুরহাটে তাকে সংযুক্ত অধ্যক্ষ হিসাবে বদলী/পদায়ন করেন। কিন্তু তিনি তথ্য গোপন করে আশাশুনি কলেজে যোগদান করেন। যোগদান করেই তিনি দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা শুরু করেন। ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন কার্যক্রমের ভেন্যু হিসাবে কলেজের কক্ষ ব্যবহারের প্রস্তাবকে তিনি অনিহা প্রকাশ ও অর্থ দাবী করে তৎকালীন ইউএনও মহোদয়ের সাথে অসৌজন্য মূলক আচরন করলে উপজেলা পরিষদের সভায় তার বিরুদ্ধে নিন্দা জানিয়ে প্রস্তাব গ্রহীত হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ডিড অব গিফটের শর্ত বা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বেসরকারি কলেজের পুরনো প্যাড ব্যবহার (তথ্য লুকিয়ে) বেআইনী ভাবে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ফরোয়াডিং দিয়ে ৩ জন শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করিয়েছেন। জাতীয়করণকৃত কলেজে আয়-ব্যয়ের ক্ষেত্রে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অনুমতির বিধান থাকলেও নিঝেই আয়-ব্যয় পরিচালনা করেছেন। তিনি কলেজে যোগদানের আগে অনুষ্ঠিত জুন’১৭ সাময়িক ও আগষ্ট’১৭ নির্বাচনী পরীক্ষার সম্মানী গ্রহন করেছেন। অথচ তৎকালীন অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষের প্রাপ্যতা দেওয়া হয়নি। মার্চ’১৯ যোগদান করে তিনি অনুপস্থিতকালীন সময়ে ৮টি অনার্স বিভাগ, এইচএ্সসি, ডিগ্রী, বিএম শাখার বিভিন্ন সময়ে অনুষ্ঠিত সাময়িক পরীক্ষা ফি, কেন্দ্র, ইনকোর্স. ব্যবস্থাপনা ফি বাবদ বিপুল পরিমান টাকা অবৈধভাবে গ্রহণ করেছেন্ এমনকি অনার্স বিভাগের পরীক্ষা কমিটির নিকট হতে ৪০% হারে টাকা নিজে গ্রহন করেছেন। এইচএসসি ও পাবলিক পরীক্ষার প্রাকটিক্যাল নম্বর দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিষয় প্রতি ১০০ টাকা করে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর নিকচ থেকে বিনা রশিদে আদায় করেছেন। শিক্ষার্থীদের আইডি কার্ড বাবদ টাকা উত্তোলন করে নি¤œমানের কার্ড নিয়ে লাভবান হয়েছেন। কলেজে যোগদানের পর বিএনসিসি’র অফিস কক্ষটি নিজে বসবাসের জন্য ব্যবহার করলেও কোন ভাড়া প্রদান করেননি। অথচ তিনি বেতনের ৪০% বাসা ভাড়া বাবদ উত্তোলন করেন। এনিয়ে পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হওয়ার পর তিনি ১ মাসের ভাড়া প্রদান করলেও পরবর্তীতে আর দেননি। এছাড়া কলেহ শিক্ষকদের নিকট থেকে প্রাইভেট পড়ানো বাবদ সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ১০% হারে টাকা আদায় করলেও সরকারি কোষাগারে জমা না দেওয়া, পাবলিক পরীক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত সরকারি কর্মকর্তাদের প্রাপ্য সম্মানী না দেওয়াসহ বহু অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এসব অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে শিক্ষকরা যাতে উচ্চবাচ্য না করে সেজন্য শিক্ষকদের সামান্য ত্রুটি বিচ্যুতিকে হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করে নানা অপকৌশল অবলম্বনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এমনকি সামান্য বিষয় নিয়ে অভ্যান্তরিন ভাবে বা পারস্পরিক আলোচনা মাধ্যমে শুধরানোর ব্যবস্থা না করে শো-কজ করা থেকে শুরু করে অপপ্রচারের মাধ্যমে বিষয়কে বড় করে তুলে ধরে কলেজের শিক্ষার পরিবেশ নষ্টের ঘটনা উদ্ভব করা হয়ে থাকে। এব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করে আবেদনে কলেজটিকে রক্ষার জন্য কর্যকর পদক্ষেপ নিতে জোরদাবী জানান হয়েছে। এব্যাপারে কলেজেন অধ্যক্ষ ড. মিজানুর রহমানের সাথে মোবাইল কথা বললে তিনি জানান, অভিযোগের অনেকগুলো পুরনো। তদন্ত হয়ে গেছে। এখন শিক্ষার্থী ভর্তি চলছে, তাদেরকে সরকারি নয় আশাশুনি কলেজ লেখা ফরমে ভর্তি করা হচ্ছে। ৩ শিক্ষকের ফরওয়ার্ডিং আশাশুনি কলেজের প্যাডে করা হলেও নীচে আশাশুনি সরকারি কলেজ লেখা সীল ব্যবহার করা আছে। এটি নিয়ম মেনেই করা হয়েছে। ৩/৪ জন ষড়যন্ত্র করে জাল স্বাক্ষরে বিভিন্ন স্থানে অভিযোগ করেছে। কলেজের নামে খাতওয়ারী একাউন্ট খোলা হয়েছে, সেখানে খাতওয়ারী পৃথক একাউন্ট হতে আয়-ব্যয় করা হয়ে থাকে। আগে একই একাউন্ট থেকে বহু খাতে ব্যয় করে অনিয়ম করা হয়েছে। আমি কাউকে চুরি করার সুযোগ দেইনি, দেবনা। এজন্য অনেকে নাখোশ। বিল্ডিং নির্মান, ভাঙ্গার কাজ ফ্যাসিলিটিজ বিভাগের মাধ্যমে হচ্ছে, সেখানে আমাদের কোন হাত নেই। সুতরাং যে সব অভিযোগ করা হয়েছে, তা ভিত্তিহীন। আমি প্রত্যেক অভিযোগের জবাব দিতে প্রস্তুত আছি। 

