প্রচ্ছদ বাংলাদেশ শিক্ষাঙ্গন

ক্যালেন্ডারে ফটকের ছবি, ব্যয় ৫০ লাখ অথচ কাজই শুরু হয়নি

14
ক্যালেন্ডারে ফটকের ছবি, ব্যয় ৫০ লাখ অথচ কাজই শুরু হয়নি
পড়া যাবে: < 1 minute

ক্যাম্পাস প্রতিনিধি  :   প্রতিষ্ঠার পর ১৯ বছর কেটে গেলেও এখনও নির্মাণ হয়নি গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) প্রধান ফটক। এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিন দায়িত্বে থাকাকালীন তিন বছর ধরে প্রধান ফটকসহ আরেকটি ফটক নির্মাণাধীন উল্লেখ করে ৫০ লাখ টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছিল। তবে এখনও পর্যন্ত নির্মাণ কাজই শুরু হয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকল্পনা ও ওয়ার্কস দফতর থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালে অনুমোদনপ্রাপ্ত বশেমুরবিপ্রবির অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে এ ফটকদ্বয় নির্মাণ হওয়ার কথা ছিল। ১০৫ কোটি টাকার প্রকল্পে ফটকের জন্য বরাদ্দ ছিল এক কোটি ৬৮ লাখ টাকা।

পরবর্তীতে ২০১৮ সালে প্রকল্পটি রিভাইজড করে সর্বমোট ২৫০ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এ সময় মূল প্রকল্পে মোট বরাদ্দ বৃদ্ধি পেলেও ফটকের ক্ষেত্রে বরাদ্দ কমিয়ে এক কোটি ৫ লাখ টাকা করা হয়।

আরও পড়ুন:  দারিদ্র্যপীড়িত এলাকায় প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেবে সরকার

কিন্তু এরপর প্রায় ৩ বছর পার হলেও এখন পর্যন্ত গেটের নির্মাণ কাজ শুরু করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়েরি-ক্যালেন্ডারসহ বিভিন্ন জায়গায় এটিকে নির্মাণাধীন দেখানো হচ্ছে। কাগজে-কলমে ব্যয় দেখানো হয় ৫০ লাখ টাকা। এছাড়া নির্মাণ কাজের অগ্রগতি দেখানো হয় ৪৭ দশমিক ৬১ শতাংশ।

ব্যয় দেখানো এবং গেইট নির্মাণ প্রসঙ্গে প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান ভুঁইয়া জানান, তিনি ২০১৯ সালে যোগদান করেছেন। ইতোমধ্যে প্রধান ফটকের নির্মাণকাজ শুরুর জন্য একবার টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা হয়েছিল। কিন্তু আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যায়নি। তাই পুনঃটেন্ডার বিজ্ঞপ্তি দেয়া হবে।

নির্মাণকাজ শুরু না করেও ব্যয় দেখানো প্রসঙ্গে পূর্বের প্রকল্প পরিচালক প্রফেসর ড. এম এ সাত্তার বলেন, ‘সাবেক উপাচার্য ডেকে নিয়ে আমাকে প্রকল্প পরিচালকের দায়িত্ব দিয়েছিলেন। বিষয়গুলো সম্পর্কে তেমন কিছু জানতাম না, তার নির্দেশনা অনুযায়ী সাক্ষর করতাম এবং একপর্যায়ে পদত্যাগ করি।’

আরও পড়ুন:  প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি অক্টোবরে

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান উপাচার্য ড. এ কিউ এম মাহবুব বলেন, ‘কাজগুলো আরও আগেই পূর্বের উপাচার্যের সময়ে শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখনও এসকল কাজ শেষ হয়নি। আমি যোগদান করার পর বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছি।’

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 4
    Shares