প্রচ্ছদ আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগের ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকলে সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতৃত্বে বসানো হবে না

ছাত্রলীগের ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকলে সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতৃত্বে বসানো হবে না

41
পড়া যাবে: 2 মিনিটে
advertisement

আ’র মাত্র মাসখানেক পরই আওয়ামী লীগে জাতীয় কাউন্সিল। তা’র আ’গে সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোর কাউন্সিল অ’নুষ্ঠিত হবে। এর ম’ধ্যে গ’তকাল মহিলা শ্রমিক লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। নতুন দায়িত্ব পেয়েছেন দুজন।

advertisement

এ’বার যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগে স্বচ্ছ ইমেজের নতুন নেতৃত্বে সন্ধান করা হচ্ছে। আর কাউন্সিল এ’লেই কিছু নেতাদের সক্রিয় দেখা যায়। ‘ওরা’ সারাবছর নিজের আখের গোছাতে ব্যস্ত ছিলেন। সংগঠনের খোঁজখবরও নেননি। ব্যবসায়, টেন্ডার নিয়ে ব্যস্ত থা’কা নে’তারা কাউন্সিলকে ঘিরে প’দপদবির জন্য শিষ্য নে’তাদের কাছে প্র’তিনিয়ত হা’জিরা দিচ্ছেন।

তবে সহযোগী সংগঠনের ত্যাগীরা মৌ’সুমি নে’তাদের গু’রুত্বপূর্ণ পদে দে’খতে চান না। আবার পরিচ্ছন্ন ক্লিন ইমেজ, দক্ষ সংগঠক, দলের জন্য নিবেদিত ও পরীক্ষিতদের হাতে নেতৃত্ব তুলে দিতে চান আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

ছাত্রলীগের ব্যাকগ্রাউন্ড না থাকলে সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতৃত্বে কাউকে বসানো হবে না। সূত্রমতে, কৃষক লীগের ২ নভেম্বর, স্বে’চ্ছাসেবক লীগের ৯ নভেম্বর, শ্রমিক লীগের ১৬ নভেম্বর ও যুবলীগের সম্মেলন ২৩ নভেম্বর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই সম্মেলন হ’ওয়ার ক’থা রয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর-উত্তর ও দক্ষিণ সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ১১ ও ১২ নভেম্বর।

আরও পড়ুন:  ক্যা’সিনো বা টে’ন্ডারবাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত নয় যুবলীগ চেয়ারম্যান,কাজে নামার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

এ ছাড়া আগামী ২০-২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এই স’ম্মেলনকে ঘি’রে বি’শাল কর্মযজ্ঞ শুরু ক’রেছে ক্ষমতাসীন দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা। পূর্বপ্রস্তুতি অংশ হি’সেবে তা’রা সম্মেলন প্র’স্তুতি কমিটি, গঠনতন্ত্র সংশোধন, পুস্তিকা প্রকাশনীসহ যাবতীয় কর্মকান্ড। দফায় দফায় মিটিং করছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের না’ম না প্র’কাশ করার শর্তে বলেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগে অ’নেক নেতা আছেন যা’রা বিভিন্ন ব্যবসা- বাণিজ্যের সঙ্গে জ’ড়িত। যা’রা রা’জনীতিতে সক্রিয় না। কিন্তু কা’উন্সিলকে ঘিরে তারা খুবই সক্রিয়। তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন কাজ করে তা’রাও এদের জন্য সংগঠনের ভালো অবস্থানে আসতে পারে না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আসন্ন দলের জাতীয় কাউন্সিলে পরিচ্ছন্ন ও ক্লিন ইমেজের ব্যক্তিই দলে স্থান পাবেন। সহযোগী সংগঠনের ক্ষেত্রেও তাই হবে। কোনো বিতর্কিত, দু’র্নীতিতে জ’ড়িত, চাঁ’দাবা’জদের স্থান দেয়া হবে না।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক বলেন, সত্য, নিষ্ঠাবান, অপেক্ষাকৃত ত’রুণদের স’হযোগী সংগঠনের দা’য়িত্ব দেয়া হবে। এ ছা’ড়া সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদেরও দায়িত্ব দিতে পারেন।

কৃষক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ সমীর চন্দ বলেন, কৃষক লীগের কনফারেন্সে আগামী দি’নের নেতৃত্বে কৃষকের জীবনযাত্রার ওপর জ্ঞান আছে, ধারণা আছে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শে সৎ ও দক্ষ সংগঠক নেতৃত্ব আমরা চাই।

আরও পড়ুন:  যুবলীগ নেতা জিকে শামীমের দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে গ্রে*প্তারের তালিকায় ২৫ জন প্রভাবশালী

আওয়ামী লীগ নে’তারা বলছেন, দ’লের তৃণমূল থেকে শুরু করে কেন্দ্র প’র্যন্ত সংগঠনকে ন’তুন করে ঢেলে সাজানোর কা’জ শুরু হয়ে গেছে। এর মধ্য দিয়ে দ’লের মধ্যে থেকে যারা অ’পকর্ম করেছে তাদের আ’উট করা হবে। বিতর্কিত কাউকেই দলের নে’তৃত্বস্থানীয় কোনো পদে বসানো হবে না। প’দপদবিতে ব’সানো হবে দলের ত্যা’গী, দক্ষ ও ক্লিন ইমেজসম্পন্ন এবং ছাত্রলীগ করে আসা নেতাকর্মী থেকেই। কোনো হা’ইব্রিড-অ’নুপ্রবেশকারীর স্থান আওয়ামী লীগে হবে না।

কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, দু’র্নীতি’র বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের যে নীতি নিয়ে সরকার অভিযান চালাচ্ছে, সেটি সফলতার সঙ্গে এগিয়ে নেয়া সম্ভব। কারণ এর মাধ্যমে সাধারণ জনগণের পূ’র্ণ সমর্থন রয়েছে। রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ আরো একধাপ এগিয়ে গেল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক প’র্যবেক্ষকরাও।

সূত্রমতে, ওয়ান-ইলেভেনে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর মুক্তির আ’ন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের গু’রুত্বপূর্ণ পদে থাকা দুই শী’র্ষ নেতাকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের জন্য জোর আ’লোচনা হচ্ছে। কৃষক লীগেও গুরুত্বপূর্ণ পদে দা’য়িত্ব পালন করা সাবেক এক-দুজন নেতাকে নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। কৃষক লীগের বর্তমান নেতৃত্ব পরিবর্তন হওয়ার জোর সম্ভাবনা রয়েছে।

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সর্বশেষ আপডেট

  • 154
    Shares
advertisement