আশাশুনি প্রতিনিধি

আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের গুনাকরকাটি শাহ্ মোহাম্মদ ইয়াহিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চার তলা ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। সোমবার সকালে ভবনের নির্মানের কাজের জন্য ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়। সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডাঃ আ ফ ম রুহুল হক এমপি মোবাইল কসফরেন্সের মাধ্যমে ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

অধ্যাপক ডাঃ আফম রুহুল হক এমপি’র একান্ত প্রচেষ্টায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার এলাকাবাসির স্বপ্ন ও দীর্ঘ দিনের দাবি গুনাকরকাটি শাহ্ মোহাম্মদ ইয়াহিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চার তলা ভবনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করা হলো। এ উপলক্ষে বিদ্যালয় চত্বরে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, এমপি প্রতিনিধি শম্ভুজিৎ মন্ডল। অনুষ্ঠানে কুল্যা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছেত আল হারুন চৌধুরী, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ, শিক্ষক মন্ডলী, আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনি প্রতিনিধি

আশাশুনিতে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকালে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের আয়োজনে চাম্পাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে বিকাল ৩.০০ হতে ৪.২০ পর্যন্ত এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের ৯ জন শিক্ষকের সাথে ডিজিটাল পদ্ধতিতে মতবিনিময় করা হয়। মতবিনিময় পরিচালনা করেন ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর ইমান উদ্দিন। আগামী সপ্তাহে প্রত্যেক শিক্ষক একজন করে শিক্ষার্থী নিয়ে তাদের সাথে একই পদ্ধতিতে মতবিনিময় করা হবে।

আশাশুনি প্রতিনিধি

আশাশুনি উপজেলার দরগাহপুর ইউনিয়নের খাসবাগান গ্রামে চা বিক্রেতা আবু সাইদ (৫০) ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি অইন্না ইলায়হি রাজেউন)। খাস’বাগান গ্রামের  ইসমাইল গোলদারের পুত্র ব্যুবসায়ী আবু সাইদ গোলদার রবিবার রাতে দোকানে ব্যবসার কাছে ছিলেন। হঠাৎ করে তিনি দোকানের মধ্যে পড়ে যান। দোকানে উপস্থিত থাকা ক্রেতাদের বুঝে উঠার আগেই তিনি মারা যায়। সোমবার সকালে যানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

