প্রচ্ছদ বাংলাদেশ জেলা

কুষ্টিয়ার খোকসা পৌরসভার নতুন ভবনে অফিস স্থানান্তর অনুষ্ঠিত ।

13
কুষ্টিয়ার খোকসা পৌরসভার নতুন ভবনে অফিস স্থানান্তর অনুষ্ঠিত ।
পড়া যাবে: 2 মিনিটে

প্রতিষ্ঠাতার ১৮ বছর পর কুষ্টিয়ার খোকসা পৌরসভার নতুন ভবনে অফিস স্থানান্তর অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার দুপুরে নতুন ভবন চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়।
২০১৮ সালের ৬ মে এক অনাড়ম্বর আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খোকসা উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। ভিত্তিপ্রস্তর ২ বছর ৫ মাস পরে পৌর ভবন উদ্বোধনের আগেই বেশ ঘটা করেই হোক সব পৌরসভার অফিস নতুন ভবনের স্থানান্তর আজ বৃহস্পতিবার ( ৪ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হলো। তিন কোটি ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে জিওবি’র বাস্তবায়নে মেসার্স শামীম আরফান জেভি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কতৃক তিনতলা ভবন নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে সমাপ্ত করেছেন। খোকসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র প্রভাষক তারিকুল ইসলাম তারিক এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খোকসা উপজেলা বারবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আজগর আলী।
পৌর অফিস নতুন ভবনে স্থানান্তর অনুষ্ঠানে দোয়া ও আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্র নেতা অ্যাডভোকেট আকরাম হোসেন দুলাল, চেয়ারম্যানদের পক্ষে জানিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, শিক্ষকদের পক্ষে সাবেক শিক্ষক প্রভাত মালাকার এবং ব্যবসায়ীদের পক্ষে ওয়াহিদুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন।
অফিস কার্যক্রম স্থানান্তর দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠান অবশেষে রাজনৈতিক সভায় পরিণত হয়। খোকসা পৌর এলাকা জনসমাবেশে পরিনত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা আজগর আলীর বক্তৃতায় তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে স্পষ্ট জানিয়ে দেন যদিও বিভেদ থাকতেই পারে কোথাও থাকতে পারে ঘরে এসে বলার জন্য রাজপথে বলে কখনো সম্ভবপর নয় তার সমাধান। জেলা আওয়ামী লীগের পদের অপমান করলে কোন অবস্থাতে শব্দ হবে না বলেও তিনি হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন প্রয়োজন হলে আইনের আশ্রয় নেওয়া হবে বলেও তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে কোট করে বলেন, দলে অনুপ্রবেশকারী কাউকেই কোন অবস্থাতেই ছাড় দেওয়া হবে না। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান বলেন, অনেক ত্যাগ তিতিক্ষা ই আমাদের এই কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগ। নিজেদের মধ্যে দলীয় বিভেদ থাকলেও দলকে সুসংগঠিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক একই মেরুতে আমরা অক্ষ বদ্ধ দলের মধ্যে যারা বিভেদ করে এবং তাদেরকে অবশ্যই দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক ফিরে আসতে হবে নচেৎ তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। সভাপতির বক্তৃতায় পর এক বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয় মোনাজাত পরিচালনা করেন খোকসা উপজেলা মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা আবু দাউদ খান।

আরও পড়ুন:  খাটিয়া জোটেনি, বাঁশ কাটতে দেয়নি গ্রামবাসী, অ্যাম্বুলেন্সে জানাজা

বাংলা ম্যাগাজিন /এসপি

সাম্প্রতিক খবর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে Bangla Magazine সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান নিউজ ম্যাগাজিন অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

  • 6
    Shares