আশাশুনি প্রতিনিধি

আশাশুনি উপজেলার তুয়ারডাঙ্গা গ্রামে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার রাতে সরদার বাড়িতে এ মতবিনিময় সভা করা হয়। হাসান বাবুর পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী অহিদুল ইসলাম মোল্যা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল কুদ্দুছ মোল্যা। অন্যদের মধ্যে শ্রমিকলীগ সভাপতি সাইফুল ইসলাম, আব্দুল্লাহ আল মামুন, কাজল সরদার, মোক্তাজুল সরদার, রফিকুল ইসলাম, জামাল মোল্যা, রব্বানী মোল্যা, এলিট মাষ্টার, জাকিরুল ইসলাম, অবঃ সেনা সদস্য সামিউল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ও আলোচনা রাখেন।

মোঃ আশাদুল ভূঁইয়া, কোটচাঁদপুর

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার দোড়া ইউনিয়নের সেলিম হোসেনের কন্যা সুমাইয়া (১০) বাড়ী থেকে হঠাৎ নিখোঁজ হওয়ার এক মাস পেরিয়ে গেলেও তার সন্ধান পাননি তার পরিবার।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সেলিমের স্ত্রী ৮বছর আগে শিশু সুমাইয়াকে রেখে এ সংসার রেখে অন্যত্র চলে যান। সে থেকে দাদী রাহেলা বেগম কোলেপিঠে করে মানুষ করে পুতনি শিশু সুমাইয়াকে। সুমাইয়ার বয়স এখন দশ বছর। সে পার্শ্ববর্তী পাঁচলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। গত ১৫ আগষ্ঠ তারিখে সেলিম হোসেন ও সেলিমের মা দু’জনে সুমাইয়াকে বাড়িতে একা রেখে তারা কোটচাঁদপুর শহরে আসেন ফ্যান কিনতে।

বাসায় ফিরে সুমাইয়াকে আর পাননি তারা। প্রতিবেশীরা কেউ কিছু বলতেও পারে না। সুমাইয়াকে ৪দিন বিভিন্ন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করে না পেয়ে অবশেষে গত ১৯ আগষ্ট কোটচাঁদপুর থানাতে জিডি করেছেন নিখোঁজ সুমাইয়ার পিতা দিন মুজুর সেলিম হোসেন। এর পরও সুমাইয়াকে ফিরে পেতে পিতা সেলিম হোসেন ও দাদী রাহেলা বেগম পথে পথে ঘুরছেন। ঘুরছেন সাংবাদিকসহ বিভিন্ন এলাকার জনপ্রতিনিধি রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের দারে দারে সহযোগীতার জন্য। মেয়েটির বর্ণনা- উচ্চতা আনুমানিক ৩ ফুট ৩ ইঞ্চি, গায়ের রং শ্যামলা, মুখমন্ডল লম্বাটে, হালকা পাতলা স্বাস্থ্য। হারিয়ে যাওয়ার সময় পরণে ছাপা হলুদ রং-এর ফ্রগ ও হাফ প্যাণ্ট পরিহিত ছিল। কেউ সন্ধান পেলে নিখোঁজ সুমাইয়ার পিতা সেলিম হোসেন মোবাইলে অথবা স্থানীয় থানায় জানানোর জন্য বিনীত ভাবে সকলের প্রতি অনুরোধ করেছেন। মোবাইল নং- ০১৭৫৪-৪৪১৬১৮।

যশোর অফিস

প্রথম স্ত্রী মোছাঃ আনজিরা বেগম (৪৮)কে আত্মহত্যা প্ররোচনা করার অভিযোগে সৈয়দ পুর ক্যান্টনমেন্ট স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল কাইয়ূম শেখসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাটি করেছেন, আত্মহত্যাকারী গৃহবধূর ভাই বদিরুজ্জামান শেখ। প্রিন্সিপাল কাইয়ূম শেখ যশোর শহরের পুরাতন কসবা পুলিশ লাইন মৃত পিজারুদ্দিনের ছেলে।

ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার দরুনা গ্রামের আব্দুল মজিদ শেখ এর ছেলে বদিরুজ্জামান শেখ রোববার দিবাগত গভীর রাত ১২ টার পর যশোর কোতয়ালি মডেল থানায় কাইয়ূম শেখ এর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে বলেছেন, প্রায় ৩০ বছর তার বোন আনজিরা বেগম এর সাথে কাইয়ূম শেখ এর বিয়ে হয়। বিয়ের পর আনজিরা বেগম দুই ছেলে জন্ম দেন। বর্তমানে দু’জন ছেলের বড় জন একাদশ শ্রেনীতে ভর্তি প্রার্থী। বিগত ৮ বছর পূর্বে প্রথম স্ত্রী আনজিরা বেগম সুস্থ্য থাকা সত্বেও কাইয়ূম শেখ শাকিলা পারভীনকে দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকে কাইয়ূম শেখ  আনজিরা বেগমের সাথে  খারাপ ব্যবহার করতো। দ্বিতীয় বিয়ে করার পর থেকে ভরন পোষন পর্যন্ত সময় মতো দিতো না। এ নিয়ে প্রায় তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ বাধতো। ইতিপূর্বে কাইয়ূম শেখ আনজিরা বেগমকে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করতে বলে। সম্প্রতি গত রোববার সকালে কাইয়ূম শেখ বড় ছেলেকে কলেজে ভর্তির ব্যাপারে যশোর বাড়িতে আসে। এরই মাঝে আনজিরা বেগমকে বকাঝোকার এক পর্যায় মারপিট পর্যন্ত করে। তাকে আত্মহত্যা করতে বললে আনজিরা বেগম রোববার দুপুর সোয়া ১ টায় কীটনাশক পান করে। কাইয়ূম শেখ আনজিরা বেগমে হাসপাতালে ভর্তি না করে সেখান থেকে চলে যায়। ছেলেরা চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় আনজিরা  মারা যায়। আনজিরা বেগমকে আত্মহত্যার ব্যাপারে স্বামী কাইয়ূম শেখসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩জন জড়িত বলে বাদী মামলায় উল্লেখ করেন।

যশোর অফিস

জমিজমা ও রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে প্রতিবেশী চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা সুমন নামে এক ছাত্রকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রকাশ্যে গতিরোধ পূর্বক স্বর্ণের চেইন ও মোবাইল ছিনিয়ে এলোপাতাড়ী মারপিট করে জখম করেছে। এ ঘটনায় আহত যুবকের বাবা বাদী হয়ে দুই সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়েছে। আসামীরা হচ্ছে, সদর উপজেলার বিজয়নগর গ্রামের সামাদ আলী বিশ^াসের ছেলে বিদ্যুৎ ও একই গ্রামের নিছার আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান।

সদর উপজেলার বিজয়নগর গ্রামের মৃত জামির বিশ^াসের ছেলে নিছার আলী বিশ^াস রোববার রাতে কোতয়ালি মডেল থানায় দুই আসামীর নাম উল্লেখ করে বলেন,তার ছেলে সুমনের সাথে উক্ত আসামীদের জমিজমা নিয়ে ও রাজনৈতিক বিরোধ চলে আসছে। গত ২ সেপ্টেম্বও সকালে সুমন চাচা ইসাহক বিশ^াসের জমির উপর দিয়ে পায়ে হেটে যাচ্ছিল। সকাল ৯ টা বেজে ৪০ মিনিটের সময় মৃধাপাড়া মাঠের ইসাহক বিশ^াসের জমির উপর হঠাৎ উক্ত আসামীরা তার গতিরোধ করে। কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট শুরু করে। সুমনের গলায় থাকা ৪০ হাজার টাকা মূল্যের চেইন ও পকেটে থাকা ১৮ হাজার টাকা মূল্যের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে সুমনকে মৃত ভেবে দ্রুত চলে যায়। স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে সুমনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

যশোর অফিস

তিনশ’ গ্রাম গাঁজাসহ সাগর নামে এক গাঁজা বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয় ক সার্কেলের সদস্যরা। সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১০ টায় শহরের পূর্ব বারান্দীপাড়া বউ বাজার কাঠালতলা ২ নং কলোনীতে অভিযান চালানো হয়।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয় ক সার্কেলে কর্মরত সদস্যরা জানান,সোমবার সকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে উক্ত এলাকাবার সাগরের বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় সাগরের দখল হতে ৩শ’ গ্রাম ওজনের গাঁজা উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাগরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

যশোর অফিস

প্রকাশ্যে দিবালোকে সদর উপজেলার এড়েন্দা মর্গার মাথা গ্রামের জামতলা থেকে এক মাদ্রাসা পড়–য়া শিক্ষার্থীতে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে অপহরণ করে ঘরে আটকে রেখে ধর্ষনের অভিযোগ তুলেছে। এ অভিযোগে রোববার ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে অপহৃতা কিশোরী (১৫) এর মাতা মোছাঃ রোজিনা বেগম বাদি হয়ে এক জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ অপহরণকারী রেজাউল হাজীকে গ্রেফতার করেছে। অপহৃতাকে উদ্ধার করে সোমবার আদালতে সোপর্দ করলে সে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মাইদুল ইসলাম রাজিব নিশ্চিত করেছেন।

যশোর সদর উপজেলার এড়েন্দা মর্গার মাথার জিয়ারুল ইসলামের স্ত্রী রোজিনা বেগম দায়েরকৃত এজাহারে বলেছেন, তার মেয়ে বাজে দূর্গাপুর গ্রামের মাদ্রাসায় ৯ম শ্রেনীতে লেখাপড়া করে। মাদ্রাসায় আসা যাওয়ার সময় প্রতিবেশী মৃত মতি হাজীর ছেলে রেজাউল হাজী বিবাহিত হওয়া সত্বেও উক্ত মাদ্রাসার ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাবসহ নানা উত্যক্ত করতো। বিষয়টি কিশোরীর অভিভাবক উক্ত ছেলেকে বাধা নিষেধ করলে সে অপহরনের সুযোগ খুঁজতে থাকে। গত ৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে কিশোরী প্রতিবেশী নূর ইসলামের বাড়িতে যাচ্ছিল। দুপুর ২ টায় এড়েন্দা মর্গার মাথা গ্রামস্থ জামতলা নামকস্থানে পৌছালে উক্ত রেজাউল হাজীসহ অজ্ঞাতনামা ২ মোটর সাইকেলে ঘটনাস্থলে এলে কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে মোটর সাইকেলে তুলে নতুন হাটের দিকে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে জানতে পারে রেজাউল হাজী উক্ত কিশোরীকে তার বাড়িতে আটকে রেখে জোরপূর্বক ধষন করছে। তিনি থানায় অভিযোগ দায়ের করলে থানা থেকে এসআই মাইদুল ইসলাম রাজিবসহ একদল পুলিশ রোববার বিকেলে রেজাউল হাজীকে তার বাড়িহতে গ্রেফতার করে। সাথে সাথে উক্ত বাড়ি হতে অপহৃতা কিশোরীকে উদ্ধার করে। সোমবার দুপুরে কিশোরীকে আদালতে সোপর্দ করে ২২ ধারার জবানবন্দি গ্রহনের ব্যবস্থা করেন। রেজাউল হাজীকে আদালতে সোপর্দ করে।

যশোর অফিস

যশোরে নতুন করে ২৪ ঘন্টায় ২৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে যশোর জেলায় এ যাবত ৩৬৭১জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ সময় সুস্থ্য হয়েছেন ২৩৯৫জন। যশোরের সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে যশোরের সাংবাদিকদের কাছে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাযায়,সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় থেকে ১৬৫টি নমুনার রিপোর্ট পেশ করেন। তার মধ্যে ২৭ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ। একই দিন খুলনা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ৫টি নমুনার রিপোর্ট প্রেরণ করেন। যার সব ক’টি নেগেটিভ। রোববার ১৩ সেপ্টেম্বর যশোর জেলা থেকে ১২৮টি  নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ যাবত যশোর জেলা থেকে দু’টি প্রতিষ্ঠানে ১৪২৯৬টি নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হলে ১৩৭৯৩ জনের নমুনার রিপোর্ট প্রেরণ করেন। বাকী ৫০৩টি রিপোর্ট পেন্ডিং রয়েছে।

কে এম রফিক, যশোর

খোদ শহরের মধ্যে আবারো অবৈধভাবে বাংলা ও চোলাইমদ বেচাকেনা শুরু হয়েছে। গত মার্চ মাসে অবৈধ তৈরীকৃত বিষাক্ত বাংলা ও চোলাইমদ পান করে যশোর এলাকায় ১১ জন মৃত্যুর ঘটনা গোটা যশোর বাসীর মধ্যে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করলেও আবারো চোলাইমদ বেচাকেনা শুরু হওয়ায় অনেক পরিবারের মধ্যে আতংক শুরু হয়েছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রগুলো বলেছেন,গত মার্চ মাসে যশোর শহরের মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের সামনে ও বাবু বাজারসহ শহরের বেশ কয়েকটি স্থানে অবৈধবাবে বিষাক্ত চোলাইমদ  সেবন করে যশোর শহরের গরীবশাহ মাজারের পাশের্^ মনি, ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের বাসিন্দা সাবুর, ঝুমঝুমপুর এলাকার ফজলুর রহমান চুক্কিসহ জেলায় কমবেশী ১১ জন পর্যায়ক্রমে মারা যায়। এ ঘটনায় চোলাইমদ সেবন করে মৃত্যুর ঘটনায় নিহতর পরিবারের পক্ষ থেকে দু’টি ও পুলিশ বাদী হয়ে  মামলা দায়ের করলে পুলিশ সেই সময় অভিযান চালিয়ে অবৈধভাবে চোলাইমদ বেচাকেনার অভিযোগে মাহমুদুল হাসান, কৃষ্ণ, সাজুসহ কমবেশী বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে।

বর্তমানে উক্ত মামলাগুলি চার্জশীট দাখিলের অপেক্ষায় রয়েছে। চোলাইমদ বেচাকেনার অভিযোগে পুলিশের হাতে যারা সেই সময় গ্রেফতার হয়েছিল। তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন। জবানবন্দিতে গ্রেফতারকৃতরা যাদের নাম বলেছেন তাদের মধ্যে কালো মিন্টু, ইছালী গ্রামের জাকির ছোট মহাসিন, আনারুল কারেন্ট মিস্ত্রী মনিরসহ অনেকে থেকে যায় ধরা ছোয়ার বাইরে। বিগত মার্চ থেকে চোলাইমদ বেচাকেনা একেবারে বন্ধ না হলেও শহরের হরিজন পল্লী পুরাতন পৌরসভার সামনে ও শহরের রেলষ্টেশনের অদূরে রেলরোডস্থ এলাকায় সুইপার কলোনীতে অবাধে চোলাই মদ বেচাকেনা চলতে থাকে। খোদ শহরের মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের সামনে থেকে চোলাইমদের দোকান থেকে চোলাইমদ কিনে সেবন করার অভিযোগে শহরে গড়ে ওঠা চোলাইমদক বেচাকেনা সিন্ডিকেটের উপর চলে অভিযান। অভিযানে কিছু সংখ্যক সদস্য ধরা পড়ে। বাকী অংশ বিভিন্ন জেলায় ও আত্মগোপন করে থাকায় তারা থেকে যায় ধরা ছোয়ার বাইরে। বাজারের উক্ত রোডের ব্যবসায়ীরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, ইছালী গ্রামের জাকিরের সহযোগী ও মাদক মামলার আসামী সাবেক মাদক বিক্রেতা ফারুকের ভাইপো ছোট মহাসিন, বাবু বাজার হাটখোলা রোডস্থ  পলাশ হোটেলের পাশের্^ ভোলাসাহা আবাসিক হোটেলের সামনে কারেন্ট মিন্ত্রী মনি, বাবু বাজার ২নং গলির সুমীর স্বামী আনারুল, উক্ত ২নং গলির গেটের সামনে পান দোকান পুলিশের কথিত সোর্স সুমন ওরফে বেকারী সুমন, মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের ২ নং গলির সর্দানী বিনার ভাই মনির হোসেন মায়ের দোয়া পান সিগারেটের দোকানের আড়ালে ডোমদে মাধ্যমে উত্তোলন করে বাংলা ও চোলাইমদ বিক্রি করে। সূত্রগুলো জানিয়েছেন উক্ত দোকানে সব সময় নারীদের নিয়ে আড্ডা করে। পতিতা সর্র্দানী বিনার  ভয়ে কেউ মুখ খুলতে পারেনা। সূত্রগুলো বলেছেন, মায়ের দোয়া দোকান্দার মনিরের সহযোগী হিজড়া হাসান অবৈধ মদ আনা নেওয়াসহ নানা অসামাজিক কার্যকলাপ করে থাকে। সূত্রগুলো বলেছে, পথচারীরা পতিতা সর্দানী বিনার অত্যাচারে ওই সড়কে চলাফেরা করতে পারেনা। করোনা ভাইরাসে সামাজিক দূরত্ব না মেনে পতিতা সর্দার্নী হাটখোলা রোডস্থ ও মাড়–য়াড়ী মন্দির সংলগ্ন পতিতালয়ের সামনে অবস্থান নেওয়ায়  ওই সড়কে ব্যবসায়ী চলাচলরত পথচারীরাঅতিষ্ট হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

যশোর অফিস

যশোরে যৌতুক নিরোধ আইনে নীলফামারীর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সোমবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব বিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ঝিনাইদাহ কালীগঞ্জের আড়পাড়া গ্রামের ইকরামুল হকের মেয়ে ফারজানা নাসরিন বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দিন হোসাইন অভিযোগটি আমলে নিয়ে সমন জারির আদেশ দিয়েছেন। মাসুদ রানা পাবনা সাঁথিয়া থানার আফতাব নগর গ্রামের আব্দুল আলিমের ছেলে।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, আসামি মাসুদ রানা পরসম্পদ ও যৌতুক লোভী। ২০১৯ সালের ২১ জুন তিনি শামসি নাহিদ অঞ্চা নামে এ মেয়েকে বিয়ে করেন। পরর্বীতে যেীতুদের দাবিতে নির্যাতন করে ওই বছরের ৪ নভেম্বর তালাক দেন। মাসুদ রানার সাথে ফারজানা নাসরিনের মোবাইল ফোনে পরিচয়। পূর্বের বিয়ে গোপন করে পারিবারিক ভাবে চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় মাসুদ রানাকে ৫ লাখ টাকার মালামাল ও ২ লাখ টাকার স্বর্ণলংকার দেয়া হয়। কিছুদিন যেতে না যেতে মাসুদ রানা ঢাকার পূর্বচলে প্লট কেনার জন্য তার স্ত্রীর কাছে ১০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুকের ৫ লাখ টাকা মাসুদ রানাকে দেয়া হয়। বাকি ৫ লাখ যৌতুকের জন্য মাসুদ রানা তার স্ত্রীর উপর নির্যাতন শুরু করেন। এক মাস আগে মাসুদ রানা শ্বশুর বাড়ি এসে যৌতুকের টাকা না পেয়ে তার স্ত্রীকে মারপিট করে চলে যায়। এরপর বেশ কয়েকবার মীমাংসায় চেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়ায় তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।

ইলিয়াস হোসেন,  তালাঃ

তালায় করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। সোমবার (১৪ সেপ্টেস্বর) সকালে জাতপুর সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠ চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উক্ত প্যাকেজ ত্রাণ বিতরণ করেন সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তালা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকির হোসেন। জাতপুর করোনা ও দুর্যোগ প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে, স্থানীয় জনগোষ্ঠীর উদ্যোগে এবং বে-সরকারী সংস্থা উত্তরণ এর সহযোগিতায় এলাকার ৮৬ পরিবারের মাঝে উক্ত খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। এ সময় সমাজ সেবক মোঃ ইয়াকুব বিশ্বাস, সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক মোঃ আলমগীর হোসেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক সাংবাদিক গাজী জাহিদুর রহমান, জাতপুর করোনা ও দুর্যোগ প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি তামজীদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক হেদায়েতুল্লাহ মুকুল, মোঃ জগলুল বিশ্বাস, মোঃ বক্কার বিশ্বাস, উত্তরণের মোঃ রেজওয়ান উল্লাহ, মির্জা মনিরুল ইসলামসহ উপকারভোগিরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় প্রতিটি প্যাকেজে ১০ কেজি চাল ও ২  কেজি মসুর  ডাল সরবরাহ করা হয়। আপদকালীন সময় উক্ত খাদ্য সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

তালা প্রতিনিধি

তালায় উপজেলা শহর (নন-মিউনিসিপ্যাল) মাস্টার প্লান প্রণয়ন ও মৌলিক অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে আরসিসি ড্রেন নির্মাণ, তিনটি পাবলিক টয়লেট ও পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পে রাস্তা উদ্বোধন করা হয়েছে।  সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে তিনটি উন্নয়ন প্রকল্পে ৫ কোটি ৮ লক্ষ টাকার কাজের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার,তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইকবাল হোসেন, তালা থানা ওসি মেহেদী রাসেল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সরদার মশিয়ার রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুর্শিদা পারভীন পাঁপড়ি, তালা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকির হোসেন, উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল মজিদ মোল্যা, ইউপি সদস্য মীর শামছুজ্জোহা আকবর কল্লোল, শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিউর রহমান ডানলপ,সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন্নেছা, তালা সার্জিক্যাল কিনিকের স্বত্বাধিকারী বিধান রায়,বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী বিশ্বাস,শিক্ষক গোলাম মোস্তফা,সাংবাদিক আরিফুল হক ভুলু ও সংশ্লিষ্ট ঠিকানাদারসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য,তালা মেলা বাজারে জামে মসজিদ,তালা উপজেলা পরিষদের পূর্ব পাশে,তালা বাজার পুরাতন সিনেমা হলের দক্ষিণ পাশে তিনটি টয়লেট নির্মাণ ও কপোতাক্ষ ব্রিজের চরগ্রাম থেকে প্রায় সাড়ে ৩ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ ও তালা প্রেসকাব মোড় থেকে আরসিসি ড্রেন নির্মাণ উদ্বোধন করা হয়।

তালা প্রতিনিধি

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে তালা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনলাইনে বিজ্ঞান কুইজ প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ করা হয়ছে। প্রথান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উক্ত পুরষ্কার বিতরণ করেন তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইকবাল হোসেন। তালা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার প্রভাস কুমার দাস, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের সহকারী প্রোগ্রামার মোঃ ইমরান হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট স্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। মুজিব শতবর্ষে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় তালা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে গত রবিবার অনলাইন বিষয়ক উক্ত বিজ্ঞান কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় তালা শহীদ আলী আহম্মেদ সরকারী বালিকা বিদ্যালয় প্রথম, জাতপুর সমকাল মাধ্যমিক বিদ্যাপীঠ দ্বিতীয় এবং পাটকেলঘাটা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় তৃতীয় স্থান অধিকার করে।

তালা প্রতিনিধি

বেতনা অববাহিকার বেতনা নদীর বর্তমান পলি ভরাট, জলাবদ্ধতা, নিস্কাশন ব্যবস্থার প্রতিবন্ধকতা, জলাবদ্ধতায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা প্রদান না পাওয়া, সরকারী প্রকল্পের অগ্রগতি বিষয়কে সামনে রেখে বেতনা রিভার বেসিন পানি কমিটির ত্রৈমাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়।  সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় সাতক্ষীরা প্রগতি কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ আশেক-ই-এলাহী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় পানি কমিটির সদস্য মীর জিল্লুর রহমান, বেতনা রিভার বেসিন পানি কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ বাবু, মোঃ নুরুল হুদা, রাফেজা খাতুন, মোঃ আতাউর রহমান, মোঃ আব্দুর জব্বার মাষ্টার, শেখ হাফিজুর রহমান, উত্তরণের কামরুর নাহার ও আলামিন মোড়ল প্রমুখ।

এ সময় স্থানীয় জনগণের জীবন-জীবিকা অব্যাহত রাখতে সভায় জরুরীভাবে জলাবদ্ধতা নিরসনে  পেরিফেরিয়াল বাঁধ পুনঃস্থাপন, সেচের মাধ্যমে পানি নিস্কাশন, জলোচ্ছ্বাস ও উঁচ্চ জোয়ারের চাপে বাঁধ ভেঙ্গে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা এবং এলাকা যাতে আবারও জলাবদ্ধ কবলিত না হয় তার জন্য অনতিবিলম্বে বেতনা নদীর জলাবদ্ধতা দূর করার জন্য বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড, জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।

তালা প্রতিনিধি

তালা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও তালা প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক সরদার মশিয়ার রহমানের মা ফজিলাতুন্নেছা বেগমের রুহের মাগফিরাত কামনায় কুলখানি ও দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) উপজেলা পরিষদে বিকাল ৪ টায় দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে এবং মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) বারুইহাটি গ্রামে যোহরবাদ দোয়া মাহফিল ও কুলখানী অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত দোয়া অনুষ্ঠানে সকলকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন পরিবারের পক্ষে থেকে তালা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও প্রেসকাবের সাধারণ সম্পাদক সরদার মশিয়ার রহমান।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১টার দিকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন ফজিলাতুন্নেছা।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 9
    Shares